বিএনপির সমাবেশ ঘিরে বিচ্ছিন্ন রাজশাহী, চরম দুর্ভোগে যাত্রীরা

প্রকাশিত: ০২ মার্চ, ২০২১ ১০:০৯:৩৫

বিএনপির সমাবেশ ঘিরে বিচ্ছিন্ন রাজশাহী, চরম দুর্ভোগে যাত্রীরা

রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ আজ মঙ্গলবার। এই সমাবেশ ঘিরে ‘হামলার আশঙ্কা’য় রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও নওগাঁ থেকে সব রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কোনো ধরনের পূর্বঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ করে বাস বন্ধ করে দেওয়ায় যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছে।

এদিকে চার দেয়ালের ভেতর বিএনপিকে বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে পুলিশ। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস গতকাল সোমবার এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘বিএনপি মধ্য শহরের রাস্তায় সমাবেশ করার অনুমতি চেয়েছিল। কিন্তু এসব এলাকায় সমাবেশ করলে মানুষের চলাচল বাধাগ্রস্ত হবে। তীব্র যানজট দেখা দেবে। এ জন্য মধ্য শহরে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। আমরা বলেছি, ইনডোরে সমাবেশ করতে হবে।’

রুহুল কুদ্দুস গতকাল দুপুরে বলেন, ‘রাজশাহীর মাদরাসা ময়দান সংলগ্ন নাইস কনভেনশন সেন্টারে বিএনপিকে সমাবেশ করতে বলা হয়েছে। তারা যেন প্রস্তুতি নিতে পারে, সে জন্য মৌখিকভাবে আগাম তাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন চিঠি ইস্যু হচ্ছে। সন্ধ্যার মধ্যে তাদের কাছে চিঠি পাঠানো হবে।’

ঘরোয়া সমাবেশের অনুমতি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘আমরা শহরের সাহেববাজার জিরো পয়েন্ট, মনিচত্বর, সোনাদীঘি বা গণকপাড়া এলাকায় সমাবেশের জন্য অনুমতি চেয়েছিলাম। কোথায় অনুমতি দেওয়া হচ্ছে, সেই চিঠি এখনো পাইনি। চিঠি পাওয়ার পর আমরা এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব।’

বাস বন্ধের বিষয়ে রাজশাহী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মতিউল হক টিটো বলেন, বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ ঘিরে তাঁরা সড়কে বিশৃঙ্খলা ও যানবাহনে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা করছেন। এই কারণে তাঁরা গতকাল সকাল থেকে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন।

এদিকে বিভাগীয় সমাবেশ উপলক্ষে রাজশাহীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে বিএনপি। নগরীর একটি কনভেনশন সেন্টারে এই সংবাদ সম্মেলনের

আয়োজন করা হয়। সেখানে মহানগর বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘সমাবেশ পণ্ড করতে বিভিন্নভাবে বাধা দেওয়া হচ্ছে। সকাল থেকে হঠাৎ রাজশাহী থেকে দেশের সব রুটের বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এর আগেও সমাবেশের আগমুহূর্তে এ রকম করা  হয়েছে। এর কারণ বিভাগীয় সমাবেশে যেন মানুষ না আসতে পারে। এটি বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ নস্যাৎ করার অপচেষ্টা।’

এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু ও অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশ ঘিরে রাজশাহী থেকে হঠাৎ বাস চলাচল বন্ধের কারণে দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা। তারা অনেকেই কাউন্টারে এসে ফিরে যাচ্ছে। কেউ কেউ বিকল্প পথে অন্য যানবাহনে পাড়ি জমাচ্ছে নিজ নিজ গন্তব্যের দিকে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আঞ্চলিক প্রতিনিধি জানান, কোনো ধরনের পূর্বঘোষণা ছাড়াই চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার সব ধরনের বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বাস মালিক সমিতি।

জেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট এ এফ এম লুত্ফর রহমান ফিরোজ বলেন, আজ পর্যন্ত বাস চলাচল বন্ধ থাকবে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান বলেন, ‘পুলিশের বাধায় বাস চলাচল বন্ধ হয়নি। নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে পুলিশ জেলার বিভিন্ন এলাকায় নিয়মিতই চেকপোস্ট বসিয়েছে। যানবাহন চলাচলে কোনো প্রতিবন্ধকতা বা সাধারণ মানুষের চলাচলে বাধা সৃষ্টির উদ্দেশ্য নেই।’

নওগাঁ প্রতিনিধি জানান, কোনো পূর্বঘোষণা ছাড়াই নওগাঁ-রাজশাহী রুটে সব ধরনের যাত্রীবাহী বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বাস মালিক সমিতি। এতে চরম বিপাকে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা।

বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আগামীকাল (মঙ্গলবার) রাজশাহী মহানগরীতে রাজনৈতিক সমাবেশ ডেকেছে বিএনপি। এরই মধ্যে বিভিন্ন যায়গায় গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। তাই বড় ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে ও ক্ষয়ক্ষতি থেকে বাঁচতে আগে থেকেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকবে।’

প্রজন্মনিউজ২৪/সাইফুল

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন