ঢাবির ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা চেয়ে আন্দোলন শিক্ষার্থীদের

প্রকাশিত: ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২ ১১:৩৪:৪৭ || পরিবর্তিত: ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২ ১১:৩৪:৪৭

ঢাবির ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা চেয়ে আন্দোলন শিক্ষার্থীদের

ঢাবির সাবেক শিক্ষকের গাড়িতে চাপা পড়ে রুবিনা মারা যাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিরাপদ ক্যাম্পাস চেয়ে আন্দোলন করেন ঢাবির শিক্ষার্থীরা। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি চত্তরে আন্দোলন করে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জাহিয়া আফরিন বলেন,আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী না তবুও আজ আমি এখানে একজন সাধারন নাগরিক হিসেবে রুবিনা আন্টির হত্যার বিচার চাইতে আসছি।

তিনি বলেন ঘটনা টি আমি সামনে থেকে দেখেছি।গাড়িটা কোনো ভাবেই থামছিল না। আমার বন্ধুরা ও রুবিনা আন্টির দেবর গাড়িটা থামালে সাধারণ জনগন গাড়ির ড্রাইভার কে মারছিল। কারো মনে হচ্ছিল না যে আগে গাড়ির নিচে থেকে রুবিনা আন্টিকে বের করতে হবে।আমি ও আমার বন্ধুরা গিয়ে রুবিনা আন্টিকে বের করি গাড়ির নিচে থেকে।তার পা পড়ে যাচ্ছিল পরে আমার ওড়না দিয়ে বেঁধে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যায় ভ্যানে করে।সেখানে তিনি আধা ঘণ্টা পরে মারা যান।

আফরিন বলেন এ আমরা কোন কুৎসিত সমাজে বাস করি যেখানে একটা মানুষ মৃত্যু শয্যায় তাকে বাঁচানোর চেষ্টা না করে মানুষ ভিডিও করা এবং সোশাল মিডিয়া নিয়ে ব্যস্ত।সবাই যদি একটু তারাতাড়ি করে মেডিকেলে নিয়ে যেত তাহলে অন্য কিছু হতে পারতো।

তিনি আরোও বলেন রুবিনা আন্টির স্বামী মারা গেছেন কয়েক মাসে আগে তার ছেলে টা এখন আসহায়। আমি চাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে থেকে তার দায়ভার গ্রহন করতে হবে। আর এই হত্যার বিচার চাই  এমন বিচার করতে হবে যেন অন্য কেউ এমন কাজ করার আগে তার বুক কেঁপে উঠবে।

ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা। আর এর দায় বদ্ধতা বিআরটিএ,পুলিশ, ঢাবি কর্তৃপক্ষ এবং প্রধানমন্ত্রীর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্টবিঙ্গানের ছাত্র অয়ন বলেন, এই হত্যার পিছনে সম্পূর্ণভাবে দায়ি ঢাবি কর্তৃপক্ষ। এই ঘটনা আগে ও ঘটেছে ব্যবস্তা নিবে বলে আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায় না। ওই ড্রাইভারের শাস্তি চাই কারন এটা হত্যা।ধাক্কা লাগার পর উনি যদি না পালিয়ে থামতেন তাহলো হয়তো আমাদের বোনটা বেঁচে থাকতো। 


প্রজন্মনিউজ২৪/সাঈদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ