ভাতিজাকে ফাঁসাতে মেয়েকে গলা কেটে হত্যা

প্রকাশিত: ০৭ অক্টোবর, ২০২১ ০২:১১:২৮

ভাতিজাকে ফাঁসাতে মেয়েকে গলা কেটে হত্যা

প্রজন্মনিউজ ডেস্ক: কুমিল্লার চান্দিনায় সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে ভাতিজাদের ফাঁসাতে নিজের মেয়ে ছালমা আক্তারকে (১৪) গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা করে সোলেমান (৪০)।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) বেলা ১১টায় এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) এম তানভীর আহমেদ।

এ ঘটনায় পরিকল্পনাকারী সোলেমানের উকিল বাবা আব্দুর রহমান,  প্রতিবেশী খলিলকে আটক করেছে পুলিশ। তবে সোলাইমান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় তাকে এখনো গ্রেপ্তার দেখানো হয়নি।

কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) এম তানভীর আহমেদ জানান,  গত ১ অক্টোবর রাতে ছালমা আক্তারকে ঘর থেকে তুলে নিয়ে গলা কেটে হত্যা করে বাড়ির পাশের পুকুরে ফেলে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন ছালমার বাবা সোলাইমান।

পরে গত মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) ভোরে উপজেলার গল্লাই ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে বের হলে তাকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা করা হয় অভিযোগ করেন তিনি। ঘটনাটি তদন্ত করতে গেলে বাদী ও আসামিদের কথায় গড়মিল পাওয়া যায়। জিজ্ঞাসাবাদে সোলেমানের উকিল বাবা আব্দুর রহমান ও প্রতিবেশী খলিল মাদ্রাসাছাত্রী ছালামা হত্যায় নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন। তাদের পরামর্শে সোলেমান তার মেয়েকে হত্যার পরিকল্পনা করেন।


তিনি আরও বলেন, নিহত ছালমার বাবা সোলেমানের সঙ্গে তার ভাতিজা শাহজালাল ও শাহ কামালের সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ ছিল। তাদের হত্যা মামলা দিয়ে ফাঁসাতে এবং ভাতিজাদের জায়গা দখলের জন্য নিজ মেয়ে ছালমাকে নিশৃংসভাবে হত্যা করে। পরবর্তীতে বুধবার সোলাইমান তাকে হত্যা চেষ্টা করা হয়েছে সংবাদ মাধ্যমকে জানান। বিষয়টি সাজানো নাটক ছিল। আটক দুইজন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলমান রয়েছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/ইমরান হোসাইন

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন