রাজধানীতে গণপরিবহন ঢুকতে কঠোরতা, হাজারো মানুষের দুর্ভোগ

প্রকাশিত: ২২ জুন, ২০২১ ০৬:০৪:২১

রাজধানীতে গণপরিবহন ঢুকতে কঠোরতা, হাজারো মানুষের দুর্ভোগ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে আজ (মঙ্গলবার) থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত সাত জেলায় লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। এ নির্দেশনা অনুযায়ী ঢাকা-আরিচা ও টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়ক দিয়ে ঢাকার আমিনবাজারে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না গণপরিবহন। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।

কর্দমাক্ত পথে হেঁটে, বৃষ্টিতে ভিজে, চরম দুর্ভোগ সঙ্গী করে দীর্ঘ কয়েক কিলোমিটার পথ পেরিয়ে রাজধানীতে যাচ্ছেন হাজারো মানুষ। এদের বেশিরভাগই যাচ্ছেন কর্মস্থলে।

এদিন সকাল থেকেই সাভারের বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে দেখা গেছে এই চিত্র। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের হেমায়েতপুর, বলিয়ারপুর ও আমিনবাজারে দায়িত্বরত পুলিশ রাজধানীতে কোনো গণপরিবহন প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। ফলে বৃষ্টি মাথায় নিয়ে হেঁটে রাজধানীর দিকে যাচ্ছেন মানুষ। সড়কে গণপরিবহন না থাকলেও ছিল জনস্রোত। সড়কে যানচলাচল বাধাগ্রস্ত হওয়ায় দীর্ঘ যানজটও দেখা গেছে ঢাকাগামী লেনে।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে যাচ্ছিলেন স্থানীয় শ্রমিক নেতা খাইরুল ইসলাম মিন্টু। তিনি সকালে সাভারের একটি গণপরিবহনে ঢাকার পথে রওনা হয়েছিলেন। কিন্তু পথিমধ্যে হেমায়েতপুর পার হওয়ার পরই তাদের বাস থামিয়ে সব যাত্রী নামিয়ে দেয়া হয়। বাধ্য হয়ে অন্য যাত্রীদের সঙ্গে হাঁটা শুরু করেন মিন্টুও।

এই শ্রমিক নেতা বলেন, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বিভিন্ন ইউটার্নে পুলিশ দাঁড়িয়ে আছে। কোনো কোনো ইউটার্নে পরিবহন থামিয়ে ঘুরিয়ে দেয়া হচ্ছে। সকাল থেকে হাজারো মানুষ এ দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। হাঁটতে গিয়েও নানা সমস্যা। একে তো বৃষ্টি, তার ওপর সড়কের বিভিন্ন জায়গায় পানি জমে আছে।

তিনি আরও বলেন, এ ধরনের লকডাউন জনগণের ভোগান্তি ছাড়া কিছুই না। সাভার, আশুলিয়া, ধামরাই এমনকি গাজীপুরের অনেকের কর্মস্থল ঢাকার ভেতরে। যারা গাজীপুর বা সাভারে থেকে ঢাকায় কাজ করেন তাদের জন্য চরম দুর্ভোগ। এ ধরনের লকডাউন আমাদের কোনো কাজে লাগে না। বরঞ্চ কষ্ট বাড়িয়ে দেয়।

রাজধানীতে বেসরকারি অফিসে কর্মরত আশিক বলেন, ‘আমি প্রতিদিন সকালে বাসে আমার অফিসে যাই। আজ সকালে বের হয়েছি, হেমায়েতপুরের পরই বাস থেকে আমাকে নামিয়ে দেয়া হয়। পরে হেঁটেই অফিসে যেতে হয়েছে। সঙ্গে ছাতা না থাকায় বৃষ্টিতে ভিজে গিয়েছি। অফিসে পৌঁছতেও দেড় ঘণ্টা দেরি হয়েছে।’

এ বিষয়ে সাভার জোনের ট্রাফিক ইনচার্জ (টিআই) আব্দুস সালাম বলেন, ‘সকালেই ডিএমপি থেকে পরিবহন ঘুরিয়ে দেয়া হচ্ছে। সড়কের বিভিন্ন স্থানে পুলিশ রয়েছে যেন উল্টো পথে কোনো পরিবহন ঢুকতে না পারে। আমরা কোনো পরিবহন থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দিচ্ছি না।’

এএআই

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন