চসিক নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর ইশতেহার ঘোষণা

প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারী, ২০২১ ০৫:৩৫:৩৩

চসিক নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর ইশতেহার ঘোষণা

জলাবদ্ধতামুক্ত চট্টগ্রাম গড়াসহ ৯টি প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন।শনিবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীর জামালখান সড়কের একটি রেস্টুরেন্টে বিএনপি’র সিনিয়র নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে এই ইশতেহার ঘোষণা করেন তিনি।
ইশতেহার ঘোষণায় বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘আমি রাজনীতিতে নিজেকে নেতা নয়, কর্মী মনে করি। চসিক নির্বাচনে আমি নগর পিতা নয়, সেবক হতে চাই।
তার নির্বাচনী ইশতেহারে রয়েছে: জলাবদ্ধতামুক্ত চট্টগ্রাম, স্বাস্থ্য ও শিক্ষাবান্ধব, গৃহ কর ও আবাসন সুবিধা সম্বলিত চট্টগ্রাম, পরিচ্ছন্ন, নিরাপদ ও সাম্য-সম্প্রীতির চট্টগ্রাম, নান্দনিক পর্যটন নগর এবং তথ্য প্রযুক্তিসমৃদ্ধ চট্টগ্রাম গড়া।
’ 
চট্টগ্রাম মহানগরীকে একটি জলাবদ্ধতামুক্ত নগরী হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ডা. শাহাদাত বলেন, ‘নির্বাচিত হলে স্বাস্থ্যকর চট্টগ্রাম, সাম্য সম্প্রীতির চট্টগ্রাম, শিক্ষা বান্ধব পর্যটন নগরী, শিক্ষাবান্ধব পরিচ্ছন্ন চট্টগ্রাম নগরী হিসেবে গড়ে তুলবো।’
বিএনপি মেয়র প্রার্থী শাহাদাত বলেন, ‘বিএনপি থেকে তাকে মনোনয়ন দেওয়া হলেও পেশাজীবীদের সমন্বয়ে গঠিত ‘চট্টগ্রাম নাগরিক ঐক্য পরিষদ মেয়র পদে তাকে সমর্থন দিয়েছেন।’
শাহাদাত বলেন, ‘আমি মানব সেবার অন্যতম মাধ্যম হিসেবে চিকিৎসা সেবাকে পেশা হিসেবে নিয়েছি। রাজনীতি করছি অসহায় আর নিপীড়িত মানুষের পাশে থাকতে।’
নির্বাচিত হলে চট্টগ্রাম নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে নগরীর খাল নালা নর্দমা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পুনরুদ্ধার ও সংস্কার করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। নাগরিকদের জন্য বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা, স্মার্ট বাস স্টপ নির্মাণ, নগরীর সড়কে সাইকেলের জন্য আলাদা লেন, বেকার যুবকদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি, যানজটমুক্ত পরিবেশ বান্ধব এবং বাস্তব অর্থে সমৃদ্ধ বাণিজ্যিক রাজধানী হিসেবে গড়ে তোলারও প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।
বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ডা. শাহাদাত নির্বাচনি ইশতেহারে আরও বলেন, ‘চট্টগ্রাম নগরবাসীর ভোটে আমি নির্বাচিত হলে তথ্য প্রযুক্তি সমৃদ্ধ নান্দনিক পর্যটন নগরী গড়ে তোলা-ই আমার লক্ষ্য।’
ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিরি সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ বিএনপির কেন্দ্রীয় এবং চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আগামী ২৭ জানুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, ৪১ জন কাউন্সিলর ও ১৪ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভোট গ্রহণ চলবে। এ জন্য ৭৩৫ টি ভোট কেন্দ্র ও ৪ হাজার ৮৮৬টি ভোটকক্ষ নির্ধারণ করা হয়েছে।
প্রজন্মনিউজ২৪/আববাস আলী

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ