সাবেক উপাচার্যের বিতর্কিত মন্তব্য,  শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের প্রতিবাদ

প্রকাশিত: ১৪ জুলাই, ২০২০ ০৩:২৮:০২

সম্প্রতি  বেসরকারি টিভি চ্যানেল এসএ টেলিভিশনে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) বর্তমান উপাচার্য ড. মো দিদার-উল- আলমকে নিয়ে সাবেক উপাচার্য ড. এম ওয়াহিদুজ্জামানের করা মন্তব্যকে মিথ্যা- বানোয়াট আখ্যায়িত করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক- কর্মকর্তাদের সংগঠন।

নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি, আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন নীল দল এবং নোবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশন তিন সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নিন্দা জানানো হয়। এছাড়াও নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় জনসংযোগ কর্মকর্তা ইফতেখার হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেন উপাচার্য ড. মো. দিদার-উল-আলম।

বেসরকারি ওই টেলিভিশনে টকশোর একাংশে দেয়া ওই বক্তব্যে ড. এম ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, “আমি মনে করেন একটা উপাচার্য ছিলাম। এদেশে বলা যায় যে চল্লিশ বছর যাবত আমাকে চিনে সবাই। আমারটা কিন্তু এজেন্সিতে যাচাই হয়েছে। আর যারটা দেখা যায় যে একেবারে বাংলাদেশই মানে না, আওয়ামীলীগের লোকতো না-ই। তাকে ওখানে যে উপাচার্য করা হলো, এই ফাইলটা কিন্তু সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর হাতে গিয়ে সাইন হয়েছে। এটা কিন্তু আর এজেন্সিতে গেলো না।”

এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বর্তমান উপাচার্যের ছবি ব্যবহার করে আপত্তিকর মন্তব্য করেন ড. এম ওয়াহিদুজ্জামান। সম্প্রতি দুর্নীতির দায়ে গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিবর্গের সাথে সেখানে বর্তমান উপাচার্য মহোদয়কে যুক্ত করে তাঁদেরকে ক্ষমতার লোভে দলে অনুপ্রবেশকারী হিসেবে উল্লেখ করেন। এহেন নোংরা কর্মকান্ডের মাধ্যমে নোবিপ্রবির সম্মানহানি করায় শিক্ষক- কর্মকর্তারা তীব্র প্রতিবাদ, ঘৃণা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। বিজ্ঞপ্তিতে এরূপ আপত্তিকর ও মানহানিকর বক্তব্য প্রত্যাহার করে অবিলম্বে জাতির সামনে ক্ষমা প্রার্থনার আহ্বান জানান তারা।

প্রজন্মনিউজ২৪/ওসমান/ফাহাদ হোসেন

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ