মিয়ানমার ভারতকে চিঠি পাঠিয়েছে

প্রকাশিত: ০৭ মার্চ, ২০২১ ১১:০১:১২

মিয়ানমার ভারতকে চিঠি পাঠিয়েছে

সীমান্ত অতিক্রম করা পুলিশ কর্মকর্তাদের ফেরত চেয়ে ভারতকে চিঠি দিয়েছে মিয়ানমার। মিয়ানমারের ওই সব পুলিশ কর্মকর্তা সম্প্রতি জান্তা সরকারের নির্দেশ পালনে অস্বীকৃতি জানিয়ে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ভারতে পালিয়ে আসেন।

ভারতীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি মিয়ানমারের কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা ও তাঁদের পরিবারের সদস্যরা সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে প্রবেশ করেছে। এক চিঠিতে ‘বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে’ ওই সব পুলিশ কর্মকর্তাদের ফেরত পাঠাতে বলেছে মিয়ানমার। 

গত মাসে সামরিকবাহিনীর ক্ষমতা দখলের পর থেকে মিয়ানমারে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়। বিবিসির খবরে বলা হয়, বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে মিয়ানমারের নিরাপত্তাবাহিনী। নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত ৫৫ জন নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় গতকাল শনিবার মিয়ানমারের অন্যতম বড় শহর ইয়াঙ্গুনে ব্যাপক বিক্ষোভ করে আন্দোলনকারীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস, রাবার বুলেট ও স্ট্যান গ্রেনেড ছোড়ে। তবে প্রাথমিকভাবে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ভারতের মিজোরাম রাজ্যের ডেপুটি কমিশনার মারিয়া সিটি জুয়ালি আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ভারতে আসা পুলিশ কর্মকর্তাদের ফেরত চেয়ে মিয়ানমারের ফালাম জেলা থেকে তাঁকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের কাছে তথ্য আছে যে, তাদের দেশের অন্তত ৮ জন পুলিশ কর্মকর্তা সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে প্রবেশ করেছেন। চিঠিতে বলা হয়, ‘দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে, ওই ৮ জন পুলিশ কর্মকর্তা যারা ভারতের সীমানায় প্রবেশ করেছে; তাঁদের আটক করে মিয়ানমারের কাছে হস্তান্তর করতে আপনাদের অনুরোধ করা হলো।’

জুয়ালি বলেন, তিনি দিল্লি থেকে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছেন।

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, পুলিশ কর্মকর্তা ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের মিলিয়ে অন্তত ৩০ জন মিয়ানমারের নাগরিক ভারতের সীমানায় প্রবেশ করেন। তাঁরা ভারতের কাছে আশ্রয়ের আবেদন জানিয়েছেন।

ভারতীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল শনিবারও ভারতীয় সীমান্তে কয়েক হাজার মিয়ানমারের নাগরিক অপেক্ষা করছিলেন।

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ