দ্বীপাক্ষিক কমিটি আসছে হেফাজতে ইসলামে

প্রকাশিত: ১৮ নভেম্বর, ২০২০ ০৩:১২:০৬ || পরিবর্তিত: ১৮ নভেম্বর, ২০২০ ০৩:১২:০৬

দ্বীপাক্ষিক কমিটি আসছে হেফাজতে ইসলামে দ্বীপাক্ষিক কমিটি আসছে হেফাজতে ইসলামে

আল্লামা শাহ্ আহমদ শফীর মৃত্যুর পর দেশের আলোচিত ও অন্যতম প্রভাবশালী অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে ১৫ নভেম্বর। অবশ্য তার আগেই সংগঠনের ভেতরে টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়, যা দিনে দিনে স্পষ্ট হয়েছে। কমিটি ঘোষণার পর দ্বন্দ্ব চলে এসেছে আরো প্রকাশ্যে। এবার পাল্টা কমিটি করার ঘোষণা এসেছে পদবঞ্চিত গ্রুপের পক্ষ থেকে।

দুই দলে ভাগ হয়ে পড়া হেফাজতে ইসলামের এক ভাগে রয়েছেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর নেতৃত্বে সিংহভাগ নেতারা। অন্যভাগের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা আমির প্রয়াত আল্লামা শাহ আহমদ শফীর ছেলে আনাস মাদানী। গত ১৫ নভেম্বর সম্মেলনের মাধ্যমে বাবুনগরীকে আমির এবং কাসেমীকে মহাসচিব করে যে কমিটি ঘোষিত হয়েছে তা প্রত্যাখান করেছেন আনাসপন্থীরা।

নতুন কমিটি ঘোষণার পর আনাসপন্থীরা ইতোমধ্যেই একটি বৈঠক করেছেন। সেখান থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন কমিটিকে ‘অবৈধ’ আখ্যা দেওয়া হয়েছে। আসছে শনিবার তারা ঢাকায় একটি বৈঠক ডেকেছেন, হুমকি দিয়েছেন নতুন কমিটি ঘোষণার। তবে এ নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন সদ্য ঘোষিত কমিটির নেতারা। তারা বলছেন, আমরা মোটেও চিন্তিত নই।

হেফাজতের অধিকাংশ নেতা বলছেন, শাপলা চত্বরের ঘটনার পর থেকে বিভিন্ন ইস্যুতে আল্লামা শফীর সঙ্গে বাবুনগরীর মতবিরোধ তৈরি হয়। তৎকালীন আমির আল্লামা শফী ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের দিকে যেভাবে ঝুঁকে পড়েছেন, মহাসচিব বাবুনগরী সেভাবে চাননি। বিষয়টি ইতিবাচকভাবে না নেয়ায় হেফাজতের বড় অংশ বর্তমানে বাবুনগরীর অবস্থানকে সমর্থন দেন।

প্রজন্মনিউজ২৪/নাজমুল

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ












ব্রেকিং নিউজ