অতিরিক্ত ঘামের যন্ত্রণা থেকে মুক্তির প্রাকৃতিক উপায়

প্রকাশিত: ২২ জুন, ২০২২ ০৪:০৩:৩১ || পরিবর্তিত: ২২ জুন, ২০২২ ০৪:০৩:৩১

অতিরিক্ত ঘামের যন্ত্রণা থেকে মুক্তির প্রাকৃতিক উপায়

অনলাইন ডেস্কঃ বিশ্বের অধিকাংশ মানুষ অতিরিক্ত ঘামের যন্ত্রণা নিয়ে ভুগে থাকেন। হাত, পা, মুখ, বগল ঘামাকে ডাক্তারি ভাষায় হাইপারহিডরোসিস বা মাত্রাতিরিক্ত ঘাম বলা হয়। এটি এমন এক রোগ যা অনিয়ন্ত্রিত স্নায়ুপদ্ধতির কারনে হয়ে থাকে। এর ফলে আমরা অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকি। প্রতিদিনের কাজকর্ম যেমন গাড়ি চালাতে গিয়ে, টাচ-স্ত্রিন যন্ত্রপাতি ব্যবহার করার সময় বা অন্যান্য কাজ করতে গিয়ে বেশ বিপত্তি ঘটে। খুব বেশি বডি-স্প্রে দিয়েও কোন লাভ হয় না, বরং তা শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

অতিরিক্ত ঘাম থেকে বাঁচার উপায়ঃ-

১. ভিটামিন বি-১ ২এর অভাবে এই রোগ হয়। তাই ভিটামিন বি-১ ২যেসব খাদ্যে বেশি পরিমানে পাওয়া যায় সেসব খাদ্য গ্রহণ করুন। যেমন কলা, ডিম, দুধ, গাজর, টমেটো, সবুজ শাক, মাছ, কাঠ বাদাম ইত্যাদি।

২. ভিটামিন বি পরিবার যেমন, বি-১, বি-২, বি-৩, বি-৫যুক্ত খাদ্য। প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শে ভিটামিন বি ট্যাবলেট গ্রহণ করুন।

৩. বেশি করে পাকা ফলমূল ও শাকসবজি খাবেন। পাকা পেঁপে, তরমুজ, আম, কামরাঙ্গা, ফুলকপি, গাজর, বরবটি খুব উপকারী।

৪. শারীরিক দুর্বলতা থেকে এটি হয়ে থাকে। তাই পুষ্টিকর খাবার, শাকসবজি, ফলমূল বেশি করে খেতে হবে।

৫. আয়োডিযুক্ত খাবার যেমন-এসপারাগাস, ব্রকোলি, টারকি, গরুর মাংস, যকৃত, সাদা পেয়াঁজ, খাবার, লবণ প্রভৃতি থেকে এটি হয়ে থাকে। তাই এগুলো খাওয়া থেকে বিরত  থাকুন।

৬. চায়ের মধ্যকার টনিক এসিড প্রাকৃতিক ঘাম বিরোধী ঔষুধ হিসেবে কাজ করে। তাই দেড় লিটার পানির মধ্যে পাঁচটি চায়ের ব্যাগ মিশিয়ে সেটার মধ্যে ১০-১৫ মিনিট হাত-পা ভিজিয়ে রাখুন। তাছাড়া সবুজ চা পান করুন। এতেও উপকার পাবেন।

৭. হাতে-পায়ে কোনও ধরনের পাউডার ব্যবহার থেকে বিরত  থাকুন। কারণ এটি ঘাম দূর করার পরিবর্তে আরো বাড়িয়ে দেবে।

৮. পান, ক্যাফেকুইনযুক্ত কফি, ধূমপান প্রভৃতি থেকে বিরত থাকুন।কারণ এ গুলো অতিরিক্ত ঘাম উৎপন্ন করে।

৯. বেশি বেশি পানি পান করুন। পানি দিয়ে মুখ, হাত, পা, বারবার ধুয়ে ফেলুন।

১০. শশাতে লবণ না মেখে খাবেন। এতে আপনার শরীরে পর্যাপ্ত পানি থাকবে এবং ঘাম কমে যাবে।
 


প্রজন্মনিউজ২৪/ফিরোজ

   

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ