অপহরণের ৭ দিন পর সাভারে গার্মেন্টস শ্রমিকের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ০৩ জানুয়ারী, ২০২১ ১২:১২:৩৩

অপহরণের ৭ দিন পর সাভারে গার্মেন্টস শ্রমিকের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

অপহরণের সাত দিন পরে সাভারে সাজেদুল ইসলাম (১৮) নামে এক গার্মেন্টস শ্রমিকের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

উপজেলার তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের ঝাউচরের ধলেশ্বরী নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, নাটোর জেলার নলডাঙ্গা থানার বাশিলা মধ্যপাড়া এলাকার মোস্তাক শাহ’র ছেলে বাবা-মার সাথে তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের হরিণধরা এলাকার ঈমান আলীর বাড়িতে ভাড়া থাকে।সে স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করে আসছিলেন।পরে তার সাথে কিছু দিন আগে পরিচয় হয় হরিণধরা এলাকার পেশাদার ছিনতাইকারী কাদের মিয়ার ছেলে মিলন (২৪), খোকন মিয়ার ছেলে শাওন (২২), ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে ইমনের সাথে (২৩)।এসময় তিন ছিনতাইকারী হরিণধরা ও বাগবাড়ি মোড় এলাকায় বিভিন্ন গার্মেন্টস শ্রমিকসহ নানা বয়সী মানুষের কাছ থেকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে টাকা-পয়সা ও মোবাইল ফোন ছিনতাই করলে গার্মেন্টস সাজেদুল ইসলাম প্রতিবাদ করে।এতে ওই তিন ছিনতাইকারী তাকে হত্যার পরিকল্পনা করে।পরে গত ২৮ ডিসেম্বর পোশাক কারখানা ছুটির পরে সাজেদুল ইসলাম বাড়ি ফিরলে ছিনতাইকারীরা তাকে কৌশলে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে অপহরণ করে। এক পর্যায়ে তাকে ছুরিকাঘাতে ও কুপিয়ে হত্যা করে লাশ বস্তায় ভরে ইট দিয়ে বেধে গুম করার জন্য ঝাউচর এলাকার ধলেশ্বরী নদীতে ফেলে দেয়।

এদিকে, ঘটনার পর নিহতের মা সাজেদা বেগম তিন ছিনতাইকারীর নামে সাভার মডেল থানায় একটি অপহরণের লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ শনিবার  উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে ছিনতাইকারী মিলনকে আটক করে। তাকে সঙ্গে নিয়ে ভোর রাতে নদী থেকে ইট দিয়ে বাধা সাজেদুলের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠায়।

অন্যদিকে, সাভারের জামসিং এলাকায় ফজলুল হকের ছেলে মিলন মিয়াকে (২০) হত্যার রহস্য উৎঘাটন করেছে সাভার মডেল থানা পুলিশ।এ ঘটনায় পুলিশ হত্যাকারী জামসিং এলাকার আব্দুর রবের ছেলে বাবু মিয়াকে (২৩) আটক করেছে।সাভার থানার ওসি এ এফ এম সায়েদ জানান, গত এক মাস আগে ঝগড়ার জের ধরে মিলন মিয়াকে হত্যার পরিকল্প করেন তার প্রতিবেশী বাবু, ইমন, রাজন, জয় ও সুমন নামের পাঁচ যুবক।পরে তিন ডিসেম্বর, প্রকাশ্যে জামসিং এলাকায় মিলন মিয়াকে কুপিয়ে হত্যা করে ওই পাঁচ যুবক।এরপর থেকে হত্যাকারীরা বাড়ি ঘরে তালা ঝুলিয়ে পালিয়ে যায়।পরে নিহত যুবকের বাবা ফজলুল ইমন মিয়াকে প্রধান আসামি করে আরো অজ্ঞাত ব্যক্তিদের নাম উল্লেখ করে সাভার মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করলে পুলিশ আসামিদের আটক করতে অভিযানে নামে। শনিবার ধামরাইর বাথুলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে হত্যাকারী বাবুকে আটক করে পুলিশ।এসময় হত্যাকারী বাবু, মিলনকে হত্যার কথা শিকার করে পুলিশের কাছে জবাববন্দি দিয়েছে।

প্রজন্মনিউজ২৪/হারুন

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ