পরিবহন ধর্মঘটে অচল রাজশাহী

প্রকাশিত: ০১ ডিসেম্বর, ২০২২ ১২:৪৪:৪৬

পরিবহন ধর্মঘটে অচল রাজশাহী

১০ দফা দাবিতে রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট চলছে। বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সকাল ৬টা থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়। এর আগে বুধবার (৩০ নভেম্বর) অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট ডেকেছে পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ।

এদিকে সকাল থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়। এতে রাজশাহী থেকে আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। রাজশাহী থেকে কোনো বাস যেমন ছেড়ে যাচ্ছে না, তেমনি বাইরের জেলা থেকেও কোনো যাত্রীবাহী পরিবহন আসছে না। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। যাত্রীরা জানিয়েছেন, বেশি ভাড়া দিয়ে তিন চাকার বাহনে গন্তব্যে যেতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।

রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি সাফকাত মঞ্জুর জানান, হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে মহাসড়ক ও আঞ্চলিক মহাসড়কে থ্রি-হুইলার চলাচল করছে। এগুলো বন্ধসহ ১০ দাবি রয়েছে। সাফকাত মঞ্জুর বলেন, দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

১০ দফা দাবি হলো: সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ সংশোধন, হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে মহাসড়ক বা আঞ্চলিক মহাসড়কে থ্রি-হুইলার (নছিমন, করিমন, ভটভটি, সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ইত্যাদি) চলাচল বন্ধ, জ্বালানি তেল ও যন্ত্রাংশের মূল্য হ্রাস, করোনাকালে গাড়ি চলাচল না করায় সে সময়ের ট্যাক্স মওকুফ করতে হবে, সব ধরনের সরকারি পাওনাদির (ট্যাক্স-টোকেন, ফিটনেস) অস্বাভাবিক বৃদ্ধি বন্ধ, চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স-সংক্রান্ত নানাবিধ জটিলতা নিরসন, পরিবহনের যাবতীয় কাগজ হালনাগাদ বা সঠিক থাকার পরও নানাবিধ পুলিশি হয়রানি বন্ধ, উপজেলা পর্যায়ে বিআরটিসি চলাচল দ্রুত বন্ধ , মহাসড়কে হাটবাজার আয়োজন বা পরিচালনা করা যাবে না এবং চলমান হাটবাজার অতি দ্রুত উচ্ছেদ করতে হবে, যাত্রী ওঠানামার জন্য পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে এবং প্রত্যেক জেলায় ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ ও ট্রাক ওভারলোড বন্ধ করতে হবে।

এর আগে, গত শনিবার বিভাগীয় পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আলটিমেটাম দিয়ে ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়। বিভাগীয় কমিশনারসহ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ে দাবি পূরণে স্মারকলিপি দেয়া হয়। সেগুলো বাস্তবায়ন না হওয়ায় ধর্মঘট শুরু করে। প্রশাসন জানিয়েছে, সমস্যা নিরসনে তারা দ্রুতই পদক্ষেপ নেবে।


প্রজন্মনিউজ২৪/এ কে
 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ