বিশ্বের কিছু ধর্ষিত নারীর ভয়াবহ প্রতিশোধ !

প্রকাশিত: ৩০ এপ্রিল, ২০১৭ ০৪:৫৪:৫৬

রেপ !!! X(( বর্তমান সময়ের একটি ভয়াবহ ব্যাধীর নাম। অধিকাংশ ক্ষেত্রে এর শিকার হয় নারীরা, যার খুব কম বিচারই ভিক্টিক পেয়ে থাকে। কিন্তু কিছু বিচার বিচারকের আদেশের অপেক্ষায় থাকে না, কিছু সাজা ভিক্টিম নিজেই দিয়ে থাকে। আজ আপনাদের বলবো ধর্ষক, ধর্ষিত ও প্রতিশোধের এমন কিছু সত্য ঘটনা, আমি মনে করি ধর্ষকদের বিচার এমনই হওয়া উচিত, আপনি কি মনে করেন ???

১.  Jackie Clarke 

সিরিয়াসলি, কাহিনীটা কন্সপারেসিতে ভরা। ২০০৫ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি এই মহিলা তার এক বন্ধুকে কিডন্যাপ করে(তার ভাষায় দাওয়াত করে)। তারপর তার কফিতে ড্রাগ মিশিয়ে মাতাল করে। জেকি তার ১৮ বছরের ছেলেকে দিয়ে ঐ বন্ধুর হাত পা বানতে বলে। তারপর বেসবল ব্যাট দিয়া ধুমাইয়া বারির উপর বারি। যখন তাকে উদ্ধার করা হলো তখন সে নিজের পায়ে হাটতে পারছিলো না। সবচেয়ে চমকপ্রদ ব্যপার হলো, সে নাকি ঐ লোকের লিঙ্গে আলপিন ও কালি দিয়ে(জেল হাজতে এই উপায়ে উল্কি/ট্যাটু আঁকা হয়) লিখে দিছিলো 'rapist' :| মহিলার ছয় বছরের জেল হয়। আদালত সে ট্যাটুর ব্যপারে বলেছিলো,“If I did it, I did it.”। মানে কি এর তা এখনো ক্লিয়ার হয় নাই। =p~ =p~ 

২.  Sonnet Ehlers 

না তাকে কেও রেপ করে নাই। কিন্তু ডাক্তার হিসাবে তিনি অনেক ধর্ষনের শিকার নারীর সেবা শুশ্রসা করেছেন। তারপর তিনি এমন একটি ডিভাইস বানাইছেন যা ধর্ষকদের জন্য আতংকজনক। তিনি কনডমের গায়ে কাটা লাগিয়েছেন, যা যোনীর ভিতরে রাখা হয়, যাতে ম্যানহুড তো সেফলি পেনিট্রেট করা যাবে মাগার বের হবার সময় :((:((:(( সার্জারী ছাড়া ওটা ফিরে পাওয়া সম্ভব না। :|:|:| এমন প্রতিশোধ !!! নারী ভয়ঙ্কর !!!

৩.  Chiomara 

সে ছিলো একটা ধর্মীয় উপজাতীর নেতার বৌ। ১৮৯ সালে তাদের গ্রামে রোমান সৈন্য হানা দেয়। যুদ্ধে তারা হেরে যায়। তাকে রোমান সৈন্যরা অপহরন করে নিয়ে যায়। একজন রোমান যোদ্ধা তাকে রেপ করে। কিন্তু রেপ করার পর সে গিলটি ফিল করে। সৈন্যটি Chiomara এর কাছে ক্ষমা চায়। তাকে তার গ্রামে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। Chiomara সেই সৈন্যের মাথা দাবী করে। তারা সেই সৈন্যের মাথা কেটে তাকে দেয়। Chiomara সেই মাথা বহন করে নিয়ে যায় তার স্বামীকে দেখানোর জন্য। বাড়ি ফিরে Chiomara তার স্বামীকে লক্ষ করে বলে, “Only one man who has lain with me shall remain alive.” B-)B-) তার স্বামী তার দিকে ফিরে মাথা নুয়ায় ও মুচকি হাসি দেয়। জ্ঞানীরা ইশারাতেই বুঝে ;);)

৪.  Lorena Bobbitt

রিয়েলি !!! আহাহাহা !!! আপনি যদি Lorena Bobbitt এর নাম শুনে না-ও থাকেন, তাহলে আপনি তার প্রাত্তন স্বামী John Wayne Bobbitt কে অবশ্যই চিনে থাকবেন। আর আপনে যদি তার নামও শুনে না থাকেন তাহলে এই কাহিনী অবশ্যি শুনে থাকবেন। :) কাহিনীর হলো ১৯৯৩ সালের ২৩শে জুন জন ঘরে ঢুকেই লরিনাকে রেপ করে। লরিনা পানি খাওয়ার নাম করে কিচেনে যায়, একটা ছুরি নেয় ও জনের লিঙ্গ গোড়া থেকে কেটে ফেলে। সে কাটা অংশ নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয় এবং কিছু দুরে যেয়ে একটা মাঠে অংশ টি ছুড়ে ফেলে দেয়। তারপর সে ৯১১ এ কল দেয়। পরে পুলিশ অনেক খুজাখুজির পর অংশটি পায় এবং প্রায় ৮ ঘন্টা অপারেশনের পর জোড়া লাগানো হয়। :P:P সে ঘটনার পর জন দুটি এডাল্ট মুভি করে। X((X((

৫.  The Trung Sisters

ভিয়েতনামি এই দুই বোনের কাহিনী আমার কাছে সবচেয়ে টাচ করছে। Trung Trac and Trung Nhi দুই বোন ছিলো ভিয়েতনামের এক প্র‌তাপশালী লর্ডের মেয়ে। চীনারা যখন ভিয়েতনাম দখল করে তখন Trung Trac ধর্ষিত হন এবং তার স্বামী নিহত হন। প্রতিশোধ নিতে এই দুই বোন ৮০,০০০ হাজার গৃহহীন মানুষ নিয়ে সৈন্যদল গঠন করে। তাদের সৈন্যদলে ৩৮ জন মহিলা জেনারেল ছিলো(তাদের মা-ও ছিলো একজন জেনারেল)। কিন্তু ফাইনালি তাদের পরাজিত হতে হয় এবং অনেকেই নিজেদের সম্মান রক্ষা করার জন্য আত্মহত্যা করে বাকিরা যুদ্ধ করতে করতে মৃত্যুবরন করে। এই বাহিনীর একজন লিডার Phung Thi Chinh, যুদ্ধের সময় ছিলেন প্রেগনেন্ট। যখন তার বেবি হবার সময় হলো তখন সে বলেছিলো, “oh, fudge it. I got this shit,”। এবং যুদ্ধক্ষেত্রেই বাচ্চাটির জন্ম হয়। বাচ্চাটিকে কাধে ঝুলিয়ে তিনি আবার যুদ্ধে ঝাপিয়ে পরেন। :( X(( :| 

৬.  জ্বলন্ত ধর্ষক

মা এর নামটি জানা যায় নি, একদিন তার সাথে Antonio Cosme Velasco Soriano নামের একজন লোকের দেখা হয় যে সাত বছর আগে তার ১৩ বছরের মেয়েকে রেপ করেছিলো। Soriano তাকে দেখে চিৎকার করে প্রশ্ন করে, “how’s your daughter?” X(X(( মা টি Soriano এর পিছু নেয় এবং যখন Soriano একটি বারে প্রবেশ করে তখন মা Soriano এর গায়ে গ্যাসোলিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। ১১ দিন পর Soriano মারা যায়। মা টিকে পুলিশ গ্রেফতার করে, কিন্তু ব্যপক জনসমর্থনের দরুন আদালত তাকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। :D

৭.  কাটা মাথা হাতে মেয়েটি

২০০৮ সালে ভারতের একটি গ্রাম Makkapurva এর মার্কেটে একটি মেয়ে আসে যার সারা গায়ে রক্ত লেগে ছিলো এবং তার এক হাতে ছিলো একটা অমানুষের কাটা মাথা। মেয়েটি যখন গ্রামের মাঠে গরুর জন্য ঘাস কাটছিলো তখন এই অমানুষটি পিছন থেকে তার উপর ঝাপিয়ে পরে এবং ধর্ষনের চেষ্টা করে। যেমন করেই হোক মেয়েটি ঘাস কাটার কাচিটি হাতের কাছে পেয়ে যায়। এবং ঐ অমানুষটির কাম তামাম করে দেয়। জয়তু হে নারী !!! যাই হোক, মার্কেটে আসা প্রত্যেকটি মানুষ সেদিন খুবই ভয় পেয়েছিলো।

৮.  প্রতারনা করার সাজা

২০১২ সালে এক তুর্কী নারী একটি কাটা মাথা শহরের মাঝের চৌরাস্তায় ছুড়ে মারে। সে পুলিশকে বলে যে, এই অমানুষটি তাকে কয়েক মাস ধরে শারীরিক সম্পর্ক করেছে, তারপর যখন সে প্রেগনেন্ট হয়েছে তখন তাকে এবর্শন করার জন্য চাপ দেয়েছে, এমনকি এমন হুমকিও দিছে যে যদি সে এবর্শন না করে তাহলে তার নগ্ন ছবি তার বাবা-মার কাছে পাঠিয়ে দিবে। সে তার ও তার সন্তানের সম্মান রক্ষা করতে সে এই অমানুষটিকে হত্যা করেছে। ও হা মাথা কাটার আগে সে এই অমানুষকে ১০ বার ছুরিকাঘাত করেছে। 

৯.  Boudica

তাকে নিয়ে অনেক মিথ প্রচলিত আছে। তার স্বামী ছিলো রোমান সম্রাটের খাস লোক যে একটি স্বাধীন ভুখন্ড চেয়েছিলো, যা রোমান সম্রাটের পছন্দ হয় নাই। ফলস্বরুপ তার স্বামীকে হত্যা করা হয় এবং তাকে ও তার মেয়েদের রেপ করা হয়। পরে তাদের শহর থেকে বিতারিত করা হয়।
রোমানদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ শুরু হলে তাকে লিডার বানানো হয়। কিন্তু পরাজয় তাদের বরন করতেই হয়। তারা পরাজয় বরন করে ঠিকই কিন্তু তার আগে তারা Londinium(বর্তমান লন্ডন) শহরটিকে পুরোপুরি আগুনে পুরিয়ে দেয় যার ফলে রোমানরা আর্থিক সংকটে পরে যায়।

প্রজন্মনিউজ২৪/এস ডি

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ