রাজনৈতিক সামাজিকীকরণ একটি দেশের রাজনীতীতে কি ভূমিকা রাখে?

প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল, ২০২২ ০৭:৪৮:৫৫

রাজনৈতিক সামাজিকীকরণ একটি দেশের রাজনীতীতে কি ভূমিকা রাখে?

ফয়সাল মাহমুদ, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়: সামাজিকীকরণ এমন একটি প্রক্রিয়া যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মানব শিশু সমাজের একজন কাঙ্ক্ষিত পূর্ণাঙ্গ সদস্য হিসেবে গড়ে ওঠে। সমাজবিজ্ঞানী কিংসলে ডেভিসের মতে, "সামাজিকীকরণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ব্যক্তি পুরোপুরি সামাজিক মানুষে পরিণত হয়। এতে গেলো শুধু সামাজিকিকীকরন।

সামাকিকীকরণ যেমন একটি চলমান প্রক্রিয়া তেমনি রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন ও একটি চলমান প্রক্রিয়া। এই সামাজিকিকীকরন ঘটে একটি দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে ।আমার মতে রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন করণ হলো ব্যক্তি পার্শস্থ পরিবেশের অন্তরস্থ ও বহিঃস্ত সমষ্টি যেখানে কতিপয় ব্যক্তির কর্মকান্ডের দ্বারা গোটা মানবসমাজ আন্তক্রিয়াতে অংশগ্রহণ করে।শৈশব থেকে শুরু করে, রাজনৈতিক সামাজিকীকরণের প্রক্রিয়া একজন ব্যক্তির জীবনকাল ধরে চলতে থাকে।শুধু যে প্রাপ্ত বয়স্করা এ প্রক্রিয়াতে অংশগ্ররণ করে তেমন নয়।রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন এ যেকোনো ব্যক্তি অংশগ্রহণের সক্ষমতা রাখে।

যেমন :বৃদ্ধদের বয়স্ক ভাতার জন্য আন্দোলনও এ প্রক্রিয়ার অংশ।মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একটি শিশুর সামাজিকিকীকরন ঘটে প্রথমত স্কুলে পাঠদানকালে।বলা বাহুল্য গণতন্ত্র এক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনায় সামাজিকিকীকরন ভিন্ন হয়ে থাকে।রাজনৈতিক সামাজিকীকরণ সর্বদা গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানের সমর্থনে পরিণত হয় না।রাজনীতীতে সামাজিকিকীকরন একটি পার্টির মেরুদন্ড হিসাবে কাজ করে থাকে।একটি অপ্রাতিষ্ঠানিক দলও এই মাধ্যম ব্যবহার করে প্রাতিষ্ঠানিক দলে পরিণত হতে পারে।বাংলাদেশের ক্ষেত্রে নিরাপদ সড়ক আন্দোলন হতে পারে এর উদাহরণ ।সামাজিকিকীকরন এর মতন রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন এও কিছু মাধ্যম কাজ করে।পরিবার,স্কুল শিক্ষক,পিয়ার গ্রুপ,স্বার্থনেষী গোষ্টী,প্রতিবেশী,ধর্ম,গণমাধ্যম,ক্লাব,কর্মক্ষেত্র,আঞ্চলিকতাইত্যাদি।

চলুন আজকে পরিবার নিয়ে আলোচনা করা যাক- পরিবার শুধু সামাজিকিকীকরন এর উপাদান নয় এটি রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন কেও বহন করে।পরিবার এই সামাজিকিকীকরন রীতী বহন করে চলে শিশুর জন্ম থেকেই।বাংলাদেশের মতন সমাজকেন্দ্রিক দেশে এই মাধ্যমের ভূমিকা খুবই গুরুত্ববহন করে আসছে।পরিবার থেকে একটি শিশু রাজনীতীর পরার্থপর শিক্ষা পেয়ে থাকে।যেখানে প্রয়শই পরিবার নির্ধারন করে দেয় রাজনীতীর পরিসীমা।আপনি বড় হয়ে কোন আদর্শের রাজনীতী করবেন তাও পরিবারের সাথে সম্পর্কিত হয়ে থাকে।শিশুর বেড়ে ওঠা ও অধিকার রক্ষায় বড় হতে থাকা পরিবারের  মাঝে এই সমীক্ষণ চলতে থাকে প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে।পরিবার যে রাজনৈতিক সামাজের কত বড় গুরুত্ববহন করে তা বাংলাদেশের রাজনীতীর ক্ষেত্রে বেশ দেখা যায়।

পরিবার তান্ত্রিক রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন বাংলাদেশ একটি অন্যতম উদাহরণ।পরিবারকেন্দ্রিক এই রাজনীতী কে আমার কাছে এক প্রকার রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন বলেই মনে হয় কেননা এটা  চলমান আন্ত্রক্রিয়াকে উভয় দিক থেকে স্বতঃ স্ফূর্ত ভাবে প্রভাবিত করে। এই রাজনীতী পাঠ চলমান থাকে বংশ পরাম্পরায়।বাংলাদেশের রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন বেশ জটিল। পরিবার,গোষ্টীতন্ত্র বড় প্রভাব রাখে যেকোনো রাজনৈতিক দলগুলোতে।মূলত ব্রিটেনের  কলোনিভূক্ত দেশগুলোতো তে পরিবার রাজনৈতিক সামাজিকিকীকরন এর একটি বড় ইতিহাস বহন করে।সেই সুবাদে ভারতীয় উপমহাদেশ সহ অন্যান্য কলোনিভূক্ত দেশ তার উদাহরণ বলা যায়।।  


প্রজন্মনিউজ২৪/মনিরুল

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন