তাপসীর হাত, পায়ে আঘাতের চিহ্ন কেন

প্রকাশিত: ২৩ নভেম্বর, ২০২০ ১০:১৮:২৯

তাপসীর হাত, পায়ে আঘাতের চিহ্ন কেন

‘থাপ্পড়’ ছবির সফলতার পর এক বড়সড় চমক দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাপসী পান্নু। এই বলিউড নায়িকা এখন দিনরাত এক করে মাঠে ঘাম ঝরাচ্ছেন। তাপসী তাঁর আগামী ছবি ‘রশ্মি রকেট’–এর জন্য কঠিন প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন তিনি।

‘রশ্মি রকেট’–এর জন্য কঠিন প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন তাপসীইনস্টাগ্রামএই ছবিতে তাপসীকে দেখা যাবে বিশ্ববিখ্যাত এক দৌড়বিদের চরিত্রে। আর সে জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন এই বলিউড অভিনেত্রী। শনিবার তাপসী তাঁর ইনস্টাগ্রামে বেশ কিছু ছবি পোস্ট করেছেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে, এই বলিউড অভিনেত্রী হপিং, স্কিপিং আর দৌড়ানোর প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। তাপসীর সঙ্গে আছেন তাঁর প্রশিক্ষক।

ট্রেনিংয়ের ছবিগুলো শেয়ার করে তিনি ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘হপ, স্কিপ, রানের পুনরাবৃত্তি। আমার হাতে, পায়ে যে কালশিটে দাগ দেখতে পারছেন, তা কোনো নারকীয় হামলার জন্য নয়। কেউ আমাকে আঘাত করেনি। ট্রেনিংয়ের কারণে আমার পেশির ওপর এই দাগ পড়েছে।’
জানা গেছে, চরিত্রের প্রয়োজনে তাপসী বিশেষ ডায়েট মেনে চলছেন। সাধারণত দৌড়বিদেরা এ ধরনের খাদ্যতালিকা মেনে চলেন।

শুটিং শুরুর আগে তাপসী ঘুরে এসেছেন মালদ্বীপ থেকেইনস্টাগ্রাম

প্রথম আলোর মুম্বাই প্রতিনিধিকে এক সাক্ষাৎকারে তাপসী ‘রশ্মি রকেট’ ছবির প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘আমি এই ছবিকে ঘিরে দারুণ উচ্ছ্বসিত। পর্দায় রশ্মি হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে এখন থেকেই মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছি। জানি আমাকে অনেক কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। অনেক চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। আর সে জন্য আমি প্রস্তুত। শিগগিরি শুরু হবে ট্রেনিং।’

‘রশ্মি রকেট’ ছবিতে তাপসী গুজরাটের কচ্ছ গ্রামের ‘রশ্মি’ নামক এক মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন। দৌড়বিদ হিসেবে রশ্মির খ্যাতি গ্রামের সীমানা ছাড়িয়ে পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছিল। রশ্মির জীবনের ওপর নির্মিত এই বায়োপিক পরিচালনা করছেন আকাশ খুরানা। ২০২১ সালে মুক্তি পাবে ছবিটি।

তাপসীকে শেষ বড় পর্দায় দেখা গেছে অনুভব সিনহা পরিচালিত ‘থাপ্পড়’ ছবিতে। এই ছবিতে তাপসীর দুর্দান্ত অভিনয় দারুণভাবে প্রশংসিত হয়েছে। এশিয়া থেকে সেরা ছবির মনোনয়নে উঠে এসেছে এই ছবির নাম।

‘থাপ্পড়’ ছাড়াও ভারতীয় ছবি হিসেবে ‘ছপাক’ ও ‘শুভ মঙ্গল জ্যাদা সাবধান’–এর নামও আছে এ তালিকায়। এর আগে ভারত থেকে ‘দঙ্গল’ সেরা এশিয়ান সিনেমার পুরস্কার জিতেছিল। দ্য অস্ট্রেলিয়ান একাডেমি অব সিনেমা অ্যান্ড টেলিভিশন আর্টস অ্যাওয়ার্ড (এএসিটিএ) থেকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়।

প্রজন্মনিউজ২৪/নাজমুল

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ