লাঠির সাহায্যে চিতার থাবা থেকে ছেলেকে বাঁচালো মা

প্রকাশিত: ০৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ০২:৪৪:১১ || পরিবর্তিত: ০৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ০২:৪৪:১১

লাঠির সাহায্যে চিতার থাবা থেকে ছেলেকে বাঁচালো মা

অনলাইন ডেস্ক: ছয় বছরের ছেলেকে চিতাবাঘ নিয়ে যাচ্ছে। এমন দৃশ্য দেখে কোনো মা হয়তো বসে থাকবেন না। বাঘের মুখ থেকে সন্তানকে ফেরাতে আপ্রাণ চেষ্টা করবেন। তেমনই করলেন ভারতের মধ্যপ্রদেশের এক মা। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে সিএনএন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৮ নভেম্বর এই ঘটনা ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের সিধি জেলার কুসমী ব্লকের সঞ্জয় টাইগার বাফার জোনে। চিতাবাঘকে এক কিলোমিটার ধাওয়া করেছেন ওই মা। পরে চিতাবাঘ থেকে ছেলেকে ছিনিয়ে আনতে পেরেছেন। কিন্তু বাঘের আঘাতে মা ও সন্তান দুজনই মারাত্মক আহত হয়েছেন। বর্তমানে তারা চিকিৎসাধীন আছেন হাসপাতালে।

জানা যায়, ওইদিন সময় সন্ধ্যা ৭টার সময় কিরণ বেগা নামে ওই নারী নিজের বাচ্চাকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করছিলেন। তার স্বামী শঙ্কর বেগা কাজের জন্য বাড়ির বাইরে গিয়েছিলেন। কিরণের কোলেই শিশু বসেছিল। এ সময় পেছন থেকে চিতাবাঘটি এসে কিরণের পাশে বসা শিশুটিকে তুলে নিয়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনার পর কিরণ বলেন, বাচ্চাটিকে উঠিয়ে নেওয়ার সময় চিতাবাঘকে দেখতে পেয়েছিলেন। দ্রুত ওই বাঘটির পেছনে দৌড়াতে থাকেন। প্রায় ১ কিলোমিটার তিনি ওই চিতাবাঘের পেছনে ছুটতে থাকেন। পরে দেখতে পান তার ৬ বছরের ছেলেকে চিতাবাঘটি নিজের থাবায় ধরে নিয়েছে।

এই দৃশ্য দেখে তিনি লাঠি ও অন্য জিনিস দিয়ে বাঘটিকে মারতে থাকেন। পরে বাচ্চাকে রেখে চিতাবাঘটি তাকে আক্রমণ করে। তিনি চিতার থাবা নিজের হাত দিয়ে ঠেলে ফেলে দেন। চিৎকার শুনে গ্রামের লোকরা ছুটে আসে। তখন বাঘটি দৌড়ে আবার জঙ্গলে পালিয়ে যায়।

ছেলেকে বাঁচানোর পর ওই মহিলা অজ্ঞান হয়ে যান। পরে মা ও শিশুকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়। চিতাবাঘের হামলায় শিশু ও শিশুর গলায়, পিঠে, বাঁ চোখে ক্ষত হয়েছে। অন্যদিকে কিরণের শরীরে নখের দাগ রয়েছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/এন হাসান

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ