বাড়িওয়ালার কাণ্ডে মশার কামড়ে ছটফট করছে শিশু!

প্রকাশিত: ১৫ মে, ২০২০ ০৪:৫৫:৪০

করোনা মহামারিতে গোটা বিশ্ব আজ থমকে গেছে। বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশেও নেমে এসেছে মহাবিপর্যয়। এতে অসহায় হয়ে পড়েছে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। উচ্চবিত্তদের কোনও অসুবিধা না হলেও নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তরা পড়ছেন চরম বিপাকে।

দেশের এমন পরিস্থিতিতে ভাড়ার জন্য বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন মালিক। পরে একটি মার্কেটের বারান্দায় দুই শিশুকে ঘুম পাড়িয়ে তাদের মা পাশে বসে রাত কাটান খোলা আকাশের নিচে। মশার কামড়ে দুই শিশু ঘুমের মধ্যে ছটফট করছে। এ দৃশ্যেও মন গলেনি বাড়িওয়ালার। মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের শাপলাবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, দেড় মাসের বাসা ভাড়া দিতে না পারায় দুই শিশু সন্তানসহ এক নারীকে বাসা থেকে বের করে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। ফলে দুই সন্তানকে নিয়ে খোলা আকাশের নিচে রাত কাটিয়েছেন ওই নারী। খবর পেয়ে তাদেরকে থানায় নিয়ে সাহরি খাওয়ানোর পর বৃহস্পতিবার (১৪ মে) ভোরে বাসায় তুলে দিয়েছেন মৌলভীবাজারের সিনিয়র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল সার্কেল) আশরাফুজ্জামান।

শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিস আলী বলেন, ‘বুধবার (১৩ মে) দিবাগত রাত ২টার দিকে সহকর্মীদের মাধ্যমে জানতে পারি দেড় মাসের বাসা ভাড়া দিতে না পারায় দুই শিশু সন্তানসহ এক নারীকে বাসার মালিক রাতে বাসা থেকে বের করে দিয়েছেন। পরে গিয়ে দেখি শ্রীমঙ্গল থানার সামনের মার্কেটের বারান্দায় দুই শিশুকে ঘুম পাড়িয়ে তাদের মা পাশে বসে রয়েছেন খোলা আকাশের নিচে। মশার কামড়ে দুই শিশু ঘুমের মধ্যে ছটফট করছে।’

এ ঘটনা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুজ্জামানকে জানানো হয়। পরে তিনি তাদের সাহরি খাইয়ে সম্ভব সাহায্য দিয়ে ওই বাসায় তুলে দেন। পরে তাদের বাসায় তুলে দিয়ে বাড়িওয়ালাকে সতর্ক করে দেন পুলিশ কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান।

এ বিষয়ে মৌলভীবাজারের সিনিয়র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শ্রীমঙ্গল সার্কেল) আশরাফুজ্জামান বলেন, কেউ এই সংকটের সময় বাসা ভাড়ার জন্য বের করে দিতে পারেন না। বাড়িওয়ালার সমস্যা থাকলে তাকে প্রয়োজনে আমাদের পক্ষ থেকে সাহায্য করা হবে। কিন্তু অমানবিক কাজ হতে দেয়া যাবে না।

তিনি বলেন, আমি ঘটনাটি শুনে রাতেই তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করি। পরে শাপলাবাগ রেললাইনের পাশের ওই বাসায় গিয়ে বাসার মালিককে ডেকে তুলে কঠোরভাবে সতর্ক করে দিয়েছি। বাসায় তুলে দিয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে চাল, ডাল ও নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী এবং নগদ টাকা তাদের হাতে তুলে দিয়েছি।

প্রজন্ম নিউজ/ নুর

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ