উত্তরণ এনজিও'র বিরুদ্ধে মেয়াদ উত্তীর্ণ খাবার দেওয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত: ২৫ মে, ২০২২ ০৪:৩৪:২০ || পরিবর্তিত: ২৫ মে, ২০২২ ০৪:৩৪:২০

উত্তরণ এনজিও'র বিরুদ্ধে মেয়াদ উত্তীর্ণ খাবার দেওয়ার অভিযোগ

বটিয়াঘাটা (খুলনা) প্রতিনিধি: খাসজমি ও জলমহল, মুসলিম উত্তরাধিকার সম্পত্তিতে নারীর অধিকার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠানে অতিথিদের মাঝে মেয়াদ উত্তীর্ণ খাবার দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

যানা যায়, গত সোমবার উত্তরণ এনজিও বটিয়াঘাটা শাখা কর্তৃক আয়োজিত সাংবাদিকদের নিয়ে এক মত বিনিময় ও উত্তরাধিকার আইন বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সেমিনারে সাংবাদিকদের ডেকে নিয়ে তাদেরকে দেওয়া হয় নিম্নমানের খাদ্যসামগ্রী। এমনকি সাংবাদিকদের ক্ষতি সাধনের লক্ষ্যে মেয়াদ উত্তীর্ণ ফুড আইটেমের খাবার বিতরণ করা হয়। খাবার বিতরণ কালে দেখা যায়,চানাচুর প্যাকেটের গায়ে লেখা রয়েছে "স্বদেশ বিডি ন্যাশনাল লিমিটেড" নামক ঝাল চানাচুর প্যাকেটের গায়ে লেখা রয়েছে উৎপাদন তারিখ 20 জুন ও মেয়াদ শেষের তারিখ 20 ডিসেম্বর। 

উক্ত মেয়াদ উত্তীর্ণ খাবার খেয়ে অনেকে অসুস্থ বোধ করে। অনেকে উক্ত খাবার বাড়িতে নিয়ে তাদের বাচ্চাদের খেতে দেয়। পরে তারা ঐ খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। সাংবাদিক তরিকুল ইসলাম বলেন, উক্ত খাবার খেয়ে আমার ছেলে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার ডায়েরি,বমি হয়েছে। সাংবাদিক হিরামন সাগরের স্ত্রী সন্তানও ঐ খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে। 

এবিষয় সংশ্লিষ্ট উত্তোরণ এনজিও'র শাখা ব্যবস্থাপক ম্যানেজার বটিয়াঘাটা অফিসের মোঃ মোখলেছুর রহমান  কামালের কাছে বিষয়টি বিস্তারিত জানতে চাইলে, তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন। এবং বলেন এটা আমাদের অনিচ্ছুক একটি ভুল। এধরনের ভুল আমাদের আর হবে না। তিনি আরো বলেন,বাজারের একটি ব্যবসায়ী আমাদেরকে এই খাবার সরবরাহ করেন। শুধু তাই নয়,বিরানি খাবারের জন‍্য যে প্যাকেট দেওয়া হয় সেটাও খুব নিম্নমানের। 

অনেক ভুক্তভোগীরা বলেন,জাতির বিবেককে ধ্বংস করার জন্য একটি মহলের ইন্দনে উত্তরণ এনজিও এই নিম্নমানের খাবার ও মেয়াদ উত্তীর্ণ চানাচুর সাংবাদিকদের মাঝে সরবরাহ করেন,তাদের ক্ষতিসাধনের জন্য। 

এ ব্যাপারে বটিয়াঘাটা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। সিনিয়র সাংবাদিক কবীর আহমেদ খান বলেন,এসব অপরাধের ক্ষমা হয়না। এই খাবার খেয়ে বড় ধরনের কোন দুর্ঘটনা ঘটতে পারত। তাই তারাও এই দুর্নীতিগ্রস্ত এনজিওর বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক সঠিক বিচার দাবী করেন সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট।

বটিয়াঘাটা থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহা জালালকে বিষয়টি জানান হয়। তিনিও এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। 

অন্যদিকে এনজিও উত্তরণের খুলনা জেলা শাখার কর্তৃপক্ষের সাথে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। এভাবে চলছে একের পরে এক এনজিও উত্তোরণের নানাবিধ অপরাধ বা অনিয়মতান্ত্রিক কার্যকলাপ। ইতোপূর্বে এই এনজিও'র বিরুদ্ধে রয়েছে নানাবিধ অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। 


প্রজন্মনিউজ২৪/মনিরুল

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ