তালের শাঁস খাবেন কেন ?

প্রকাশিত: ১৫ জুলাই, ২০২৩ ১১:৩৪:২০ || পরিবর্তিত: ১৫ জুলাই, ২০২৩ ১১:৩৪:২০

তালের শাঁস খাবেন কেন ?

গ্রাম বাংলার একটি পরিচিত গাছ  তার নাম হলো তাল গাছ।মূলত তাল ফলের জন্য তাল গাছ বিখ্যাত। গ্রীষ্মের সময় কচি অবস্থায় তালের শাঁস ব্যাপক চাহিদা গ্রাম থেকে শহর পর্যন্ত। তালের শাঁস মানুষের শরীরের  জন্য উপকারি। গরমে তালের শাঁস খেলে বিভিন্ন  রোগ থেকে  মুক্তি  পাওয়া যায়।সেই সঙ্গে বাড়ে শরিরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

* কচি তালের শাঁসে পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা বিস্তারিত:

*তালের শাঁসের পুষ্টিগুণ:
তালের শাঁসের প্রতি ১০০ গ্রাম তালের শাঁসে রয়েছে ৮৭ কিলোক্যালরি,  জলীয় অংশ ৮৭.৬ গ্রাম, আমিষ ৮ গ্রাম, ফ্যাট ১ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেটস ১০.৯ গ্রাম, খাদ্যআঁশ ১ গ্রাম, , ফসফরাস ৩০ মিলিগ্রাম, লৌহ ১ মিলিগ্রাম, থায়ামিন .০৪ গ্রাম, রিবোফাভিন .০২ মিলিগ্রাম, নিয়াসিন .৩ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি ৫ মিলিগ্রাম,ক্যালসিয়াম ২৭ মিলিগ্রাম ৮ মিলিগ্রাম
 ক্যালসিয়াম।

*তালের শাঁসের স্বাস্থ্য উপকারিতা হলো:-

১.তালের শাঁস প্রাকৃতিক ভাবে দেহকে রাখে ক্লান্তিহীন।

২. গরমের তালের শাঁসে থাকা জলীয় অংশ শরিরের  পানিশূন্যতা দূর করে।

৩.খাবারে রুচি বাড়ায়।

৪. তালে থাকা ভিটামিন দৃষ্টিশক্তিকে উন্নত করে।

৫. তালে থাকা উপকারী উপদান  ত্বকের  রোগ দূর করতে  সক্ষম।

৬. তালের শাঁস রক্তশূন্যতা দূরীকরণে বিশেষ  ভূমিকা রাখে।

৭.তালের শাঁসে থাকা ক্যালসিয়াম হাঁড় গঠনে  খুবই গুরুত্বপূর্ণ ।

৮.  তালে থাকা এন্টি অক্সিডেন্ট শরীরকে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়।

৯.তালে থাকা ভিটামিন সি ও বি কমপ্লেক্স দেহের পানি পানের তৃপ্তি বাড়িয়ে দেয়।

১০. তাল খাবারের বিস্বাদ দূর করতে  গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

১১.তালের শাঁস লিভারের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে।

পরিশেষে,  
আপনারা মৌসুমি ফল বেশি বেশি খাবেন। এতে আপনাদের শরীর সুস্থ থাকবে এবং খাবারের চাহিদা বাড়বে।

লিখেছেন: মাহির হাসান


প্রজন্মনিউজ২৪/এমএইচ
 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ