সুন্দরবনকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার নির্দেশ মমতা ব্যানার্জীর

প্রকাশিত: ০৩ জুন, ২০২১ ০১:২৩:০৫

সুন্দরবনকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার নির্দেশ মমতা ব্যানার্জীর

সুন্দরবনের বেশিরভাগ অংশ বাংলাদেশের সীমানার মধ্যে পড়লেও কিছু অংশ পড়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গেও। পরপর কয়েকটি ঘূর্ণিঝড়ে সুন্দরবনের দুই অংশেই বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এবার সুন্দরবনকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার নির্দেশ দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী।

গতকাল বুধবার (২ জুন) নবান্নে একটি প্রশাসনিক বৈঠকে এ নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। ওই বৈঠকে রীতিমতো ছবি এঁকে প্রশাসনিক কর্তাদেরকে তা বোঝান মমতা।

ইয়াসের জেরে বিধ্বস্ত পশ্চিমবঙ্গের দিঘার পুরনো চেহারা ফিরিয়ে আনতে বর্ষার আগেই চূড়ান্ত প্রস্তুতি সেরে ফেলতে চায় রাজ্য সরকার। পাশাপাশি, দিঘার সৌন্দর্যায়নের কাজে ১০০ দিনের কাজ প্রকল্পের মাধ্যমে স্থানীয়দের নিযুক্ত করতেও প্রশাসনিক কর্তাদের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

বুধবার দুপুরে নবান্নে সেচ দফতরের কর্তাদের সঙ্গে একটি প্রশাসনিক বৈঠকে বসেন মমতা। বৈঠকে দিঘা, সুন্দরবন-সহ রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকাগুলিকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে যেতে যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে ইয়াসের জেরে দিঘার সমুদ্রসৈকতের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তা দ্রুত পুনরুদ্ধারে জোর দিয়েছেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর মতে, দিঘার সৌন্দর্যায়নের পরিকল্পনাটাই ভুল ছিল।

ইয়াসের তাণ্ডবের পর দিঘার সমুদ্র সৈকতের বোল্ডারগুলি উপড়ে পড়েছে। বহু বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়েছে। নষ্ট হয়ে গিয়েছে সৈকতে পর্যটকদের বসার চেয়ারগুলিও। যার জেরে সমুদ্রতটের হকারদের আয়ের রাস্তাও কার্যত বন্ধ। দিঘার সৌন্দর্য ফেরানোর পাশাপাশি হকারদের জন্য আবাসন দফতর ছাড়াও দিঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের সাহায্য নেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দিঘায় লাখ লাখ মানুষের উপার্জন হয়। সৈকতের হকারদের বাড়িগুলি নষ্ট হয়ে গিয়েছে। সেগুলি তৈরির জন্য আবাসন দফতর বা দিঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদকে কাজে লাগাতে হবে।#সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা।

প্রজন্মনিউজ২৪/ফাহাদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন