ভয়ঙ্কর নতুন ব্যালিস্টিক মিসাইল দেখাল উ.কোরিয়া, উত্তেজনায় যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত: ১৫ জানুয়ারী, ২০২১ ১১:২২:০৯

ভয়ঙ্কর নতুন ব্যালিস্টিক মিসাইল দেখাল উ.কোরিয়া, উত্তেজনায় যুক্তরাষ্ট্র

আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যেই ভয়ঙ্কর নতুন ক্ষেপণাস্ত্র দেখাল উত্তর কোরিয়া। নতুন এই ব্যালিস্টিক মিসাইল সাবমেরিন থেকে নিক্ষেপযোগ্য, যেটিকে ‘বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী মারণাস্ত্র’ হিসেবে বর্ণনা করেছে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম।

বৃহস্পতিবার রাতে কিম ইল স্কয়ারের ওই প্যারেডে কালো চামড়ার কোট পরিহিত অবস্থায় দেখা গেছে উল্লসিত কিমকে। তার হাতে ছিল গ্লাভস, মাথায় হ্যাট।

প্রতিবেদনে বলা হয়, একাধিক ক্ষেপণাস্ত্রসহ একটি প্যারেড পরিদর্শন করেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন। সেখানে নতুন এ ব্যালিস্টিক মিসাইল দেখা যায়। স্বল্প-দূরত্বের এই ব্যালিস্টিক মিসাইল আগে দেখা যায়নি।

মার্কিন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অভিষেকের কয়েকদিন আগে এ সামরিক মহড়া দিল উত্তর কোরিয়া। এ মহড়ার আগে এক রাজনৈতিক সভায় কিম যুক্তরাষ্ট্রকে তার দেশের ‘সবচেয়ে বড় শত্রু’ হিসেবে আখ্যা দেন।

রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনএ’র প্রকাশ করা ছবিতে দেখা যাচ্ছে, অন্তত বড় আকারের সাদা কালো রংয়ের চারটি ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শিত হয়েছে ওই প্যারেডে। সেখানে অসংখ্য মানুষ পতাকা উড়িয়ে এ প্রদর্শনীকে স্বাগত জানায়।

উল্লেখ্য, গত জুন মাসে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-আন'এর বৈঠকের পর দু'জনই পারমাণবিক অস্ত্র তৈরীর কার্যক্রম কমিয়ে আনার বিষয়ে একমত হন। ঐ বৈঠকের পর মি. ট্রাম্প বলেন উত্তর কোরিয়া এখন আর 'পারমাণবিক হুমকি' নয়।

এর আগে অক্টোবরে সাবমেরিন থেকে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র পুকগুকসং-৪ প্রকাশ করেছিল উত্তর কোরিয়া। নতুন প্রদর্শিত পুকগুকসং-৫ আগেরটির চেয়েও উন্নত বলে জানা যাচ্ছে।

ক্যালিফোর্নিয়া ভিত্তিক জ্যামস মার্টিন সেন্টার ফর ননপ্রোলিফেরাশন স্টাডিজের গবেষক মিখায়েল ডুইটসম্যান বলেন, নতুন ক্ষেপণাস্ত্রটি দেখতে অনেক লম্বা।

কার্নেগি এনডমেন্ট ফর ইন্টারন্যাশনাল পিসের নিউক্লিয়ার পলিসি প্রোগ্রামের গবেষক অঙ্কিত পান্ডা জানান, প্যারেডে যে ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রদর্শিত হয়েছে সেটি নতুন এবং আগে দেখা যায়নি।

গতবছরও বেশ কয়েকটি মিসাইল পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া-
১২ই ফেব্রুয়ারি ২০১৭:পশ্চিম উপকূলের বানঘিওন বিমান ঘাঁটি থেকে মধ্যম পাল্লার একটি ব্যালিস্টিক মিসাইল ছোঁড়া হয়, যেটি পূর্বদিকে জাপান সমুদ্রের দিকে ৫০০ কিলোমিটারের মত দূরত্ব অতিক্রম করে।

৪ঠা জুলাই ২০১৭:প্রথমবারের মত সফল আন্ত:মহাদেশীয় ব্যালিস্টিক মিসাইল পরীক্ষা চালানোর ঘোষণা দেয় পিয়ংইয়ং। কর্মকর্তারা দাবী করেন এটি ২,৮০২ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত ওঠে এবং ৩৯ মিনিট ধরে উড্ডীয়মান থাকে।

২৯শে আগস্ট ২০১৭:উত্তর কোরিয়ার দাবী অনুযায়ী, জাপানের ওপর দিয়ে প্রথম পারমাণবিক শক্তিসম্পন্ন ব্যালিস্টিক মিসাইল ক্ষেপণ করা হয়। পিয়ংইয়ং'এর কাছ থেকে ক্ষেপণ করা এই মিসাইলটি ৫৫০ কিলোমিটার উচ্চতায় ওঠে।

১৫ই সেপ্টেম্বর ২০১৭: দ্বিতীয়বারের মত জাপানের ওপর দিয়ে ব্যালিস্টিক মিসাইল ক্ষেপণ করা হয় যা হোক্কাইডো সাগরে গিয়ে পড়ে। এই মিসাইলটি ৭৭০ কিলোমিটার উচ্চতায় ওঠে এবং ৩,৭০০ কিলোমিটার দূলত্ব অতিক্রম করে।

২৯শে নভেম্বর ২০১৭: উত্তর কোরিয়ার দাবী অনুযায়ী তারা নতুন ধরণের একটি আন্ত:মহাদেশীয় ব্যালিস্টিক মিসাইলের সফল পরীক্ষা চালায় যা যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখন্ডে আঘাত করতে সক্ষম। জাপানের কাছে সাগরে হুয়াসং-১৫ মিসাইলটি পতিত হলেও আগের যে কোনো উত্তর কোরিয়ান মিসাইলের চেয়ে বেশী উঁচুতে ওঠে। সূত্র: বিবিসি।

প্রজন্মনিউজ২৪/ফাহাদ
 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ