মোস্তাফিজ কি এখন শুধুই কাটার মাস্টার

প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারী, ২০২১ ১০:৫০:৩১

মোস্তাফিজ কি এখন শুধুই কাটার মাস্টার

নামটা নিশ্চয়ই মোস্তাফিজুর রহমানের পছন্দ হওয়ার কথা নয়। এক ‘কাটার’ কখনোই মোস্তাফিজের মানের বোলারের পরিচয় হতে পারে না। ক্যারিয়ারের শুরুতে এই কাটার দিয়েই ক্রিকেট দুনিয়ায় কাঁপন ধরিয়েছিলেন।

একসময় সেই কাঁপুনি থামে, থেমে যায় মোস্তাফিজের দাপটও। এক কাটার ও লেংথ থেকে বেরিয়ে যাওয়া স্টক ডেলিভারি দিয়ে আর কত দিন? বিশ্বের বাঘা বাঘা বিশ্লেষকেরা তো আর বসে থাকেন না। আর চোটের বাধা তো আছেই। সব মিলিয়ে শুরুর সেই জাদু মিইয়ে গেলেও ‘কাটার মাস্টার’ নামটা থেকে মোস্তাফিজ বের হয়েই আসতে পারেননি।

মোস্তাফিজের ক্যারিয়ারের দুই বছরের মাথায় ঠিক তা–ই হয়, যা হওয়ার ছিল। ব্যাটসম্যানরা মোস্তাফিজকে লেগ সাইডে খেলা বন্ধ করে দিলেন। কাটারের অপেক্ষা করে গতি মেশানো বলগুলো অফ সাইডে ঠেলে খেলা শুরু করলেন। মোস্তাফিজের উইকেটও কমে যেতে শুরু করল।

যেকোনো ভালো বোলার এমন জায়গায় থেকে ফেরার জন্য নিজের বোলিংয়ে নতুন অস্ত্র যোগ করেন। মোস্তাফিজও তা-ই করলেন। নিজের বোলিংয়ে গতিময় বাউন্সার যোগ করে সাফল্য পান। তবে সেটা ইনিংসের মাঝ থেকে শেষের ওভারে। ২০১৯ বিশ্বকাপে বাউন্সারে প্রচুর উইকেট নেন এই বাঁহাতি পেসার। ইনিংসের মাঝ থেকে শেষের সময়টা যে তিনি বিশ্বের অন্যতম সেরা বোলার, সেটির প্রমাণ পাওয়া যায় সেই বিশ্বকাপেই।

কিন্তু শুধু ইনিংসের দুই অবস্থার বোলার হলে তো টিকে থাকা যায় না। তাঁকে হতে হবে তিন অবস্থার বোলার। শুরুতে, মাঝে এবং শেষেও তাঁকে হতে হবে সমান পারদর্শী। ইনিংসের প্রতি পর্যায়ে হতে হবে সমান ভীতিকর। শুরুতে বোলিংয়ের জন্য যা দরকার তা অবশ্য মোস্তাফিজের ছিল না, যা মিচেল স্টার্ক, ট্রেন্ট বোল্ট, শাহিন শাহ আফ্রিদির মতো বোলারদের আছে। এদের সবাই নতুন বলটা ডানহাতি ব্যাটসম্যানের ক্ষেত্রে ভেতরে ঢোকাতে সক্ষম।

বলটা ভেতরে আনার দক্ষতা না থাকায় মোস্তাফিজকে ২০২০–এর শুরুতে টেস্ট দল থেকে বাদ দেওয়া হয়। সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, লাল বলে খেলতে হলে থাকতে হবে এই গুণ। এরপর যেন ঘুম ভাঙে এই পেসারের। পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসনের দেখিয়ে দেওয়া পথে সাধনা শুরু হয় মোস্তাফিজের। গত বছর মার্চেও জিম্বাবুয়ে সিরিজে নতুন বলে বোলিং করছিলেন না মোস্তাফিজ।

করোনার লম্বা বিরতির পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচেই চমক। সাদা চকচকে নতুন কুকাবুরা বলটাকে স্বাচ্ছন্দ্যে ডানহাতি ব্যাটসম্যানদের ভেতরে আনছেন মোস্তাফিজ! এক ডেলিভারিতেই যেন সব বদলে গেল।

ব্যাটসম্যান এখন ভাবছে ভেতরে আসা বল নিয়ে। একই জায়গা থেকে বেরিয়ে যাওয়া বলটাও এখন আগের মতো চাইলেই আগের মতো চোখ বন্ধ করে খেলা সম্ভব না। কারণ, একই জায়গা থেকে বলটা ভেতরেও আসছে। থাকছে এলবিডব্লু ও বোল্ড হওয়ার ভয়। আগে শুধু মোস্তাফিজের বেরিয়ে যাওয়া বল নিয়ে ভাবলেই চলত। এখন ভাবতে হচ্ছে ভিন্নভাবে। আগে যেখানে শুধু কট বিহাইন্ডের ভয় থাকত, এখন সেখানে যোগ হচ্ছে অন্য দুই আউটের ভয়ও।

প্রথম ম্যাচে যেমন ওয়েস্ট ইন্ডিজ ওপেনার সুনীল অ্যামব্রিস আউট হন লেংথ থেকে ভেতরে আসা বলে। কাল দ্বিতীয় ওয়ানডেতে একই জায়গা থেকে বেরিয়ে যাওয়া বলে পয়েন্টে ক্যাচ আউট সেই অ্যামব্রিসই। তিনি ভেবেছিলেন আগের ম্যাচের মতোই বলটা আসবে ভেতরে। ব্যাটের মুখ বন্ধ করে লেগ সাইডে খেলার চেষ্টা করেন সেই কারণেই। কিন্তু বল বেরিয়ে যাওয়ার সময় অ্যামব্রিসের ব্যাটের কাঁধ ছুঁয়ে যায় পয়েন্ট ফিল্ডারের হাতে।

শুধু একটা বলের কারণেই ব্যাটসম্যানের মনে এত জটলা! এই এক বলই মোস্তাফিজের ‘কাটার মাস্টার’ নামটা মুছে দিচ্ছে।

এখন কি আর মোস্তাফিজকে শুধুই ‘কাটার মাস্টার’ বলা যায়?

প্রজন্মনিউজ২৪/সাইফুল

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন