ময়না তুমি আইও আমার বাড়িতে বইতে দেমু পিঁড়িতে 

প্রকাশিত: ০৪ মার্চ, ২০২১ ০৬:৪২:৪১

ময়না তুমি আইও আমার বাড়িতে বইতে দেমু পিঁড়িতে 

ময়না বাড়িতে এসেছেন তবে নিমন্ত্রণ ব্যতীত এসেছেন। সাথে বসতে চায় কাঠের নয় বিয়ের পিড়িঁতে। যার জন্য ময়না আসলেও প্রেমিককে আর পাওয়া যাচ্ছে না  বাড়িতে। এমনটিই ঘটেছে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ছাতিয়ান হাওড়াপাড়া এলাকায়। 

বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিকা ময়না (১৬) প্রেমিক আকাশের বাড়িতে আসায় বাড়ি পাওয়া যাচ্ছে না তাকে। বাওট গ্রামের আব্দুল বারির দশম শ্রেণী পড়ুয়া ময়না খাতুন অবস্থান করছেন আকাশের বাড়িতে। ময়না খাতুন আত্মহত্যা করেলে ফাসঁতে পারে পরিবারের অন্য সদস্যরা। তাই গত মঙ্গলবার (২ মার্চ) থেকে আজ (৪ মার্চ) পর্যন্ত ময়না খাতুনকে  চোখে চোখে  রাখছে আকাশের বাবা জহুরুল ইসলাম। 
   

ময়্না খাতুন বলেন, আকাশের সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক ৬ মাস। এরই মধো আমার পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথেও কথা বলেছেন আকাশ। ১১ দিন আগে আমাদের বাড়িতে গিয়ে মিটিয়েছে তার শারীরিক চাহিদাও। গ্রামবাসী আমাদের ধরে ফেলে , ফলে আমাকে বিয়ে করবে এই শর্তে ছাড়া হয় আকাশকে। ঘটনার পর থেকেই তার মোবাইল বন্ধ। তাই চলে এসেছি বাড়িতে। সে বিয়ে না করলে আত্মহত্যা ছাড়া আমার অন্য কোন থাকবে না। 


আকাশের বাবা জহুরুল ইসলাম বলেন, মেয়েকে আমার বাড়িতে আসতে দেখেই সে (আকাশ) পালিয়ে গেছে। আজ তিনদিন তার কোনো খোঁজ নেই। আমার ছেলেকে হাতের কাছে পেলে এই মেয়ের সাথে বিয়ে দিয়ে আমি বাঁচতাম।

স্থানীয় মাতব্বর শহিদুল ইসলাম বলেন, ময়না খাতুন ও আকাশকে আপত্তিকর অবস্থায় ধরে ফেলেছিল প্রতিবেশীরা। আমরা উভয়ের পরিবারের কর্তা ব্যক্তিদের নিয়ে এক জায়গায় বসে সমাধানের চেষ্টা করেছি। কিন্তু ব্যার্থ হয়েছি।


স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মতিয়ার রহমান জানান, দুই দিন ধরে মেয়েটি ছেলের বাড়িতে অনশন করছে। এসব ঘটনার কারণে আজ সামাজিক অবক্ষয় চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। বিষয়টি নিয়ে খুব শিগগিরই বসা হবে।

বিষয়টি স্থানীয় মাতব্বর ও জনপ্রতিনিধিদের কাজ। মেম্বার চেয়ারম্যানকে বিষয়টি সুরাহা করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তারপরও সমাধান না হলে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে জানান স্থানীয় থানার ওসি বজলুর রহমান।

প্রজন্মনিউজ২৪/এসএ 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন