দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলা

বর্ষায় রাস্তার বেহাল দশা, ৪ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

প্রকাশিত: ১৩ জুন, ২০২১ ১২:০১:২০ || পরিবর্তিত: ১৩ জুন, ২০২১ ১২:০১:২০

বর্ষায় রাস্তার বেহাল দশা, ৪ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ


মোঃ নাজমুল ইসলাম, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার ৩নং শতগ্রাম ইউনিয়নের কেডিএস মোড় থেকে অর্জুনাহার যাওয়ার একমাত্র কাঁচা রাস্তাটি বেহাল দশা। তিন কিলোমিটার এই সড়কে এলাকাবাসীর দুর্ভোগের শেষ নেই। বৃষ্টি হলেই কাঁদা পানিতে চলাচলকারী মানুষকে জনদুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে। এ কাঁচা রাস্তা সংস্কারের কোনো পদক্ষেপ না থাকায় নিয়মিত চরম ভোগান্তীতে পড়ছেন এলাকাবাসী। 

কাঁচা রাস্তা বৃষ্টি হলেই একেবারে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। বৃষ্টির ফোঁটা পড়ার পরেই কাঁদা পানিতে একাকার হয়ে যায়। প্রচন্ড এ কাঁদায় চলতে গিয়ে অনেকেই পড়ে গিয়ে গন্তব্যে যাবার আগেই বাড়িতে ফিরে আসতে বাধ্য হয়। বর্ষার মৌসুমে এ রাস্তার করুন অবস্থা দেখার কেউ নেই। রাস্তাটি এই অঞ্চলের সবচেয়ে পুরোনো ও খুবই গুরুত্বপূর্ণ  একটা রাস্তা। এই রাস্তা দিয়ে চার গ্রামে ৫০ সহস্রাধিক মানুষের চলাচল। ভবানীপুর, অর্জুনাহার, খড়িকাদাম, বাংলা বাজার, কেডিএস মোড় ও ঝারুয়াপাড়া  গ্রামের চলাচলের একমাত্র এই রাস্তাটি কাঁচা। এই রাস্তা পাকা করার দাবি স্থানীয় এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের।

শিক্ষার্থীরা সময় মতো স্কুল কলেজে যেতে পারে না। স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করতে কাঁচা রাস্তা ব্যবহার করে অর্জুনাহার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আরাজী বোচাপুকুর উচ্চ  বিদ্যালয়, অর্জুনাহার বালিকা বিদ্যালয়, খড়িকাদাম  সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাংলা বাজার উচ্চ বিদ্যালয় ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাংলা বাজার হাফেজিয়া মাদ্রাসা, ঝাড়বাড়ী ডিগ্রী কলেজে প্রতিদিন যাতায়াত করতে হয়।

অসুস্থ্য রোগীকে হাসপাতালে সময় মতো নিতে না পারায় বড় ধরণের ক্ষতির আশঙ্কা থাকে। এই দুর্ভোগ থেকে মুক্তির আশায় বছরের পর বছর ভোগান্তীর স্বীকার এসব এলাকার জনসাধারণ স্থানীয়  চেয়ারম্যান এবং মেম্বারের কাছে আবেদন জানালেও রাস্তার কোনো উন্নয়ন হয়নি।

এ রাস্তাটি চার গ্রামের মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই রাস্তাটি পাকা করণে স্থানীয় এলাকাবাসী স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সুদৃষ্টি কামনা করছি, স্থানীয় এলাকাবাসীর অসুবিধা বিবেচনা করে কাঁচা রাস্তাটি উন্নয়নে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া জন্য জোর  দাবি জানাচ্ছি।#

প্রজন্মনিউজ২৪/এফএম

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ