চাকুরী

১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধনধারীদের নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারী, ২০২২ ০৭:৩৯:৫৩ || পরিবর্তিত: ২৭ জানুয়ারী, ২০২২ ০৭:৩৯:৫৩

১৬ তম শিক্ষক নিবন্ধনধারীদের নিয়োগের দাবিতে মানববন্ধন

 

দ্রুত চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য মানববন্ধন করেছে চূড়ান্তভাবে পাস করা ১৬ তম নিবন্ধনধারী চাকরিপ্রার্থীরা। গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সকাল সাড়ে দশটায় শুরু হয়ে বেলা সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত চলে মানববন্ধন। আঠারো মাসে নয়, যেন ছত্রিশ মাসেই বছর গুণছে ১৬ তম নিবন্ধনধারী চাকরিপ্রার্থীরা। এনটিআরসিএর দীর্ঘসূত্রিতা দুর্বিষহ করে তুলছে তাঁদের জীবন।

প্রায় সাড়ে তিন বছর হয়ে গেল তাঁদের নিয়োগ কার্যক্রমের। এখনো অনিশ্চয়তায় ঝুলে আছে তাঁদের ভাগ্য। সম্প্রতি ৩য় গণবিজ্ঞপ্তিতেও অল্পের জন্যে ঠাঁই হয়নি ১৬ তম নিবন্ধন প্রার্থীদের।

এবারের চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তিই তাঁদের শেষ ভরসা। তাই দ্রুত চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য মানববন্ধন করেছে চূড়ান্তভাবে পাস করা ১৬ তম নিবন্ধনধারী চাকরিপ্রার্থীরা। 

পরে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা সচিব ও এনটিআরসিএর মহাপরিচালক বরাবর স্বরকলিপি প্রদান করেন তারা। মানববন্ধনে অংশ নেয়া চাকুরীপ্রার্থীরা দ্রুত তাদের নিয়োগ দিয়ে বেকারত্ব লাঘবের দাবি তুলেন। মানববন্ধন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী এবং এনটিআরসির উদ্দেশ্যে মূলত তিনটি নির্দিষ্ট দাবি তুলে ধরেন তারা।

দাবিগুলো হলো: 
১. মুজিববর্ষেই ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে হবে 
২. ১৬ তমদের বয়স বিবেচনায় ৩৫+ আবেদন করার সুযোগ দিতে হবে  
৩. বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সুনির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা ও ইনডেক্স মুক্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ।

৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রত্যাশীরা মানববন্ধনে বলেন, ২০১৯ সালের ২ মে প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয় ১৪ নভেম্বর ২০২০ তারিখে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের ভাইভা অনুষ্ঠিত হয় ২০২০ সালের ২ ডিসেম্বর। এরপর ১৭ অক্টোবর ২০২১ সালে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ হয় যেখানে ১৮,৫০০ জন পাস করে।

এরপর ভাইবা পরীক্ষা শেষ হওয়ার মাত্র ৭ দিন পূর্বে ৩য় গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয় যাতে ১৬তম নিবন্ধন ধারীদেরকে হতাশ হতে হয়। তারা আরো বলেন, এখন চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তির আশায় দিন গুণছেন তারা। তবে ১৬তমদের ৩ বছর অতিবাহিত হওয়ার কারণে প্রতিদিন নির্ধারিত ৩৫ বছর অতিক্রম করে মহান পেশা হতে বঞ্চিত হচ্ছেন তারা। ১৬তম ছাড়া ১ থেকে ১৫তম পর্যন্ত সকলেই তিনটি করে গণবিজ্ঞপ্তি পেয়েছে।

তাই বয়সের কথা বিবেচনা করে ১৬তম সকল নিবন্ধনকারীদের সুযোগ দিয়ে চতুর্থ গগণবিজ্ঞপ্তি মুজিব বর্ষের মধ্যেই প্রকাশ করার অনুরোধ জানান তারা।

নূর মোহাম্মাদ নামের এক চাকরীপ্রার্থী বলেন, আমরা ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় চূড়ান্ত রেজাল্ট দেয়ার পর ৩য় গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। যেখানে ১৬তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের বাদ দেয়া হয়। ফলে সাড়ে ১৮ হাজার উত্তীর্ণরাই বাদ পড়ে। এরপর অনেক আকুতির পর মুজিববর্ষেই ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আশ্বাস দেয়া হয়েছে। কিন্তু এখনো তা প্রকাশ করা হয়নি। আমরা চাই দ্রুত ৪র্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে আমাদের পরিবারকে বাঁচাক।

তবে সবাই আশাবাদ ব্যক্ত করেন, অবিলম্বে এনটিআরসি চতুর্থ গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে তাদের এই অসহায়ত্ব থেকে মুক্তি দিবে।


প্রজন্মনিউজ২৪/মিঠুন হাসান

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ