নোবিপ্রবিসাসের অফিস ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িতদের শনাক্তে নেই তৎপরতা

প্রকাশিত: ১৯ জুলাই, ২০২০ ০৪:১৩:৫৫

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (নোবিপ্রবিসাস) কার্যালয়ে ভাঙচুরের বিভিন্ন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীক সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের থেকে নিন্দা জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে জড়িতদের বিচারও দাবি করা হয়েছে। এদিকে, ঘটনার দু’দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো কাউকে শনাক্ত করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে কোন তৎপরতা দেখা যায়নি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর।

গত বৃহস্পতিবার নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির দপ্তরে ভাঙচুরের ঘটনা জানাজানি হলে  তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে নোবিপ্রবির  ছাত্র সংগঠনসমূহ,শিক্ষকদের সংগঠন এবং বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের  সাংবাদিক সংগঠন সহ মোট ৪৩ টি সংগঠন।

১৭ জুলাই এবং ১৮ জুলাই সংগঠনগুলো বিবৃতির মাধ্যমে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়।

বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের  সাংবাদিক সংগঠনের মধ্যে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি,জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি,কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি,ঢাকা কলেজ সাংবাদিক সমিতি, ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি,বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, চুয়েট সাংবাদিক সমিতি,কবি নজরুল সরকারি কলেজ সাংবাদিক সমিতি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস ক্লাব,খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি,ডুয়েট সাংবাদিক সমিতি,গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি, ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সাংবাদিক সমিতি।

নোবিপ্রবির  ছাত্র সংগঠনের মধ্যে  নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে নোবিপ্রবি ডিবেটিং সোসাইটি, নোবিপ্রবি বিজনেস ক্লাব,রয়্যাল ইকোনমিকস ক্লাব,নোবিপ্রবি ছায়া জাতিসংঘ, নোবিপ্রবি সায়েন্স ক্লাব,ফিমস ক্যারিয়ার ক্লাব,ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়, পাঠশালা,সমকাল সুহৃদ সমাবেশ,সিওয়াইবি,চলো পাল্টাই ফাউন্ডেশন, শব্দকুঠির,নোবিপ্রবি ফটোগ্রাফি ক্লাব,নোবিপ্রবি এগ্রি ক্লাব,ইনডিজিনাস স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন, বিএলডব্লিওএস ক্যারিয়ার ক্লাব,নোবিপ্রবি থিয়েটার, নোবিপ্রবি লিও ক্লাব,নোবিপ্রবি ক্যারিয়ার ক্লাব।এছাড়াও নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে নোবিপ্রবি স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ।

বিবৃতিতে সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ বলেন, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি প্রতিষ্ঠার পর  থেকেই সততা ও নিষ্ঠার সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নতির স্বার্থে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারী সকলের অধিকার আদায়ে অগ্রণী  ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিস অডিটোরিয়ামের ২য় তলায় সাংবাদিক সমিতির দপ্তর ভাঙচুর অবস্থায় পেয়েছেন সংগঠনের সদস্যরা। ভাঙচুরের এই ঘটনায় দপ্তরের মূল ফটকে থাকা সংগঠনের নাম সম্বলিত সাইনবোর্ডটি ভেঙ্গে ফেলা হয় এবং  অফিসের ভিতরে থাকা গুরুত্বপূর্ণ জিনিসপত্রে হামলা করার চেষ্টা চালানো হয়।যারা এভাবে সাংবাদিক সমিতির রুম ভাঙচুর করেছে তারা একধরনের কাপুরুষতার পরিচয় দিয়েছে।অনতিবিলম্বে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের চিহ্নিত করে শাস্তির দাবি জানায় সংগঠনগুলো।

সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ আরো বলেন,বিশ্ববিদ্যালয়য়ের প্রক্টর অফিস, ছাত্র পরামর্শ নির্দেশনা  বিভাগের মাঝখানে সাংবাদিক সমিতির অফিস ভাঙচুরের ঘটনায় এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্যও হুমকি বলে তাঁরা উল্লেখ করেন। এছাড়াও প্রত্যেকটি বন্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন না কোন চুরির ঘটনা ঘটেছে বলে তারা তুলে ধরেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়াম ভবনটিতে প্রক্টর অফিস,ছাত্র পরামর্শ নির্দেশনা বিভাগ ছাড়াও শরীর চর্চা বিভাগ,বিএনসিসি,আইকিউএসি, বিভিন্ন বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ অফিস রয়েছে। এই ভবনটিসহ  বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলো যেন অতি শিগগিরই সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হয় সেই বিষয়ে দ্রুত প্রদক্ষেপ গ্রহণের আহবান জানায় সংগঠনগুলো।

প্রজন্মনিউজ২৪/ওসমান/ফরহাদ

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ