চিরঘুমে শায়িত ফাহিম সালেহ

প্রকাশিত: ২০ জুলাই, ২০২০ ০৩:০২:৫৯ || পরিবর্তিত: ২০ জুলাই, ২০২০ ০৩:০২:৫৯

চিরঘুমে শায়িত ফাহিম সালেহ

ব্যাপক পুলিশি নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাও-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহর নামাজে জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

স্থানীয় সময় রবিবার দুপুরে (বাংলাদেশ সময় সোমবার) নিউইয়র্ক সিটি থেকে ৮৫ মেইল দূরে অঙ্গরাজ্যের আপস্টেট খ্যাত পোকেপসি শহরে রুরাল কবরস্থানে পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়-স্বজনদের উপস্থিতে ফাহিমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে জানাজা পরিচালনা করেন ওয়াপিংগার ফলসের আল নূর মসজিদের ইমাম ওসমানী। মার্কিন সংবাদমাধ্যম বাংলা প্রেস এ খবর জানিয়েছে।

ফাহিম সালেহর জানাজা ও দাফন সম্পন্নের সময় পুলিশি নিরাপত্তা দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন পোকেপসির স্থানীয় প্রবাসীরা।

তারা জানান, নিহত ফাহিমদের পরিবারে অনেক সদস্য জানাজায় অংশ নেন। পরিবারের সদস্য, যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত আত্মীয়-স্বজন ও স্থানীয় পোকেপসির কিছু প্রবাসী বাংলাদেশিও জানাজায় যোগ দেন। প্রায় ৯০/১০০ জন জানাজায় অংশ নিয়ে ফাহিমকে শেষ বিদায় জানান। ভাইয়ের জানাজায় অংশ নিতে ফাহিমের বড় বোন তার স্বামীকে নিয়ে মধ্যপ্রাচ্য থেকে পোকেপসিতে ছুটে আসেন।

নিহত ফাহিমের জানাজায় সংবাদকর্মীদের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করা হয়। ফলে সেখানে বাংলাদেশি কিংবা মূলধারার কোনও সাংবাদিক স্ব-পেশার পরিচয়ে উপস্থিত থাকতে পারেনি বলে জানা গেছে।

গত ১৪ জুলাই নিউইয়র্কের ম্যানহাটন এলাকার নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বাংলাদেশের রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাও-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহর ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

ইতোমধ্যে ফাহিম সালেহ খুনের ঘটনায় তার সাবেক ব্যক্তিগত সহকারী টাইরেস ডেভন হাসপিলকে গ্রেফতার করেছে নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্ট (এনওয়াইপিডি)। পরদিন তাকে আদালতে হাজির করা হয়। তবে তিনি খুনের দায় অস্বীকার করেছেন।

পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় ফাহিমকে হত্যা করে টাইরেস, নিউইয়র্ক পুলিশের বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্য ওয়াশিংটন পোস্ট এমনই খবর প্রকাশ করেছে।

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন





ব্রেকিং নিউজ












ব্রেকিং নিউজ