বিদ্যালয় খুলে দেওয়ার আহবান জাতিসংঘের

প্রকাশিত: ২৯ জুলাই, ২০২১ ১২:৫৫:২৭

বিদ্যালয় খুলে দেওয়ার আহবান জাতিসংঘের

করোনা মহামারীর কারণে বাংলাদেশসহ অনেক দেশেই এখনো বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। এ সময়ে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হলেও তা খুব একটা ফলপ্রসূ হচ্ছে না। উল্টো ঘরবন্দি থাকতে থাকতে শিক্ষার্থী, বিশেষ করে শিশুরা মানসিক বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর ১৮ মাস পেরিয়ে গেছে। লাখ লাখ শিশুর পড়াশোনা ব্যাহত হচ্ছে জানিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ইউনিসেফ ও ইউনেসকো।

হেনরিয়েটা ফোর ও অড্রে অ্যাজুল বলেন, আজ পর্যন্ত বিশ্বের ১৯টি দেশে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। এর ফলে ১৫ কোটি ৬০ লাখের বেশি শিক্ষার্থীকে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক তহবিল ইউসিফে বলছে, চলমান মহামারীতে স্কুল বন্ধ থাকায় বিশ্বের অন্তত ৬০ কোটি শিশুর শিক্ষা জীবন অচল হয়ে পড়েছে। এ করোনা মহামারী যেহেতু সহজে যাবে না, তাই এভাবে চলতে পারে না। সে জন্য যত দ্রুত সম্ভব স্কুলগুলো খুলে দিতে বিভিন্ন দেশের সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি। গত মঙ্গলবার জেনেভায় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ইউনিসেফের মুখপাত্র জেমস এলডার এসব কথা বলেন বলে জানায় এএফপি।

ইউনিসেফ বলছে, মহামারীর কারণে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে অন্তত ৮ কোটি শিশুর কাছে স্কুল বন্ধ থাকাকালে দূরবর্তী শিক্ষার অ্যাক্সেস ছিল না। জেমস এলডার বলেন, বিভিন্ন দেশের সরকার কোভিড-১৯ সংকট মোকাবিলা এবং এর বিস্তার যতটা সম্ভব কমিয়ে রাখতে পদক্ষেপ নিয়েছে। তা সত্ত্বেও সব কিছুর মধ্যে সবার শেষে স্কুল বন্ধ করা উচিত এবং সব কিছুর আগে উচিত স্কুল খুলে দেওয়া। তিনি স্কুল খুলে দেওয়ার আগে বিভিন্ন দেশে বার এবং পাবগুলো খুলে দেওয়ায় সরকারগুলোর মারাত্মক সমালোচনা করেন। এলডার বলেন, সব শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া পর্যন্ত স্কুল খোলার জন্য অপেক্ষা করা যাবে না। মহামারীতে অর্থনৈতিক কঠিন অবস্থা সত্ত্বেও সরকারগুলোকে তাদের শিক্ষাবিষয়ক বাজেট সুরক্ষিত রাখারও আহ্বান জানান তিনি।

দক্ষিণ আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ান অঞ্চলে ১৮টি দেশ এবং এ ভূখণ্ডের স্কুলগুলো হয়তো পুরোপুরি, না হয় আংশিক বন্ধ। তার ভাষায়, বিশ্বজুড়ে শিক্ষা, নিরাপত্তা, বন্ধুত্ব, খাদ্যের স্থানে জায়গা করে নিয়েছে উদ্বেগ, সহিংসতা এবং টিনেজ মেয়েদের অন্তঃসত্ত্বার বিষয়।উগান্ডার প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, এই দেশটিতে ২০২০ সালের মার্চ থেকে এ বছর জুন পর্যন্ত ১০ থেকে ২৪ বছর বয়সি মেয়েদের শতকরা কমপক্ষে ২০ ভাগের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে।

 এদিকে করোনায় বিপর্যস্ত ভারতে সংক্রমণের হার কমে আসায় প্রাথমিক স্কুলগুলো খুলে দিতে সুপারিশ করেছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)। আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে, গত মঙ্গলবার আইসিএমআরের পক্ষ থেকে বলা হয়, শিশুরা ভালোভাবে ভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলা করতে পারে। তাদের শরীরে ভাইরাস প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি। তাই প্রাথমিক স্কুলগুলো খুলে দেওয়ার কথা ভাবা যেতে পারে। 

প্রজন্মনিউজ২৪/আব্দুল খালেক

এ সম্পর্কিত খবর

সুবর্ণচরে বিদ্যুৎপৃষ্টে ১০ শ্রেণির মেধাবী ছাত্রের মৃত্যু!

ঝিনাইদহ জেলায় সরকারী প্রাথমিকের ৯ শিক্ষকের খোঁজ নেই !

বলিউডে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর বিপরীতে অভিষেক হচ্ছে জয়া আহসানের

ফের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধে আইনি নোটিশ

খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানো বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আফগান সমস্যার সমাধান জাতিসংঘ করতে পারবে এমনটা উদ্ভট কল্পনা : জাতিসংঘ মহাসচিব

জিএসপি প্লাস সুবিধা ইইউর রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের বিষয়

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

রাষ্ট্রপ্রধানদের টিকা নেওয়ার প্রমাণ দেখাতে হবে : নিউইয়র্ক

 শতশত স্থাপন বসতভিটা বিলীন  তিস্তার ভাঙনে 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ