আম্পানে সুন্দরবনের ক্ষতি নির্ধারণে ৪ কমিটি

প্রকাশিত: ২১ মে, ২০২০ ০৭:৫৫:২৪

দেশের ওপর দিয়ে ধ্বংসলীলা চালিয়ে যাওয়া সুপার সাইক্লোন আম্পানের আঘাতে ‘প্রাকৃতিক সুরক্ষা প্রাচীর’ খ্যাত সুন্দরবনের ক্ষতি নির্ধারণে ৪টি কমিটি গঠন করেছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়। 

বৃহস্পতিবার (২১ মে) পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের নির্দেশ বন অধিদফতরের সহকারী বন সংরক্ষক পদাধিকারী রেঞ্জ অফিসারদের নেতৃত্বে কমিটিগুলো গঠন করা হয়েছে।

আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে এ ক্ষতি সংক্রান্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। 

ঢাকায় সরকারি বাসভবন থেকে এক ভিডিও বার্তায় বনমন্ত্রী আম্পানে সুন্দরবনের ক্ষতির প্রাথমিক চিত্র তুলে ধরে বলেন, ‘প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী বন বিভাগের ১০টির অধিক কাঠের জেটি ও ৩০টির অধিক স্টাফ ব্যারাকের টিনের চালা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের ফলে সৃষ্ট জলোচ্ছ্বাসের বন বিভাগের ৬০টির অধিক পুকুরে লবণাক্ত পানি প্রবেশ করেছে। সুন্দরবনে কেওড়া গাছ বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’

মো. শাহাব উদ্দিন বলেন, ‘সুন্দরবনের ক্ষতিগ্রস্ত অথচা ভেঙে যাওয়া গাছপালা অপসারণ করা হবে না। সুন্দরবন নিজস্ব প্রাকৃতিক ক্ষমতাবলেই এটি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনবে। শুধু ক্ষতিগ্রস্ত অবকাঠামোগুলোর প্রয়োজনীয় সংস্কার করা হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘পুকুরগুলোর লবণাক্ত পানি অপসারণ করে ব্যবহার উপযোগী করা হবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে কিছু পুকুর পুনঃখনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের ‘প্রাকৃতিক ঢাল’ হিসেবে পরিচিত সুন্দরবন যুগ যুগ ধরে উপকূলের ওপর যেকোনও প্রাকৃতিক আঘাতের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে বুক চিতিয়ে লড়াই করে। নিজে ক্ষতবিক্ষত হলেও উপকূল এলাকা ও দেশকে সুরক্ষা প্রদান করে। এবার প্রবল শক্তিশালী সুপার সাইক্লোনের আঘাত সহ্য করে দেশকে বড় ধরনের বিধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করেছে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ নোনা-সহিষ্ণু এই ম্যানগ্রোভ বন।

প্রজন্ম নিউজ /নুর

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ