ভিজিডির চাল বিতরণ না করায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ

প্রকাশিত: ২০ জুন, ২০২১ ০১:৩৩:২৯ || পরিবর্তিত: ২০ জুন, ২০২১ ০১:৩৩:২৯

ভিজিডির চাল বিতরণ না করায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ

আনোয়ার হোসেন শামীম, গাইবান্ধা প্রতিনিধি: দুস্থ নারীদের উন্নয়নের জন্য ভিজিডি কর্মসূচীর আওতায় গোডাউন থেকে ভিজিডির চাল তুলে গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তৌফিকুল আমিন টিটু গত ৬ মাস ধরে তা বিতরণ না করে নিজের কাছে রেখে দিয়েছে। ফলে করোনাকালিন কর্মহীন দুস্থ অসহায় নারীরা চরম দুর্দশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।

সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় দু:স্থ ও অসহায় শারীরিক সক্ষম নারীদের স্থায়ী উন্নয়নের জন্য খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি তাদের আত্মনির্ভরশীল করার লক্ষ্যে ভিজিডি কর্মসূচী চালু করা হয়। এই কর্মসূচীর আওতায় তাদের বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দিয়ে আত্মনির্ভরশীল করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। কিন্তু এ সব দুস্থ নারীদের অসহায়ত্বের বিষয়টি জানা সত্ত্বেও ইউপি চেয়ারম্যান করোনার অজুহাত দিয়ে তাদের জন্য বরাদ্দকৃত খাদ্য সামগ্রী ৬ মাস ধরে বিতরণ  করছেন না। চেয়ারম্যানের এহেন কান্ডে সুবিধাভোগীদের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। 

দুস্থ ও অসহায় নারী জোহরা বেগম ও কল্পনা বেগম বলেন, করোনার কারণে সরকারের কঠোর বিধিনিষেধ থাকায় আমরা কর্মহীন হয়ে পড়েছি। সরকার আমাদের খাদ্য সহায়তার জন্য ভিজিডির চাল বরাদ্দ দিয়েছেন। কিন্তু সেই চাল দুস্থ ও অসহায় নারীদের মাঝে বিতরণ না করে চেয়ারম্যান রেখে দিয়েছেন। এটা অমানবিক। আমরা এখন খাদ্য সংকটে ভুগছি। এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান তৌফিকুল আমিন টিটুর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, খাদ্য গুদাম থেকে ভিজিডির চাল উত্তোলন করা হলেও বিভিন্ন কারণে তা বিতরণ করা হয়নি। খুব শিগগিরি চাল বিতরণ করা হবে। 

ভিজিডির চাল বিতরণ না করার বিষয়ে পলাশবাড়ী মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের কর্মকর্তা জান্নাতুল ফেরদৌস জানান, বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে। চেয়ারম্যানের কাছ থেকে ভিজিডির চাল ফেরত নিতে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। চেয়ারম্যান এমন ঘটনা এর আগেও ঘটিয়েছেন। এতে সুবিধাভোগীরা দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন। 

পলাশবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান জানান, হোসেনপুর ইউনিয়নে জানুয়ারী থেকে আজ পর্যন্ত ভিজিডির কোন চাল বিতরণ করেননি। তবে গুদাম থেকে চাল উত্তোলন করেছেন।  চেয়ারম্যানের কাছ  থেকে বরাদ্দকৃত ওই ভিজিডির চাল শীঘ্রই ফেরত নিয়ে উপজেলার প্রশাসনের মাধ্যমে বিতরণের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান। 

সুন্দরগঞ্জ উপজেলার সর্বানন্দ ইউনিয়নে হরিজন সম্প্রদায়ের নাবালিকা মেয়েকে অপহরণ, আটক পূর্বক ধর্ষণ ও সালিশের নামে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির যৌন হয়রানী ও প্রতারণার বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গাইবান্ধা গানাসাস মার্কেটের সামনে গতকাল শনিবার এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

আদিবাসী বাঙালি সংহতি পরিষদ, বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম, বাংলাদেশ বাসফোর (হরিজন) কল্যাণ পরিষদ, বাংলাদেশ দলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠী অধিকার আন্দোলন (বিডিইআরএম), নাগরিক সংগঠন জনউদ্যোগ এর আয়োজন করে।

বক্তারা বলেন, হরিজন জনগোষ্ঠীর নাবালিকা মেয়েকে প্রেমের অভিনয় করে স্থানীয় প্রভাবশালী মোতালেব টানা দেড় মাস পাশবিক নির্যাতনের পর পাঁচদিন আগে রাতের বেলা বাড়ির পাশে রাস্তায় ফেলে যায় তাকে। বিষয়টি জানাজানি হলে প্রতিবেশীরা আর বাড়িতে উঠতে দেয়নি নির্যাতিতাকে। ঠাঁই হয়নি নানার বাড়ি ডোমেরহাটেও। মেয়েটির মা-বাবা বাধ্য হয়ে মেয়েটিকে সাবেক ইউপি সদস্য হায়দারের বাড়িতে রেখে আসে তার মা। সেখানেও ইউপি সদস্য হায়দার, মতিন ও এক সবজি বিক্রেতা মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। খবর পেয়ে গোপনে মেয়েকে নিজের বাড়িতে নিয়ে আসে তার নির্যাতিতার মা। 

এলাকায় শালিস বৈঠকে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করেন ইউপি চেয়ারম্যান। বক্তারা আরো বলেন, বাংলাদেশে অত্যন্ত প্রান্তিক অবস্থায় রয়েছে হরিজন জনগোষ্ঠীর তাই ভিকটিম পরিবারের নিরাপত্তাসহ উক্ত ঘটনার সাথে যুক্ত সকল আসামীর বিরুদ্ধে যথাযথ আইনী ব্যবস্থাসহ শাস্তি নিশ্চিতের দাবী জানান। 

বাংলাদেশ রবিদাস ফোরামের সভাপতি সুনিল রবিদাসের সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন গাইবান্ধা জেলা বারের সাধারণ সম্পাদক ও আদিবাসী বাঙালি সংহতি পরিষদের আহবায়ক অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম বাবু, জাহাঙ্গীর কবির তনু, পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র জি.এম. চৌধুরী মিঠু, আদিবাসী বাঙালি সংহতি পরিষদের সদস্য সচিব ও অবলম্বনের নির্বাহী পরিচালক প্রবীর চক্রবর্তী, মানবাধিকার কর্মী অঞ্জলী রানী দেবী, বাংলাদেশ রবিদাস ফোরাম, বাংলাদেশ বাসফোর (হরিজন) কল্যাণ পরিষদের সভাপতি কৃর্তন বাসফোর, দলিত নেতা খিলন রবিদাস, কৈলাশ রবিদাস, দুঃখু রবিদাস, সভাপতি বিআরএফ,সুন্দরগঞ্জ উপজেলা, সুজন রবিদাস, নয়ন ভুঁইমালী, বাবলু রবিদাস, সুজন রবিদাস, টুকু রবিদাস, দিপলাল রবিদাস, অধীর রবিদাস, মনোজ প্রসাদ প্রমুখ।#

প্রজন্মনিউজ২৪/এফএম

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ