নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে রাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ১৭ অগাস্ট, ২০২২ ০৬:৪০:২১ || পরিবর্তিত: ১৭ অগাস্ট, ২০২২ ০৬:৪০:২১

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে রাবিতে মানববন্ধন

রাবি প্রতিনিধি: জ্বালানী তেলের নজিরবিহীন মূল্যবৃদ্ধি, বিদ্যুতের অস্বাভাবিক লোডশেডিং, গণপরিবহনের ভাড়া ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের অসহনীয় মূল্যবৃদ্ধি এবং ভোলায় পুলিশের গুলিতে নূরে আলম ও আব্দুর রহিম'র নির্মম হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (১৭আগস্ট) সকাল সাড়ে দশটার দিকে 'জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের' ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়। 

মানববন্ধন থেকে অবিলম্বে তেল সহ অন্যান্য দ্রব্যমূল্য কমিয়ে জনগণকে অর্থনৈতিক দুরবস্থা থেকে রক্ষা এবং একই সাথে জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানান বক্তারা।

এসময়, বর্তমান সরকার গণতান্ত্রিক সরকার নয় দাবি করে জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক নজরুল ইসলাম বলেন, তেলের দাম হঠাৎ বাড়িয়ে এই কয়েকদিনেই তেল থেকে ১৫৭ কোটি টাকা মুনাফা অর্জন করেছে সরকার। যদি গণতান্ত্রিক সরকার হতো, তাহলে জনগণকে এই বিপদে ফেলতে পারতো না। জনগণকে না খাইয়ে রেখে তেলের দাম বাড়াতো না। তাই, সরকারকে এই মানববন্ধন থেকে বলতে চাই অবিলম্বে তেল সহ অন্যান্য দ্রব্যমূল্য কমিয়ে জনগণকে অর্থনৈতিক দুরবস্থা থেকে রক্ষা করুন এবং একই সাথে জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিন।

সরকার মানুষের উপার্জন না বাড়িয়ে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়েছে উল্লেখ করে আইবিএ এর অধ্যাপক হাসানাত আলী বলেন, আজ একটি ডিম ২০ টাকায় খেতে হয়। সরকার জ্বালানি তেলের দাম এমন বাড়িয়েছে যার জন্য দেখা গেছে দেশের বিভিন্ন স্থানে সাইকেল ভাড়ায় চালিত হচ্ছে। পরিবহন খরচ সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সব দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে সরকার। কিন্তু মানুষের উপার্জন তো বাড়েনি। চাকরিতে বেতন বাড়েনি। সরকার তার আমলাদের কখনো পুকুর কাটার নামে বিদেশ ভ্রমন, কখনো খিচুড়ি রান্না করতে বিদেশ গমন করিয়ে দেশের জনগণের কষ্টার্জিত অর্থ ব্যয় করেছে। বিনিময়ে সাধারণ জনগণের ভোগান্তি বাড়িয়েছে।

তিনি আরো বলেন, দেশ পুষ্টিহীনতায় ভুগছে। মেধার বিকাশ ঘটছে না। অন্যান্য দেশ যখন চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের নেতৃত্ব গঠন হচ্ছে, তখন আমাদের দেশের মানুষ তিনবেলা খাবার জোটাতে হিমশিম খাচ্ছে। অথচ দেশের মানুষের এই পরিস্থিতিতে আমাদের মন্ত্রী মহোদয়রা মশকরা করছে। তারা কেউ বলছে এদেশের মানুষ বেহেশতে আছেন , কেউ বলছে দেশের মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বেড়েছে। তাদের বলতে চাই পুলিশ বাহিনী ছাড়া এই কথাগুলো সাধারণ জনগণের সামনে এসে পারলে বলুন। দেখবেন নড়াইলের অবস্থার থেকেও ভয়াবহ অবস্থা আপনাদের হবে।

রাবি জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক এফ নজরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. মাসুদুল হাসান খান (মুক্তা) এর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, কলা অনুষদের ডীন ও ফোরামের উপদেষ্টা অধ্যাপক ফজলুল হক, ফোরামের সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক এনামুল হক, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কুদরত ই জাহান প্রমুখ।


প্রজন্মনিউজ২৪/ইজা

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ