তিউনিসিয়ায় শান্তি ও স্থিতিশীলতা উপর এরদোগানের গুরুত্বারোপ

প্রকাশিত: ০৫ অগাস্ট, ২০২১ ০১:২৮:৫৩ || পরিবর্তিত: ০৫ অগাস্ট, ২০২১ ০১:২৮:৫৩

তিউনিসিয়ায় শান্তি ও স্থিতিশীলতা উপর এরদোগানের গুরুত্বারোপ

তিউনিসিয়ার পার্লামেন্ট স্থগিত এবং প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করার পর দেশটির প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান। এরদোগান আলাপে তিউনিসিয়ায় শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

 তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, তিউনিসিয়ায় স্থিতিশীলতা, শান্তি এবং শান্তিপূর্ণ অবস্থা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতেই পুরো অঞ্চলের মঙ্গল নিহিত রয়েছে। তিউনিসিয়া এ ‘সংকট কাটিয়ে উঠবে’ বলে অভিমত তুরস্কের প্রেসিডেন্টের। প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেন, এ সংকটের মধ্যে পার্লামেন্টকে কার্যকর রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

সোমবার এ দুই রাষ্ট্রপ্রধানের মধ্যে আলাপ হয় বলে জানায় তুরস্কের গণমাধ্যম আনাদোলু ও ডেইলি সাবাহ। জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে বিক্ষোভের মুখে উত্তর আফ্রিকার দেশ তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিচাম মেচিচিকে বরখাস্ত করে সংসদ স্থগিত ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদ। প্রেসিডেন্ট সাঈদ জানান, নতুন একজন প্রধানমন্ত্রীর সহায়তায় তিনি নির্বাহী ক্ষমতাগ্রহণ করবেন। 

এ প্রসঙ্গে তিউনিসিয়াভিত্তিক একজন সাংবাদিক বলেন, গত সেপ্টেম্বর থেকে তিউনিসিয়ায় রাজনৈতিক সঙ্কট চলছে। সুতরাং প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্ত আমাদের কাছে বিস্ময়কর মনে হয়নি। এর আগে প্রেসিডেন্ট সংসদ বিলুপ্ত এবং প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করার হুমকি দিয়েছিলেন।

প্রেসিডেন্ট সাঈদ বলেন, তিউনিসিয়া এবং তার নাগরিকদের রক্ষার জন্য যে পদক্ষেপ প্রয়োজন ছিল সেটিই নেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করার পরিপ্রেক্ষিতে ইন্নাহদা পার্টি তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদের বিরুদ্ধে ‘অভ্যুত্থানের’ অভিযোগ আনে। আর এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে দেশটিতে মাসব্যাপী রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করেন প্রেসিডেন্ট সাঈদ।

তবে পার্লামেন্টের স্পিকার ও তিউনিসিয়ার সবচেয়ে বড় দল আন নাহদার প্রধান রাশিদ ঘানুচি বলেন, আমরা মনে করি সব প্রতিষ্ঠান এখনও কার্যকর রয়েছে, আর ইনাহাদার সব সমর্থক এবং তিউনিসিয়ার জনগণ বিপ্লব রক্ষা করবে।

মধ্যপ্রাচ্যে ২০১১ সালে আরব বসন্ত নামে যে গণবিক্ষোভ ও রাজনৈতিক পটপরিবর্তন শুরু হয়েছিল— তার সূচনা ছিল এই তিউনিসিয়াতেই। সেখান থেকে দাবানলের মতোই গণতন্ত্রপন্থি বিক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে পড়েছিল আরব বিশ্বের এক বিরাট অংশজুড়ে। এর পরের কয়েক মাসে পতন ঘটেছিল ওই অঞ্চলের কয়েকটি শাসকচক্রের। কিন্তু তার ১০ বছর পর সেই আরব বসন্তের সুতিকাগার তিউনিসিয়া পতিত হয়েছে গুরুতর সংকটে— যদিও সেই পটপরিবর্তনের পর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় একমাত্র এই দেশটিই সাফল্য পেয়েছিল বলে মনে করা হয়।

সুত্র:আনাদোলু, ডেইলি সাবাহ।

এ সম্পর্কিত খবর

সারাবিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২২ কোটি ৮৩ লাখ ছাড়াল

কানাডায় গরমে পুড়ে শেষ হয়ে গেল একটি গ্রাম

ড্রোন হামলায় কাবুলে  শিশুসহ ১০ জনের মৃত্যু: দায় স্বীকার যুক্তরাষ্ট্রের

বাংলাদেশে আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না: কৃষিমন্ত্রী

২ বছরেও সিএনএস কর্তৃক বুকিং সহকারীরা অর্থ না পাওয়ায় ক্ষোভ

মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের অনুষ্ঠান বন্ধ করলেন কাদের

 ১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীরা পাবে ফাইজারের টিকা

হিন্দু বাড়িতে গরু জবাই, ১০ হাজার টাকা জরিমানা

নতুন পারমাণবিক চুক্তিতে চীন-পাকিস্তান, অস্ত্র প্রতিযোগিতার শঙ্কা

ময়মনসিংহে কেন্দুয়া-নান্দাইল সড়কে অটো-লড়ি সংঘর্ষ: নিহত ১

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



A PHP Error was encountered

Severity: Notice

Message: Undefined index: category

Filename: blog/details.php

Line Number: 417

Backtrace:

File: /home/projonmonews24/public_html/application/views/blog/details.php
Line: 417
Function: _error_handler

File: /home/projonmonews24/public_html/application/views/template.php
Line: 199
Function: view

File: /home/projonmonews24/public_html/application/controllers/Article.php
Line: 87
Function: view

File: /home/projonmonews24/public_html/index.php
Line: 315
Function: require_once

বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ