চবির আইন বিভাগে 'জাতীয় মুট কোর্ট' কর্মশালা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ০৭ জুলাই, ২০২৪ ১২:১০:৩৮

চবির আইন বিভাগে 'জাতীয় মুট কোর্ট' কর্মশালা অনুষ্ঠিত

চবি প্রতিনিধি: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) আইন বিভাগে 'জাতীয় মুট কোর্ট' কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোসাইটি ফর ক্রিটিকাল লিগ্যাল স্টাডিজের উদ্যোগে আয়োজিত এ কর্মশালায় মুট কোর্ট প্রতিযোগিতার বিভিন্ন প্রারম্ভিক ধারণা ও কৌশল এবং মৌলিক বিষয় সম্পর্কে আইন বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

গতকাল সকাল ১০ টায় ক্লাবের প্রকাশনা এবং পরিকল্পনা  সম্পাদক মেহেরু মাশতুরা রাহমানের সঞ্চালনায়  বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের গ্যালারি -১ এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

দিনব্যাপী এ কর্মশালা পরিচালনা করেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি মুট কোর্ট সোসাইটির কার্যনির্বাহি সদস্য রাফিদ আজাদ সৌমিক ও জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ল সোসাইটি মুটিং এন্ড ডিবেটিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সামিন ইয়াসার ইসলাম।

প্রথম সেশন পরিচালনা করেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি মুট কোর্ট সোসাইটির কার্যনির্বাহি সদস্য রাফিদ আজাদ সৌমিক। এসময় তিনি কীভাবে মুট কোর্ট প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে হয় তার মৌলিক ধারণা ব্যাখা করেন। পরে মেমোরিয়াল সাবমিশন, মুট কোর্টের বিভিন্ন পর্যায়, ওরাল এডভোকেসির বেসিক ধারণা, স্ক্রিপ্ট তৈরি ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করেন।

দ্বিতীয় সেশনে রিচার্স ফর রাইটিং মুট কোর্ট মেমোরিয়ালস নিয়ে আলোচনা করেন জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ল সোসাইটি মুটিং এন্ড ডিবেটিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সামিন ইয়াসার ইসলাম। এই সেশনে মুট কোর্টের অবজেক্টিভ, প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের টেকনিক্যাল বিষয়, ওরাল সাবমিশনের খুঁটিনাটি এবং মুটের বাস্তবিক ধারণা তুলে ধরেন তিনি।

সোসাইটি ফর ক্রিটিকাল লিগ্যাল স্টাডিজের চেয়ারপারসন মো. তাফহীমুল ইসলাম বলেন, মুট কোর্ট একটি ছায়া আদলত। একজন আইনের ছাত্রের জন্য এটি অত্যাবশ্যকীয় একটি প্রাকটিস। এই প্রাকটিস ছাড়া তার পক্ষে এডভোকেসি স্কিল বা লিগ্যাল রিসার্চ ডেভেলপিং স্কিল অর্জন করা কঠিন৷ দেখা যায় অধিকাংশ ভালো এডভোকেট বা জাজ যারা আছেন তারা বিতর্ক বা মুট কোর্ট প্রাকটিসের মাধ্যমে এ পর্যায়ে এসেছেন।

এ কর্মশালায় নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়, ফেনি বিশ্ববিদ্যালয়, আন্তর্জাতিক ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ইন্ডিপেন্ডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়, পোর্ট সিটি ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ও চবিসহ মোট ৬৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন।

উল্লেখ্য, সোসাইটি ফর ক্রিটিকাল লিগ্যাল স্টাডিজ (এসসিএলএস) চবির আইন বিভাগের শিক্ষার্থীদের দ্বারা পরিচালিত একটি সংগঠন।  বর্তমানে এই ক্লাবের মডারেটর হিসেবে আছেন আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. রকিবা নবী। এই ক্লাবের যাত্রা শুরু হয় ২০১৬ সালে ইয়ং ল'ইয়ার অব চিটাগং ইউনিভার্সিটি (ওয়াইএলসিইউ) নামে। পরে কার্যনির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় সোসাইটি ফর ক্রিটিকাল লিগ্যাল স্টাডিজ (এসসিএলএস)। এই ক্লাবের লক্ষ্য হলো বিভিন্ন জাতীয় প্রতিযোগিতার আয়োজন করে আইনের শিক্ষার্থীদের বিকাশ। এসসিএলএসের সিগনেচার প্রোগ্রাম হলো 'জাতীয় আইন অলিম্পিয়াড।' এছাড়াও, ২০১৮ সাল থেকে এসসিএলএস আইন পর্যালোচনা (একটি ছাত্র সম্পাদিত জার্নাল অফ ল) প্রকাশ করছে। এছাড়াও  'অধ্যাপক খবির উদ্দিন জাতীয় মুট কোর্ট প্রতিযোগিতা' এবং অন্যান্য বিতর্ক প্রতিযোগিতা, গবেষণা সম্মেলনসহ অনেক আকর্ষণীয় কর্মশালার আয়োজন করে আসছে এই ক্লাব।



প্রজন্মনিউজ২/মুশ
 

এ সম্পর্কিত খবর

২১, ২৩ ও ২৫ জুলাইয়ের এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত

ছাত্রলীগ-যুবলীগকে ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ ঘোষণার দাবি প্রসঙ্গে যা বললেন মার্কিন সরকারের মূখপাত্র

সাময়িকভাবে মোবাইল ইন্টারনেট বন্ধ করা হয়েছে : পলক

কোটা ব্যবস্থার যৌক্তিক সমাধান চায় চবি শিক্ষক সমিতি

আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় বসছে সরকার, বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন

হল ত্যাগের সময় ছাত্রলীগের নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা

নোবিপ্রবি বন্ধ ঘোষণা, হল না ছাড়তে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

সিলেটে ছাত্রদলের সঙ্গে পুলিশের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরণ

ছাত্রদলের সাবেক সভাপতিসহ ৭ জন রিমান্ডে

জবি ক্যাম্পাস আন্দোলনকারীদের দখলে, মাঠে নেই ছাত্রলীগ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ