সুরখালী রাস্তার কাজে অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ

প্রকাশিত: ২৬ নভেম্বর, ২০২২ ১২:২৯:২১

সুরখালী রাস্তার কাজে অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ

আল-আমিন গোলদার খুলনা প্রতিনিধিঃ সরকারি রাস্তা নির্মানে চলছে হরিলুট। আর এই হরিলুটের অন্তরালে রয়েছে এক ইউপি সদস্যা। তথ্য অনুসন্ধানে গিয়ে যায়,সরকারি এই রাস্তা নির্মাণকাজের নানাবিধ অনিয়ম দূর্নীতি খবর। 

সূত্রে প্রকাশ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী অধিদপ্তর ও বটিয়াঘাটা উপজেলা পরিষদ উন্নয়ন তহবিলের আওতায় খুলনা জেলার বটিয়াঘাটা উপজেলার সুরখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তা ইটের সলিং এর উন্নয়ন মুলক কাজ শুরু হয়েছে। রাস্তায় যে সব ইট ও মালামাল ব‍্যবহার করা হচ্ছে তা খুবই নিম্ন মানের। সিডিউল মোতাবেক যে ইট দেওয়ার কথা তা না দিয়ে, আমা ও নাম্বার বিহীন ইট দিয়ে ঠিকাদার মোঃ এলিউল ইসলাম রাস্তায় সোলিং এর কাজ করছেন। 

উক্ত কাজে সরকারি সিডিউল মোতাবেক খরচ ধরা হয়েছে প্রাক্কলিত মূল্য ১৯ লাক্ষ টাকা। কাজের চুক্তিমূল‍্য ১৮ লাক্ষ ৫ হাজার টাকা। কাজটি শুরু করার কথা ছিলো ৭ ডিসেম্বর ২০২১ সালে। কাজটি শেষ করার কথা ৬ ডিসেম্বর ২০২২ তারিখ এর মধ্যে। কিন্তু দুঃখের বিষয় ঠিকাদার কাজ শুরু করেন চলতি বছর থেকে। সিডিউল মোতাবেক কাজটি প্রকল্প সু- সম্পন্ন করতে হবে চুক্তি সম্পাদনের তারিখ হতে ২৮ দিনের মধ্যে। যথা সময় কাজটি শুরু না করলে ও কাজে ব‍্যর্থ হলে কোনরুপ পত্র যোগাযোগ ব‍্যতিরেকেই চুক্তিপত্র বাতিল বলে গন‍্যহবে। কিন্তু খোজখবর নিয়ে যানা যায় ঠিকাদার কাজটি যথা সময় করেননি।অভিযোগ রয়েছে,বটিয়াঘাটা সাবেক উপজেলা প্রকৌশলী প্রসেনজিৎ চক্রবর্তীর অনিয়ম দূর্নীতির কারনে কাজটি অনেক দেরিতে করতে হয়েছে ঠিকাদারকে। 

সুরখালী ইউনিয়নে যে সব স্থানে কাজ হচ্ছে তা হলো গাওঘরা গ্রামের সরদার বাড়ি মোজাফফর এর বাড়ি হতে কাদের ও হাবিউল্লাহর বাড়ি অভিমুখী পযর্ন্ত। গাওঘরা পূর্ব পাড়া কামরুল শেখের বাড়ি হতে মোহাম্মদ শেখ এর বাড়ি অভিমুখী এবং মসলেম মল্লিকের বাড়ি হতে উত্তর দিকে জামান শেখের বাড়ি অভিমুখী,গাওঘরা ছায়দার বিশ্বাসের বাড়ি হতে পূর্বদিকে রেজাউল বিশ্বাসের বাড়ি অভিমুখী, রাস্তা ও আতিয়ার মোল্লার বাড়ি হতে উত্তর দিকে নিছার সরদার এর বাড়ি অভিমুখী রাস্তায় কল‍্যাণশ্রী পিচের রাস্তা হতে নিমু পরামানিকের বাড়ি ভায়া চিত্ত রঞ্জনের বাড়ি অভিমুখী ইটের সোলিং রাস্তা সংস্কার, কল‍্যাণশ্রী গ্রামের ছত্রবিলা দাউদ জমাদ্দারের বাড়ি হতে ছত্রবিলা জামে মজজিদ অভিমুখী এবং ছত্রবিলা রওশান জমাদ্দারের বাড়ি হতে ছত্রবিলা জামে মসজিদ অভিমুখী রাস্তায় ইটের সোলিং, ভগবতীপুর গ্রামের এইচবিবি রাস্তা হতে ভগবতীপুর শিতলা মন্দির অভিমুখী ইটের সোলিং রাস্তা সংস্কার ও উন্নয়ন সুরখালী গ্রামের সৈয়দ আলী খার বাড়ি হতে মোঃ আমিনুল ইসলাম এর বাড়ি অভিমুখী, ভগবতীপুর গ্রামের রাজু মন্ডলের বাড়ির সম্মুখীন হতে ভদ্র এর বাড়ি অভিমুখী, সুন্দরমহল পশ্চিম ওয়াপদার নীচ হতে রুহুল আমিন ফকিরের বাড়ি অভিমুখী পযর্ন্ত।
 

স্থানীয় এলাকাবাসী অভিলম্বে কাজটি বন্ধ ও তদন্ত পৃর্বক দুর্নীতিবাজ ঠিকাদার এবং কাজের সাথে জড়িত ব‍্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব‍্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবি জানান। 

এলাকার দিলীপ সরদার,অমল গোলদার,বিপন্ন সরকার, নুরুজ্জামান সহ অনেকে অভিযোগ করে বলেন,ভাই কি বলব বলেন, কাজে যে অনিয়ম দূর্নীতি হচ্ছে কে দেখবে।কাকে বলব। বলেও কোন কাজ হয়না। নাম্বার বিহীন ইট দিয়ে চলছে রাস্তার কাজ। 

২০২১-২২ অর্থবছরে উপজেলা পরিষদ উন্নয়ন তহবিলের আওতায় কাজটি। কাজটির ঠিকাদার হলেন,খুলনার তেরখাদা উপজেলার মেসার্স মাষ্টার এন্টারপ্রাইজ এর প্রোপাইটর মোঃ এলিউল ইসলাম। তিনি বলেন,কাজটি আমার। কিন্তু কাজটি আমার নিকট থেকে নিয়েছেন সুরখালী ইউপি সদস্যা রত্না অধিকারী। আমি কখনো কাজের সাইটে যাইনি। তবে রত্নাকে বলেছি কাজটি যেন অনিয়ম না হয়। আমি কাজের অনিয়ম দূর্নীতির কথা শুনেছি। বিষয়টি রত্নার সাথে আমি কথা বলছি। আপনারা নিউজটি করবেন না। এতে আমার ভাবমূর্তি খুন্ন হবে। তিনি আরো বলেন,ইউপি সদস্য রত্নার সাথে আমি লিখিত কোন চুক্তিপত্র করিনি। বিশ্বাসের সাথে কাজটি তাকে দিয়েছি। 

ইউপি সদস্য রত্না অধিকারী বলেন,আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হচ্ছে সেটি সঠিক না। আমি উক্ত কাজের সাথে জড়িত না। 

সুরখালী পরিষদের ইউপি সদস্য মোঃ আবুল কালাম হাওলাদার বলেন,উক্ত কাজের ভিতর থেকে আমি কিছু কাজ করেছি। এখনও টাকা পাইনি। আমার সাইটে কাজে কোন অনিয়ম হয়নি। ভালো মানের ইট দিয়ে কাজ করেছি। ইউপি সদস্য রত্নার কাজ থেকে কাজটি নিয়েছিলাম। 

বটিয়াঘাটা উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) প্রকৌঃ মোঃ রেজওয়ানুল রহমান বলেন,কাজের মান ভালো না হলে বা কাজে কোন প্রকার অভিযোগ পেলে ইটের ল‍্যাবরেটরী পরিক্ষা করে আইনগত ব‍্যবস্থা গ্রহন করা হবে। বিষয়টি আমি ঠিকাদারের সাথে কথা বলব।


প্রজন্মনিউজ২৪/এ কে

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ