এক পরিবারে ৩ প্রতিবন্ধী, ভাগ্যে জোটেনি সরকারি সহায়তা

প্রকাশিত: ০৭ জুন, ২০২২ ০৪:৪৮:০০ || পরিবর্তিত: ০৭ জুন, ২০২২ ০৪:৪৮:০০

এক পরিবারে ৩ প্রতিবন্ধী, ভাগ্যে জোটেনি সরকারি সহায়তা

নুর উদ্দিন জাবেদঃ লক্ষ্মীপুরে রায়পুরে  একই পরিবারের ৩ জন প্রতিবন্ধী অথচ কেউই পান না সরকারি অনুদান কিংবা কোনো প্রকার ভাতা। যার ফলে নিদারুন কষ্টের মধ্যে দিয়ে জীবনযাপন করছে এ পরিবারের সদস্যরা।

সরকারিভাবে অসহায়-দুস্থ কিংবা প্রতিবন্ধীদের জন্য সাহায্য-সহযোগিতার বরাদ্দ থাকলেও এই পরিবারের অভিযোগ তাদের কাছে পৌঁছায়নি কোনো সরকারি সহায়তা। সাহায্য প্রত্যাশি এই পরিবারের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলার ১নং উত্তর চর আবাবিল ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের কালু মিয়ার বাড়ি।

এই পরিবারের বয়ঃজেষ্ঠ সদস্যের নাম উলফাতুন্নেছা (৬৫), স্বামী নেই কিন্তু প্যারালাইজড হয়ে বিছানায় পরে আছেন দীর্ঘদিন। অন্যদিকে সরকারি বিধি অনুযায়ী তিনি বিধবা, প্রতিবন্ধী অথবা বয়স্ক ভাতার উপযুক্ত হলেও তার অভিযোগ কিছুই জোটেনি তার কপালে।

পরিবারের অন্য সদস্য উলফাতুন্নেছার মেয়ে পিয়ারা বেগম, সে মানসিক প্রতিবন্ধী। পুরোপুরি সুস্থ করে তুলতে বিভিন্ন জায়গায় চিকিৎসা করা হলেও সুস্থ হয়ে ওঠেননি পিয়ারা বেগম। পান না কোনো সরকারি ভাতা।

মাত্র ৫ বছরের শিশু মরিয়ম এ পরিবারেরই আরো একজন সদস্য, অন্য দু’জন সদস্যের মতো সেও প্রতিবন্ধী। শিশু মরিয়মের বাব আজাদ তার জন্মের পরেই মা-মেয়েকে রেখে চলে যান। খোঁজ নেননি ঔরস্যের প্রতিবন্ধী সন্তানটির। পেট বাঁচাতে মা অন্যের বাড়িতে ঝিঁ-এর কাজ করে; যা পান তা দিয়ে কোনো রকম দিনযাপন করছেন পরিবারটি।

উলফাতুন্নেছার পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয় হওয়ার পরও সরকারি কোনো ভাতা বা সহায়তা না পাওয়ায় স্থানীয়দের মধ্যে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

এবিষয়ে রায়পুর উপজেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা শরিফ হোসেনর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি মুঠোফোনে জানান, আমি উলফাতুন্নেছার আইডি কার্ড দেখে ডাটাবেজ চেক করেছি উনার বয়স্ক ভাতার আবেদন অপেক্ষমান রয়েছে যখন উনি আবেদন করেন তখন উনার বয়স কিছুটা কম থাকায় বয়স যাদের বেশি ছিলো তাদের অগ্রাধিকার দেওয়ায় হয়েছে। পর্যায়ক্রমে তিনিও বয়স্কভাতার অন্তর্ভুক্ত হবেন। প্রতিবন্ধীদের জন্য আমাদের নিজস্ব খরচে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর  তাকে ভাতার আওতাভুক্ত করা হয়.. .পরীক্ষা করা ছাড়া সরকারিভাবে  কিছু করা সম্ভব না।

অন্যদিকে সচেতন সমাজ বলছে বিভিন্ন সময়ে পত্রিকায় প্রতিবন্ধীদের অধিকার ও সুরক্ষা নিশ্চিতকরণে সভা-সেমিনার করে থাকে সমাজসেবা অধিদপ্তর কিন্তু প্রকৃতপক্ষে কতটুকু মাঠ পর্যায়ে অনুসন্ধান বা তদারকি করে তা সাধারণ মানুষের কাছে বোধগম্য নয়। অসহায় এ পরিবারকে সহযোগিতায় যথাযথ কর্তৃপক্ষ ও বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত বলে মনে করে সুশীল সমাজ।


প্রজন্মনিউজ২৪/এসএমএ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ