চীনের স্পাই জাহাজ প্রবেশের অনুমতি প্রত্যাখ্যান করল শ্রীলঙ্কা

প্রকাশিত: ০৬ অগাস্ট, ২০২২ ১২:০৫:৫৫

চীনের স্পাই জাহাজ প্রবেশের অনুমতি প্রত্যাখ্যান করল শ্রীলঙ্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ শ্রীলঙ্কা সরকার চীন সরকারকে হাম্বানটোটা বন্দর থেকে তার স্পেস-স্যাটেলাইট ট্র্যাকার জাহাজ ইউয়ান ওয়াং-৫ সরিয়ে নেয়ার জন্য বলেছে "যতক্ষণ না দুই সরকারের মধ্যে আলোচনা" করা হচ্ছে। চীনের ইজারা নেওয়া হাম্বানটোটা বন্দরে জ্বালানি সরবরাহের জন্য স্পাই জাহাজটির ১১ আগস্ট পোতাশ্রয়ে নোঙর করে ১৭ আগস্ট বন্দর ছেড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে।

২০০৭ সালে তৈরি হওয়া ইউয়ান ওয়াং-৫ নামের জাহাজটির ১১ হাজার টন বহন করার ক্ষমতা রয়েছে। শনিবার দ্য হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাহাজটি গত ১৩ জুলাই চীনের জিয়াংইন থেকে রওনা হয়েছিল। মার্কিন হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে চীনের দাবিকৃত স্ব-শাসিত দ্বীপ তাইওয়ান ছেড়ে যেতে তাইপেইয়ের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মকভাবে লাইভ-ফায়ার ড্রিল পরিচালনা করে। মেরিন ট্রাফিক ওয়েবসাইট অনুসারে, জাহাজটি বর্তমানে দক্ষিণ জাপান এবং তাইওয়ানের উত্তর-পূর্বের মধ্যে পূর্ব চীন সাগরে রয়েছে।

শ্রীলঙ্কার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গত ১২ জুলাই চীনের দূতাবাসে ইউয়ান ওয়াং-৫ জাহাজটি হাম্বানটোটা বন্দরে পূণঃপ্রবেশের অনুমতি দিয়ে চিঠি পাঠানোর কথা জানিয়েছে কলম্বোতে অবস্থিত চীনা দূতাবাস। কিন্তু হঠাৎ করেই অনুমতি প্রত্যাখ্যান করায় শ্রীলঙ্কার উপর চটেছে চীন। কলম্বোতে চীনের রাষ্ট্রদূত বলছেন শ্রীলঙ্কার সরকারের জাহাজের অনুমতি প্রত্যাখ্যান দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কের উপর প্রভাব ফেলবে। চীন শ্রীলঙ্কার উপর পেশী শক্তি প্রয়োগ করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে, ভারত হাম্বানটোটায় জাহাজের নোঙর ফেলা নিয়ে নিজেদের নিরাপত্তার ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। কারণ একটি গবেষণায় দেখা গেছে, গুপ্তচর জাহাজটি সমুদ্রের নিখুঁত মানচিত্র তৈরি করতে সক্ষম যা চীনা নৌবাহিনীর সাবমেরিন অভিযানকে আরো ত্বরান্বিত করবে।

রনিল বিক্রমাসিংহে সরকারের মন্ত্রিপরিষদের মুখপাত্র ২ আগস্ট জাহাজটিকে জ্বালানি সরবরাহের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে বলে ঘোষণা করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ভারতীয় নৌবাহিনীও কলম্বোকে তার গুরুতর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের কথা জানিয়েছে। বর্তমান অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলায় শ্রীলঙ্কার সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়িয়েছে ভারত এবং পেট্রোল, ডিজেল, প্রাকৃতিক গ্যাস, খাদ্যসামগ্রী ও ওষুধের ক্ষেত্রে ৩.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি সহায়তা দিয়েছে।

শুক্রবার শ্রীলঙ্কার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হাম্বানটোটা বন্দরে গুপ্তচর জাহাজটিকে নোঙর ফেলার অনুমতি প্রত্যাখ্যান করে এবং চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে লিখিতভাবে অবগত করে। শ্রীলঙ্কার স্পাই জাহাজের সফর স্থগিত করার সিদ্ধান্তটি চীনের পেশীশক্তি থাকা সত্ত্বেও প্রতিবেশী ভারতের নিরাপত্তার উদ্বেগকে সম্মান করা বলেই দেখছেন কূটনৈতিক বিশ্লেষকরা। বেইজিং শ্রীলঙ্কার কাছ থেকে ২০১৭ সালে হাম্বানটোটা বন্দর ৯৯ বছরের জন্য ইজারা নিয়েছিল। চীনের কাছে ১০ শতাংশেরও বেশি বাহ্যিক ঋণ রয়েছে শ্রীলঙ্কার।
 


প্রজন্মনিউজ২৪/এসএমএ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ