১০ বছরেও হয়নি বিচার

প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর, ২০২২ ১০:৪৯:০১

১০ বছরেও হয়নি বিচার

সাকিবুর রহমান সাভার প্রতিনিধিঃ সাভারের আশুলিয়ায় তাজরীন দুর্ঘটনার দশ বছর পূর্তিতে নিহত শ্রমিকদের স্মরণে পুড়ে যাওয়া ভবনের সামনে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করেছে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন ও সামাজিক সংগঠনসহ শ্রমিক এবং আহত-নিহদের স্বজনরা।

২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নের নিশ্চিতপুর এলাকায় তাজরীন ফ্যাশন গার্মেন্টস কারখানায় ভয়াবহ আগ্নিকান্ড ঘটে। সেদিন ১১৪ জন নিরিহ নারী ও পুরুষ শ্রমিক আগুনে পুড়ে মারা যান। আহত হন দুই শতাধিক শ্রমিক। আহতদের অনেকে এখনও মানবেতর জীবন যাপন করছেন পঙ্গ হয়ে ও বিভিন্ন শারীরিক জটিলতা নিয়ে।

ভয়াবহ সেই দুর্ঘটনার দশ বছর উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই তাজরীন গার্মেন্টসের সামনের নির্মিত অস্থায়ী বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা বিবেদন করেন নিহতের স্বজন, আহত শ্রমিক ও বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা। পরে পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণের দাবিতে সেখানে তারা বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন।

শ্রদ্ধা জানাতে আসা বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির সভাপতি তাসলিমা আখতার বলেন, আমাদের শ্লোগান ছিল ‘মৃতদের স্মরণ করো, জীবিতদের জন্য লড়াই করো’, দোষীদের শাস্তি ও ক্ষতিপূরণ আইন বদল ও ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসন চাই। এসব দাবি নিয়ে গত দশ দিন ধরে কর্মসূচী পালন করেছি। দুর্ঘটনার ১০ বছর পার হলেও মামলায় দীর্ঘসূত্রিতা, বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও স্বজনপ্রীতির দোষে আজও শাস্তি হয়নি কারখানার মালিক দেলোয়ার হোসেনসহ অন্যান্য দোষীদের। ক্ষতিগ্রস্থদের হয়নি যথাযথ পুনর্বাসন।

এসময় দোষীদের শাস্তি, ক্ষতিপূরণ আইনের পরিবর্তন ও ক্ষতিগ্রস্থদের যথাযথ পুর্নবাসন দাবি করা হয়। একই সাথে জীবিত শ্রমিকদের জন্য বাঁচার মতো মজুরি দাবি করেন শ্রমিক নেতারা।

উপস্থিত দুর্ঘটনায় আহত শ্রমিক, নিহতের স্বজনরাও ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি তাজরীন কারখানার মালিক দেলোয়ারের ফাঁসির জোর দাবি জানান। এসময় অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন।

নিহত শ্রমিকদের ছবি তাজরীনের মূল ফটকে টানানো হয় শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে। পুড়ে যাওয়া তাজরীন গার্মেন্টসের বহুতল ভবনটি এখনও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

এদিকে যেকোন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে তারজীন কারখানার সামনে সারাদিন অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল।


প্রজন্মনিউজ২৪/এ কে

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ