নোবিপ্রবির সেশনজটে ভুগছে শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর, ২০২০ ১২:২০:৪৮ || পরিবর্তিত: ১৭ অক্টোবর, ২০২০ ১২:২০:৪৮

ফাহাদ হোসেন, নোবিপ্রবি প্রতিনিধি : এক বুক আশা ও স্বপ্ন নিয়ে একজন শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়। চার বছরের অনার্স পড়াশোনা শেষে চাকরি বাজারে প্রবেশ করে পরিবারের হাল ধরার স্বপ্ন থাকে অনেক শিক্ষার্থীর। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক সেশনজটের মধ্যে আটকা পড়ে সে স্বপ্ন এখন কেবল স্বপ্নই থেকে যাচ্ছে। ফলে, শিক্ষার্থীদের মাঝে  তৈরি হয়েছে নিজেদের ভবিষ্যৎ নিয়ে চরম হতাশা ও অনিশ্চয়তা।

এমনই ঘটনা দেখা গিয়েছে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) ৫ বিভাগের ছাএ ছাএীদের মধ্যে।

খবর নিয়ে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের বেশিরভাগ বিভাগে ইতিমধ্যে অনার্সের সকল একাডেমিক কার্যক্রম ও চূড়ান্ত ফলাফলও প্রকাশিত হয়েছে।

আবার কিছু কিছিু বিভাগের মাস্টার্স ক্লাসের ১ম সেমিষ্টার ও প্রায় শেষের পথে, কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ে একই সেশনের শিক্ষার্থী হয়ে ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগ, পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যস্থাপনা বিভাগ,ইংরেজী বিভাগ, অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগ এবং জৈবপ্রযুক্তি ও জীন প্রকৌশল বিভাগের ফাইনাল সেমিস্টারের পরীক্ষা এখন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় নি।

এ সকল বিভাগের শিক্ষার্থীরা জানেও না তারা কবে পরীক্ষায় বসতে পারবে, আর কবেই বা চুড়ান্ত ফলাফল হাতে পাবে। এদিকে ১ বছরের জুনিয়র হওয়ার পরও ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ এবং ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ  একই সেমিষ্টারে অবস্থান করছে।

অনেক শিক্ষার্থী পরিবার এর মুখ্য ব্যক্তি হওয়াতে তারা ভবিষ্যৎ নিয়ে চরম অনিশ্চয়তায় ভুগছে। গ্রাজুয়েশন শেষ না হওয়ায় সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা গুলোতে অংশ নিতে পারছেন না শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি,  বেসরকারি চাকরিতে নিয়োগের বেলায় বিশ্বববিদ্যালয়ের এ সকল বিভাগের  শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে পড়েছে।

ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের ২০১৫-১৬ বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ বিন ইসলাম নাদিম বলেন,
বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ অভিভাবক মাননীয় উপাচার্য মহোদয় প্রফেসর ড. মো.দিদার উল আলম স্যার সহ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ঊধ্বর্তন  কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।

 স্যার যেন আমাদের এই অচল অবস্থা থেকে উদ্ধার করেন। আমরা সাধারন শিক্ষার্থীরা আশা রাখছি আপনারা অবশ্যই আমাদের জন্য সুন্দর একটি সমাধান ব্যবস্থা করে দিবেন যেন আমরা আমাদের অনার্সের শিক্ষা কার্যক্রম শেষ করতে পারি। 


প্রজন্মনিউজ/শেখ নিপ্পন
 

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ