ঈদের উপহার না পাওয়ায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুকে হত্যা 

প্রকাশিত: ০৯ মে, ২০২১ ০৩:৫৫:৫৫

ঈদের উপহার না পাওয়ায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুকে হত্যা 

শ্বশুরবাড়ি থেকে পাঠানো ইফতারির সাথে বরের জন্য আলাদা করে আলাদা সাজারো থালা ও ঈদের নতুন কাপড় না দেওয়ায় হত্যা করা হয় সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে। শনিবার (৮ মে) সিলেটের ওসমানীনগরে এমন অভিযোগ উঠেছে নিহতের স্বামী ও স্বামীর পরিবারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় পুলিশ নিহতের স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করেছে। 

ওসমানীনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বনিক ঘটনা নিশ্চিত করেছেন। নিহত শরিফা বেগম (২০) নবীগঞ্জ উপজেলার শাকিম উল্লার মেয়ে। 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা, প্রায় ৯ মাস আগে উপজেলার মৃত ইছন আলীর পুত্র আরশ আলীর সাথে পারিবারিকভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন নবীগঞ্জ উপজেলার শাকিম উল্যার মেয়ে শরিফা। বিয়ের কিছু দিন পর যৌতুকসহ নানা অজুহাতে স্বামী আরশ আলী ও শাশুড়ি মিনারা বেগমের নির্যাতন বৃদ্ধি পেতে থাকে। নিজে অন্তঃসত্ত্বা থাকায় তাদের নির্যাতন সহ্য করে গর্ভের সন্তানের আলোর মুখ দেখাতে তাদের সকল নির্যাতন সহ্য করেই স্বামীর বাড়িতে পরে থাকেন শরিফা। চলতি রমজান মাসে তার বাবার বাড়ি থেকে ইফতারি দিতে দেরি করায় এবং ইফতারির সাথে বরের জন্য আলাদাভাবে সাজানো থালা না দেয়ায় অন্তঃসত্ত্বা শরিফার ওপর নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। শুক্রবার সন্ধ্যায় শরিফার বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ির লোকজনের জন্য ঈদের নতুন কাপড় না আনাকে কেন্দ্র করে শাশুড়ির সাথে কথা কাটাকাটির জের ধরে স্বামী ও শ্বাশুড়ি মিলে মারধর করেন শরিফাকে। এর কিছুক্ষণের মধ্যে বাবার বাড়িতে খবর দেওয়া হয় শরিফা আত্মহত্যা করে মৃত্যুবরণ করছে।


থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) শ্যামল বনিক বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। লাশের গায়ে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহতের স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/এসএ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন