চীনের মহড়ার কারণে তাইওয়ানের বিমান চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত: ০৫ অগাস্ট, ২০২২ ১১:১৩:৫৯

চীনের মহড়ার কারণে তাইওয়ানের বিমান চলাচল বন্ধ

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরের পর দ্বীপটির চারপাশে চীনের সামরিক মহড়ার কারণে বেসামরিক অনেক ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার কোরিয়ান এয়ার শুক্রবার ও শনিবার তাইওয়ানের সমস্ত ফ্লাইট বাতিল করেছে এবং দেশীয় এশিয়ানা এয়ার শুক্রবারে সকল রুটের ফ্লাইট বাতিল করেছে। বৃহস্পতিবার এশিয়ানা ফ্লাইট তিন ঘণ্টা বিলম্বিত করার পরে কোরিয়ান এয়ার তাইপেইতে রোববারের ফ্লাইটের সময়সূচী এক ঘণ্টা বাড়িয়েছে।

কোরিয়ান এয়ার লাইন্স কোম্পানি লিমিটেড ও সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স লিমিটেড বলছে, মহড়ার কারণে তারা শুক্রবার তাইপেই থেকে ফ্লাইট বাতিল করেছে, কোরিয়ান ক্যারিয়ারও শনিবারের ফ্লাইট বাতিল করেছে এবং রবিবারের ফ্লাইট বিলম্বিত করেছে। জাপানের হোল্ডিংস ইনক এখনও তাইপেইতে স্বাভাবিক ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এয়ারলাইন্সের মুখপাত্র বলেছেন, কিন্তু সেই ফ্লাইটগুলির পাশাপাশি রুটে প্রভাবিত আকাশসীমা এড়িয়ে চলছে এবং  হংকং ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ফ্লাইটগুলোর সাথে রুট সামঞ্জস্য করেছে। 

রয়র্টাসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তাইওয়ানের সিভিল অ্যারোনটিক্স অ্যাডমিনিস্ট্রেশন কেন্দ্রীয় সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, তারা শুধুমাত্র বৃহস্পতিবারই চার ঘণ্টার মধ্যে দ্বীপের ভিতরে এবং বাইরে ৭৪টি যাত্রীবাহী ফ্লাইটের রুটিংয়ের নির্দেশনা দিয়েছিলেন । ফ্লাইট ট্র্যাকিং পরিষেবা ‘ফ্লাইটরাডার-২৪’ অনুসারে ফিলিপাইন এয়ারলাইন্স, তাইওয়ানের চায়না এয়ারলাইনস, ইভা এয়ার এবং ইউনাইটেড পার্সেল সার্ভিস কার্গো ক্যারিয়ার ফিডএক্সের দ্বীপটিতে উড্ডয়ন ও অবতরণ অব্যাহত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার চীন তাইওয়ান প্রণালীতে তার সামরিক মহড়ায় তাইওয়ানের কাছে বেশ কয়েকটি যুদ্ধ বিমান মোতায়েন করেছে এবং লাইভ মিসাইল নিক্ষেপ করেছে। দ্বীপের বেশিরভাগ অংশ ঘিরে থাকা ছয়টি অঞ্চলে রবিবার স্থানীয় সময় দুপুর পর্যন্ত এই মহড়া চালাবে বলে চীন ঘোষণা দিয়েছে। বেইজিং তাইওয়ানকে ছয়টি "বিপদ অঞ্চল" এড়াতে সতর্ক করার পর সাময়িক ফ্লাইট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাইওয়ান।

সারা বিশ্বে নিয়মিতই সামরিক মহড়ার সময় রুট পরিবর্তন করা কিংবা আকাশপথ অস্থায়ীভাবে বন্ধ করার ঘটনা ঘটে থাকে। কিন্তু তাইওয়ানের  আশপাশে চীনের সামরিক মহড়া যথেষ্ট উদ্বেগের ও অস্বাভাবিক। কারণ তাইওয়ানের ১২ নটিক্যাল মাইল (২২ কিলোমিটার) আঞ্চলিক জলসীমাকে নিজেদের দাবি করে সামরিক মহড়া চালাচ্ছে চীন। এটিকে তাইওয়ানের কর্মকর্তারা আন্তর্জাতিক সীমা লঙ্ঘন এবং তাইওয়ানকে সমুদ্র ও আকাশপথ অবরোধের সামিল বলে জানিয়েছেন।

এভিয়েশন সেফটি কো-অপারেটিভ অপস গ্রুপ বলেছে চীনের সামরিক মহড়া দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং উত্তর-পূর্ব এশিয়ার মধ্যে প্রধান রুটগুলোকে প্রভাবিত করবে। ফলে অন্য রুট করা যেতে পারে, যদিও এতে বেশি সময় এবং অতিরিক্ত জ্বালানীর খরচ বাড়বে। 

রাশিয়া, ইউক্রেন, আফগানিস্তান, উত্তর কোরিয়া, ইরাক এবং সিরিয়ার মতো অন্যান্য স্থানের ওভারফ্লাইট বাইপাস করার সিদ্ধান্তের তুলনায় বিকল্প আকাশসীমা ব্যবহারই বেশিরভাগ এয়ারলাইন্সের সিদ্ধান্ত। বৈশ্বিক বিমান চলাচল শিল্পে এর প্রভাব সামান্য বলে অপস গ্রুপ জানিয়েছে।
 


প্রজন্মনিউজ২৪/এসএমএ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ