কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বিলোপ করার বার্ষিকীতে ধর্মঘটের আহ্বান জানিয়েছেন সৈয়দ আলি গিলানি

প্রকাশিত: ০৫ অগাস্ট, ২০২১ ১১:২২:২৪

কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বিলোপ করার বার্ষিকীতে ধর্মঘটের আহ্বান জানিয়েছেন সৈয়দ আলি গিলানি

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বিলোপ করার বার্ষিকীতে ধর্মঘটের আহ্বান জানিয়েছেন ওই অঞ্চলের স্বাধীনতাকামী নেতা সৈয়দ আলি গিলানি। ২০১৯ সালের আগস্ট মাসের ৫ তারিখে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বিলোপ করার দিনে তিনি এ ধর্মঘটের আহ্বান করেন।

সৈয়দ আলি গিলানিকে (৯১) তার জীবনের বেশির ভাগ সময় কাটাতে হয়েছে কাশ্মিরের রাজধানী শ্রীনগরের নিজ বাড়িতে গৃহবন্দী অবস্থায়। বিগত দশকগুলোতে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ তার ওপর এসব দণ্ডাদেশ দেয়।

তিনি তার টুইটার অ্যাকাউন্টে বলেছেন, এ বছরের আগস্ট মাসের ৫ তারিখে এ বিতর্কিত অঞ্চলটিকে বেআইনিভাবে ভারতীয় ইউনিয়নে সংযোজিত করা হয়। ভারতীয় কর্তৃপক্ষের এ পদক্ষেপটি ছিল এক ধরনের অবৈধ দখলদারিত্ব যা সত্যিই ন্যাক্কারজনক। যখন সমগ্র বিশ্ব করোনা মহামারীর সাথে লড়ছিল তখন ভারতীয় সরকার এ অবৈধ আইনটি চালু করে। গত দু’বছর ধরে তারা চেষ্টা চালাচ্ছে যেন এ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ কাশ্মিরে মুসলমানদের সংখ্যালঘু শ্রেণীতে পরিণত করা যায়।

তিনি কাশ্মির থেকে চলে যাওয়া হিন্দু পরিবারগুলোকে ভারতীয় সরকারের পরিকল্পনা অনুসারে আলাদা না থেকে মুসলমানদের সাথে থাকারও আহ্বান জানান। এছাড়া ১৫ আগস্ট তারিখে ভারতের স্বাধীনতা দিবসেও হরতাল ও ধর্মঘট পালনের আহ্বান জানান তিনি।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ঐতিহ্যগতভাবেই ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে ‘কালো দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়। এবার আমরা এ দিনটিকে সচেতনতা দিবস হিসেবে পালন করব। কাশ্মিরে ভারতের এ ন্যাক্কারজনক আগ্রাসন ও অসাধু পরিকল্পনার কথা আমরা বিশ্বকে জানিয়ে দিব।

এদিকে যখনই সৈয়দ আলি গিলানি এ টুইট প্রচার করা হয়েছে তখন ভারতীয় পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যদি কেউ সৈয়দ আলি গিলানির এ টুইট প্রচার করে তাহলে তাকে শাস্তি দেয়া হবে। উগ্রবাদ দমনের আইন অনুসারে এ ব্যবস্থা নেয়া হবে। যদি কেই সহিংসতা ছড়ায় তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সূত্র : ইয়েনি সাফাক


 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ