যে সকল গুনাহের উপর লা‘নত করা হয়েছে

প্রকাশিত: ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০১:২৫:৫৬

 

মিল্লাত প্রতিনিধি ঃ

যে সকল গুনাহের উপর লানত করা হয়েছে তা নিম্নে তুলে ধরা হলোঃ-

১. যে স্ত্রী বা পুরুষ সূঁচের দ্বারা নিজ হাতে নিজের শরীর খোদায় বা অন্যের দ্বারা তা অঙ্কিত করায় তার প্রতি আল্লাহর লানত। (বুখারী: হাদীস নং ৫৯৩৭, মুসলিম: হাদীস নং ২১২৪)
২. যে স্ত্রীলোক নিজ হাতে বা অন্য কারো দ্বারা অন্যের চুল নিজের চুলের সঙ্গে মিশিয়ে নিজের চুলের পরিমাণ বাড়ায় তার উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন। (বুখারী: হাদীস নং ৫৯৩৭, মুসলিম: হাদীস নং ২১২৪)

৩. যে ব্যক্তি নিজে সূদ খায় বা (বিনা অপরাগতায়) অন্যকে সূদ খাওয়ায়, যে সূদের দলীলে বা কারবারে স্বাক্ষী হয়, যে সূদের দলীল লেখে তাদের সকলের উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন। (মুসলিম: হাদীস নং ১৫৯৮)

৪. যে নিজ স্ত্রীকে তিন তালাক দিয়ে হীলা-বাহানা করে হারামকে হালাল করার জন্য সে স্ত্রীকে অন্য কারো নিকট এই শর্তে বিবাহ দেয় যে, বিবাহের পর সহবাস করে তালাক দিতে হবে এবং দ্বিতীয় ব্যক্তি এরূপ শর্ত স্বীকার করে বিবাহ করে উভয় ব্যক্তির উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন। (তিরমিযী শরীফ: হাদীস নং ১১২১)

৫. রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন: যে ব্যক্তি ডিম বা রশি ইত্যাদি ক্ষুদ্র জিনিষও চুরি করে আল্লাহ তা‘আলা তার হাত কাটার হুকুম দিয়েছেন এবং আল্লাহ তা‘আলা তার উপর লা‘নত করেছেন। (বুখারী: হাদীস নং ৬৭৯৯, মুসলিম: হাদীস নং ১৬৮৭)

৬. যে মদ তৈরী করে, যার জন্য তৈরী করে, যে মদ পান করে, যে মদ পান করায়, যে মদ বিক্রি করে, যে মদ বিক্রি করে পয়সা খায়, যে মদ বহন করে আনে, যার জন্য বহন করে আনা হয়, যে মদ দান করে, তাদের সকলের উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন। (তিরমিযী: হাদীস নং ১২৯৮)

৭. যে পিতা-মাতাকে লা‘নত করে আল্লাহ তা‘আলা তাদের উপর লা‘নত করেন। (মুসলিম: হা: নং ১৯৭৮)

৮. যে পিতা-মাতাকে গালি দেয় বা সমালোচনা করে আল্লাহ তা‘আলা তার উপর লা‘নত করেন। (মুসনাদে আহমদ: হা: নং ২৮২০)

৯. যে ব্যক্তি তীর বা ধনুকের লক্ষ্য ঠিক করার জন্য কোন প্রাণীকে কষ্ট দিয়ে তাকে নিশানা বানায় তার উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন।

১০. যে পুরুষ স্ত্রীলোকের সুরত ও বেশ-ভুষা বা যে স্ত্রীলোক পুরুষের সূরত বেশ-ভুষা ধারণ করে তার উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন।

১১. যে এক আল্লাহ ব্যতীত অন্য কারো নামে প্রাণী যবাহ করে আল্লাহ তা‘আলা তার উপর লা‘নত করেছেন। (মুসলিম: হা: নং ১৭৮৯)

১২. যে ইসলাম ধর্মের বাহিরের কোন কথা ইসলাম ধর্মের ভিতরে দাখিল করে এবং যে এমন ব্যক্তির সহায়তা করে আল্লাহ তা‘আলা, ফেরেশতা এবং মানব সকলেই তার উপর অভিসম্পাত করে। (আবূ দাউদ: হা: নং ৪৫১৯)

১৩. যে ব্যক্তি কোন জীব-জন্তুর ছবি অঙ্কিত করে তার উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন। (বুখারী: হা: নং ২০৮৬)

১৪. যে লুত আলাইহিস সালামের কওমের পাপকার্যে অর্থাৎ সমকামিতায় লিপ্ত হয় সে অভিশপ্ত। (মুসনাদে আহমাদ: হা: নং ১৮৮০)

১৫. যে কোন জীবের সাথে কু-কর্ম করে সে অভিশপ্ত। (প্রাগুক্ত)

১৬. যে ব্যক্তি কোন জীবের মুখের উপর লোহা গরম করে দাগ দিবে অথবা তার মুখের উপর আঘাত করবে সে অভিশপ্ত। (আবূ দাউদ: হা: নং ২৫৬৪)

১৭. যে ব্যক্তি কোন মুসলমানের সহিত ধোঁকাবাজী করে বা জ্ঞাতসারে কোন মুসলমানের ক্ষতি করে সে অভিশপ্ত। (তিরমিযী: হা: নং ১৯৪৬)

১৮. যে সব স্ত্রীলোক মাযারে যাবে এবং যারা মাযারে গিয়ে সিজদা করবে বা তথায় বাতি জ্বালাবে তাদের উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন। (তিরমিযী: হা: নং ৩২০)

১৯. যে লোক কারো স্ত্রীকে তার স্বামীর বিরুদ্ধে উস্কানী দিয়ে খাড়া করাবে (বা চাকর-গোলামকে তার মুনিবের বিরুদ্ধে বা শাগরেদকে উস্তাদের বিরুদ্ধে) কুমন্ত্রণা দিয়ে উত্তেজিত করবে রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন সে আমার দলভুক্ত নয়। (আবূ দাউদ: হা: নং ২১৭৫)

২০. যে পুরুষ তার স্ত্রীর পশ্চাতদ্বারে সহবাস করবে সে অভিশপ্ত। (আবূ দাউদ: হা: নং ২১৬২)

২১. যে স্ত্রী তার স্বামীর উপর রাগ করে স্বামী থেকে পৃথক রাত্রিযাপন করে তার উপর ফেরেশতাগণ ভোর পর্যন্ত লা‘নত করতে থাকেন। (মুসলিম হা: নং ১৪৩৬)

২২. যে ব্যক্তি পূর্ব পুরুষের বংশ ছেড়ে অন্য বংশের পরিচয় দিবে (যেমন সায়্যিদ বংশ নয় অথচ সায়্যিদ বলে পরিচয় দিবে) তার উপর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা‘নত করেছেন। (তিরমিযী: হা: নং ২১৬৭)

২৩. রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: যে ব্যক্তি কোন মুসলমানের দিকে (হাসি, বিদ্রূপ বা ভয় দেখানোর উদ্দেশ্যে) অস্ত্র দ্বারা ইশারা করে ফেরেশতাগণ তার উপর লা‘নত করেন। (তিরমিযী: হা: নং ২১৬২)

২৪. রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: যদি তোমরা কাউকে আমার সাহাবীদেরকে গালি দিতে বা সমালোচনা করতে দেখ তখন বলবে, তোমাদের কু-কাজের জন্য তোমাদের উপর আল্লাহ তা‘আলার লা‘নত হোক। (তিরমিযী: হা: নং ৩৮৭৫)

২৫. আল্লাহপাক বলেন: যারা আল্লাহ এবং আল্লাহর রাসূলকে কষ্ট দিবে আল্লাহ তা‘আলা তাদেরকে দুনিয়া এবং আখিরাতে অভিসম্পাত করেন। (সূরায়ে আহযাব: ৫৭)

২৬. যে লোক ইনসাফের রাজত্বের মধ্যে জুলুম ও অত্যাচার করে এবং শান্তির দেশের মধ্যে অশান্তি আনয়ন করে বা আত্মীয়-স্বজন ও অন্যান্যদেরকে কষ্ট দেয় আল্লাহ তা‘আলা তার উপর লা‘নত করেন। (সূরায়ে মুহাম্মদ: ২২-২৩)

২৭. যে ব্যক্তি আল্লাহর কিতাব এবং আল্লাহর হুকুম ও আইন জানা সত্বেও তা গোপন করে রাখে আল্লাহ এবং অভিসম্পাতকারীগণ তার উপর অভিসম্পাত করে। (সূরায়ে বাকারা:১৫৯)

২৮. যে ব্যক্তি ঈমানদার সতী মহিলার উপর মিথ্যা অপবাদ লাগাবে অথচ সে এ বিষয়ে অবগতও নয়, সে দুনিয়া ও আখিরাতে অভিশপ্ত হবে। (সূরায়ে নূর: ২৩)

২৯. যে ব্যক্তি মুসলমান অপেক্ষা কাফেরদেরকে বেশী ভালবাসবে এবং মুসলমানদের বিরুদ্ধে কাফেরদের সহযোগিতা করবে তার উপর লা‘নত। (তিরমিযী শরীফ: হা: নং)

৩০. রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: যে ঘুষ খাবে, যে বিনা অপারগতায় ঘুষ দিবে, যে ঘুষের ব্যবস্থা করবে সকলের উপর আল্লাহ তা‘আলার লা‘নত। (মুসনাদে আহমাদ হা: নং ৬৫৪০)

৩১. হযরত রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: ছয় প্রকার লোককে আমি লা‘নত করেছি এবং সকল নবীগণ আ. লা‘নত করেছেন। অথচ সকল নবীদের দু’আ ও বদ দু’আ কবূল হয়ে থাকে।  যথা:
 
১. যারা বিকৃত করে কুরআনের অর্থ করবে।

২. যারা আল্লাহর সৃষ্টি তাকদীরকে অবিশ্বাস করবে।

৩. যারা আল্লাহর হারাম করা জিনিষকে হালাল করবে।

৪. যারা জোর জবরদস্তী করে নেতৃত্ব ও কর্তৃত্বের শক্তি অর্জন করত: দুষ্ট পাপী লোকদের শ্রেষ্ঠত্ব দান করে নেতৃত্বের আসনে বসাবে।

৫. যারা আমার (রূহানী ও জিসমানী) বংশধরদের অবমাননা করবে।

৬. যারা আমার উম্মত হয়ে আমার সুন্নাত (আমার প্রবর্তিত নীতি, আমার প্রদর্শিত পথ এবং আমার প্রকৃত আদর্শ) পরিত্যাগ করে ভিন্ন আদর্শ, ভিন্ন পথ ও ভিন্ন নীতি অনুসরণ করবে। (তিরমিযী: হা: নং ২১৫৪)

৩২. রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার উপরও লা‘নত করেছেন (অর্থাৎ, আল্লাহ যাতে তাদের সাহায্য ও সহানুভূতি না করেন এ জন্য বদ দু’আ ও অভিশাপ দিয়েছেন) যে আল্লাহর ডাক (হাইয়্যা ‘আলাস সলাহ, হাইয়্যা ‘আলাল ফালাহ) (আসো তোমরা জীবনের স্বার্থকতার দিকে, নামাযের জামা‘আতের দিকে) শ্রবণ সত্ত্বেও আদেশ পালন করেনি। অর্থাৎ শরীয়ত সম্মত উজর না থাকার সত্ত্বেও জামা‘আতে উপস্থিত হয়নি।

৩৩. রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: আল্লাহর লা‘নত তাদের উপর যারা জমিনের সীমানা বা সীমানার খুঁটি পরিবর্তন করে। (মুসলিম: হা: নং ১৯৭৮)

লেখকঃ - মুফতী মনসূরুল হক দা. বা.
প্রধান মুফতী ও শাইখুল হাদীস,
জামিয়া রহমানিয়া, মুহাম্মাদপুর,ঢাকা।


প্রজন্মনিউজ২৪/আঃ রহমান


    
    
    

 

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ