প্রক্সি পরীক্ষায় জড়িত রাবি ছাত্রলীগ নেতা তন্ময়কে দল থেকে বহিষ্কার

প্রকাশিত: ০৫ অগাস্ট, ২০২২ ০৯:৩৫:৪৮ || পরিবর্তিত: ০৫ অগাস্ট, ২০২২ ০৯:৩৫:৪৮

প্রক্সি পরীক্ষায় জড়িত রাবি ছাত্রলীগ নেতা তন্ময়কে দল থেকে বহিষ্কার

সোহাগ আলী, রাবি প্রতিনিধিঃ শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মুশফিক তাহমিদ তন্ময়কে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়। 

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকায় মোঃ মুশফিক তাহমিদ তন্ময় (সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা)-কে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হলো।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, বায়েজিদ দীর্ঘদিন ধরে তন্ময়ের মাধ্যমে বিভিন্ন চাকরি ও ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি দিতেন। রাবির কয়েক বছরের ভর্তি পরীক্ষা তন্ময়ের প্রক্সি চক্র নিয়ন্ত্রণ করছিল বলে গুঞ্জন থাকলেও এতদিন কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বায়েজিদের ওই ভিডিও বার্তার পর এবার তা প্রকাশ্যে আসে। ধারণা করা হচ্ছে শুধু তন্ময় নয়, প্রক্সি চক্রে আরও অনেকে জড়িত থাকতে পারে।

এদিকে তন্ময়ের জ্ঞাত আয়ের কোনো উৎস সম্পর্কে জানা না গেলেও তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৪২ লাখ টাকা লেনদেনের খবর প্রকাশিত হয়েছে গণমাধ্যমে। এছাড়া, প্রক্সি ও মাদক কারবারের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা কামানোর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সেই টাকায় গাইবান্ধায় একটি প্রাইভেট হাসপাতাল নির্মাণেরও গুঞ্জন রয়েছে।

বহিষ্কারের বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, তন্ময়ের বিরুদ্ধে ভর্তি জালিয়াতি, সিট বাণিজ্যসহ বিভিন্ন সময়ে নানা অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আমরা ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিকে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করি। ছাত্রলীগকে কলঙ্কমুক্ত করায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ জানাই।

এর আগে, ২০১৭ সালে রাবি ও রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) ঘিরে গড়ে ওঠা ইয়াবা কারবার চক্রের ৪৪ জনকে শনাক্ত করে একটি প্রতিবেদন দেয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের মাদক অধিশাখা। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি হওয়া প্রতিবেদনটিতে অবৈধ মাদক কারবারি ও সরবরাহকারী তালিকার ১৬ নম্বরে ছিল তন্ময়ের নাম।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুলাই রাবির 'এ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি পরীক্ষা দিতে এসে আটক হন বায়েজিদ খান নামে রাবির ফোকলোর বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের এক শিক্ষার্থী। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি তাকে নিয়োগদাতা হিসেবে রাবি ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুশফিক তাহমিদ তন্ময়ের নাম জানান। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের একটি ভিডিও ওইসময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরালও হয়েছিলো।
 


প্রজন্মনিউজ২৪/এসএমএ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ