বাঁচতে চায় বেরোবি'র ক্যান্সার আক্রান্ত শিক্ষার্থী সজিব

প্রকাশিত: ১৬ মে, ২০২০ ০৪:০৭:৪৩ || পরিবর্তিত: ১৬ মে, ২০২০ ০৪:০৭:৪৩

মোঃ সাগর সুন্দরগঞ্জ (প্রতিনিধি): রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী লিংকন হাসান সজিব (২০)। 

স্বপ্ন দেখতেন পড়াশোনা শেষে চাকরি করে দরিদ্র পরিবারের সচ্ছলতা ফেরাবেন। সরকারি চাকরি করে দেশসেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করবে সজিব। কিন্তু সজিবের সেই স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্ন। তাঁর এখন বেঁচে থাকাটাই যেন একমাত্র স্বপ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। সজিব মুখে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মহাখালী জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ইতোমধ্যে তাকে তিন ক্যামোথেরাপি দেওয়া হয়েছে। তার পুরো মুখ ঘায়ে পঁচে গেছে। সজিবের চিকিৎসা খরচ চালিয়ে যেতে সব জমাজমি বিক্রির ৬-৭ লাখ টাকা ব্যয় করে পরিবারটি এখন নিঃস্ব।

সে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দহবন্দ ইউনিয়নের জরমনদী গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী আব্দুর রশিদ ও গৃহিনী শেফালী বেগমের একমাত্র সন্তান। তার বাবা মালেশিয়ায় শ্রমিকের কাজ করে ছেলের লেখাপড়া ও সংসার খরচ জোগাতেন। কিন্তু করোনার প্রভাবে কর্মহীন হয়ে বিদেশে গৃহবন্দী তার বাবা। এমন পরিস্থিতিতে সজিবের চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়া নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ডিসেম্বরে সজিবের মুখে টিউমার হয়। মুখের টিউমারটি আস্তে আস্তে বড় হতে থাকে। পরে চলতি বছরের ২২ জানুয়ারি তার মুখের টিউমারটি অপারেশন করা হয়। এরপর টিউমারটি ইনফেকশন করে তা মুখের ক্যান্সারে রূপ নেয়। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তাঁকে ক্যামেথেরাপি দেওয়া হয়েছে। আবার সজিবকে রেডিওথেরাপি দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে ডাক্তার। কিন্তু তাঁকে রেডিওথেরাপি দেয়ার সামর্থ্য নেই পরিবারের। অনেকটা অর্থাভাবে বন্ধ হয়ে গেছে সজিবের চিকিৎসা। সজিবের চিকিৎসা খরচ সংগ্রহ না হওয়ায় বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। 

চিকিৎসাবিহীন বিছানা শয্যাশায়ী সে। এমন অবস্থায় সমাজের বিত্তবানদের সহযোগীতা কামনা করেছেন তার পরিবার। কান্নাজড়িত কন্ঠে সজিবের মা শেফালি বেগম প্রজন্ম নিউজ কে বলেন, আমার একটায় সন্তান বাবা। অনেক কষ্টে লেখাপড়া শিখেয়েছি। আশা ছিল ছেলেটা একদিন অনেক বড় হয়ে সংসারের হাল ধরবে। তা বুঝি আর হলো না। আমার ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন। আমরা গরীব মানুষ যা ছিল সব শেষ হয়ে গেছে। এখন ওর চিকিৎসা কিভাবে চালাবো সেটা নিয়ে চিন্তায় আছি।

সমাজের বিত্তবান, বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনদের সামন্য সহযোগিতায় আবারো স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে সজিব। সবার সহযোগিতায় বেঁচে থাকবে একটি প্রাণ। দেশ সেবার স্বপ্ন পূরণ হবে মেধাবী সজিবের। তাই সজিবের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। সজিবকে সহযোগিতা করতে চাইলে যোগাযোগ করুন- ০১৭৮০৫৩১৬৮৮ (লিংকনের মা)। বিকাশ অ্যাকাউন্ট ০১৭৫১৪৮৪২৪৯ (ব্যক্তিগত নাম্বার)।

প্রজন্ম নিউজ/ নুর

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ