প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগে আগ্রহ কম

প্রকাশিত: ৩০ মে, ২০২০ ০৭:২০:৪৩

ব্যাংক ও অন্যান্য আর্থিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো প্রযুক্তিনির্ভর হলেও যখনই আমরা প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগের কথা বলি, তখন বোর্ড বা সংশ্লিষ্টরা এখানে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখায় না।

শনিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত ‘ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন ইন কোভিড ১৯’ শীর্ষক ওয়েব সেমিনারে সভাপতির বক্তব্যেএসব কথা বলেন সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের সভাপতি তপন কান্তি সরকার।

তিনি বলেন, কোভিড ১৯ সময়ে ব্যাংক ও আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সেবা সন্তুষ্ট পর্যায়ে থাকেনি।

এক্ষেত্রে হাইব্রিড ক্লাউড ব্যাংকিং ও অপারেশনাল সফটওয়্যারের আধুনিকায়ন ও গ্রাহকের অভিজ্ঞতাকে উন্নত করা একটি বড় চ্যালেঞ্জ বলে মন্তব্য করেন সংগঠনটির সভাপতি।

ব্যবসায়ের ডিজিটাল রূপান্তরে সাহস ও দক্ষ নেতৃত্বের ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, কোভিড-১৯ এর সাথে সাথে কিছু চ্যালেঞ্জ দেখা দিয়েছে। এগুলো হলো- সাইবার সিকিউরিটি চ্যালেঞ্জ, ডাটার সুরক্ষা ও নিরবিচ্ছিন্ন ইন্টারনেট ফ্রি অ্যাকসেস। আমরা যখন কাজ করছি হ্যাকাররা তখন বসে নেই। তবে আমরা অন্যান্য দেশের তুলনায় খুব একটা পিছিয়ে নেই।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রবি আজিয়েটার ক্লাউট কম্পিউটিং এর কনসালটেন্ট মোহাম্মাদ আসিফ।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন ইউসিবিএল ডিএমডি আব্দুল্লাহ আল মামুন, লংকা বাংলার সিটিও এবং পরিচালক মইনুল ইসলাম, ইসলামি ব্যাংক সিটিও তাহের আহমেদ, ডেকো গ্রুপের হেড অব আইসিটি মোহাম্মাদ মুসাসহ আরো অনেকে।

বক্তারা এআই প্রযুক্তি, ব্লক চেইন, সাইবার নিরাপত্তা, দৃশ্যমান থেকে ভার্চুয়াল সেবায় ভয় ইন্টার অপারেবল প্রযুক্তির অভাব এবং এটিএম বুথের অপর্যাপ্ততার কথা তুলে ধরেন।

এসময় গ্রাহকদের সুরক্ষায় নিজস্ব ভিপিএন ব্যবহারের কথা জানান ইসলামি ব্যাংক সিটিও তাহের আহমেদ। আর নানা উদ্যোগের মাধ্যমে তিনি ইতোমধ্যেই অর্জন করেছেন ডিজিটাল সার্টিফিকেট।

অপরদিকে ভবিষ্যতে ভিডিও ব্যাংকিং এবং স্মার্ট টেলার মেশিন দিয়ে সেবা চালু করার কথা জানান ইউসিবিএল ডিএমডি আব্দুল্লাহ আল মামুন।

প্রজন্ম নিউজ/ নুর

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ