বাংলাদেশের বিপক্ষে কেমার রোচের বাড়তি উন্মাদনা-উত্তেজনা কাজ করে

প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারী, ২০২১ ১১:১২:৪৪

বাংলাদেশের বিপক্ষে কেমার রোচের বাড়তি উন্মাদনা-উত্তেজনা কাজ করে

 

টেস্ট অভিষেকের মুহূর্তটি প্রায় প্রত্যেক ক্রিকেটারের কাছে অবিস্মরণীয় স্মৃতি হয়ে থাকে। সময়ে সময়ে তাতে ডুব দিয়ে অন্য কোনো সুখের ভুবনে যেন হারিয়ে যাওয়া যায়! কেমার রোচের ক্ষেত্রেও অভিজ্ঞতাটা ব্যতিক্রম নয়। এক যুগ আগের ঘটনাটা মনে করিয়ে দিতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই পেসারের মুখে ফুটল হাসি। জানালেন, বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচে ‘স্পেশাল’ অনুভূতি হয় তার।

কেন? ২০০৯ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক হয়েছিল ডানহাতি রোচের। কিংসটাউনে ওই ম্যাচে ৬ উইকেট শিকার করেন তিনি। তাই বাংলাদেশের বিপক্ষে সাদা পোশাকে খেলতে নামলে, এখনও অন্তরে বাড়তি উন্মাদনা-উত্তেজনা কাজ করে তার। শুক্রবার ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজের (সিডাব্লিউআই) এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ (স্পেশাল অনুভূতি)। আমি তাদের বিপক্ষে শুরু করেছিলাম। সেটা অবশ্য নিজেদের মাটিতে ছিল। আমি বেশ কয়েকবার বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলেছি। ওয়ানডে ও টেস্টে দুটোতেই। তারা সবসময় ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা উপহার দেয়। তারা মানসিকভাবে বেশ শক্ত একটা দল। ভালো করতে তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে থাকে। কিন্তু আমি নিজেদের দিকে মনোযোগী থাকার কথাই বলব। মাঠে একটি দল হিসেবে নামতে হবে এবং দারুণভাবে শুরু করতে হবে।’

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে উইন্ডিজের প্রথম সারির অধিকাংশ ক্রিকেটার আসেননি বাংলাদেশ সফরে। ঢাকায় পা রাখার পর হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র আক্রান্ত হয়েছেন করোনায়। তাই স্বাভাবিকভাবেই শক্তির বিচারে পিছিয়ে থাকছে ক্যারিবিয়ানরা। তবে বাংলাদেশের বিপক্ষে ৮ টেস্টে ৩৩ উইকেট নেওয়া রোচ জানান, পরিকল্পনা অনুসারে এগোতে পারলে তারা পকেটে পুরতে পারবেন সিরিজ, ‘বাংলাদেশে ফাস্ট বোলারদের জন্য উইকেট নেওয়া কঠিন। কিন্তু আমি মনে করি, আমি যদি ঠিকভাবে পরিকল্পনা করি আর সেগুলো কাজে লাগাতে পারি... আমি যতটুকু পারি, তা করার চেষ্টা করব। অবশ্যই, দলকে জেতাতে সাহায্য করার চেষ্টা করব। কারণ, আমাদের জন্য জয় খুব গুরুত্বপূর্ণ।’

‘আমাদেরকে (পেসারদের) আমাদের কাজটা করতে হবে। আমাকে আর শ্যাননকে (গ্যাব্রিয়েল)। আলজারিও (জোসেফ) আছে। স্পিনারদেরকে অবশ্যই বড় দায়িত্ব পালন করতে হবে। কিন্তু আমি মনে করি, আমরা (পেসাররা) যেটাতে সবচেয়ে ভালো অর্থাৎ উইকেট নেওয়া, সেটা যখন আমরা করব, পুরো দল তাতে সাহায্য পাবে। এতে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করাও সহজ হবে।’

 

বাংলাদেশের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে বিপদের কারণ মনে করছেন ৩২ বছর বয়সী রোচ। তবে প্রতিপক্ষকে নিয়ে মাথা ঘামিয়ে বাড়তি চাপে না পড়ে অনভিজ্ঞ দল নিয়েই সেরাটা নিংড়ে দেওয়ার চাওয়া তার, ‘আমার মতে, তারা বেশ ভালো দল। (তামিম) ইকবাল রয়েছে। সে খুবই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। সাকিব (আল হাসান) ফিরে এসেছে। মুশফিকুর (রহিম) বরাবরই একজন ভালো ব্যাটসম্যান। মাহমুদউল্লাহও। তাদের দলে বড় বড় কিছু নাম রয়েছে। কিন্তু আমি যা বলতে চাই তা হলো, আমরা কেবল নিজেদের দিকে ফোকাস রাখছি। আর মাঠে যা করার, সেটাই করব।’

উল্লেখ্য, মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে দুদলের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০ ও ২২ জানুয়ারি। সিরিজের শেষ ওয়ানডে মাঠে গড়াবে ২৫ জানুয়ারি। ওই ম্যাচের ভেন্যু চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম। একই ভেন্যুতে সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু হবে ৩ ফেব্রুয়ারি। আর ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে দ্বিতীয় টেস্ট মাঠে গড়াবে মিরপুরে।

প্রজন্মনিউজ২৪/সাইফুল

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ