তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রি বন্ধে ফ্রান্সকে চীনের কড়া হুঁশিয়ারি

প্রকাশিত: ১৪ মে, ২০২০ ০৯:১১:০৩

নিজেদের দাবিকৃত ভূখণ্ড তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রি না করতে ফ্রান্সকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছে চীন। স্বশাসিত দ্বীপটিতে অস্ত্র বিক্রির চুক্তি বাতিল করার আহ্বান জানিয়ে চীনের পররাষ্ট্র বিভাগ বুধবার (১৩ মে) একটি বিবৃতি দিয়েছে। এতে বলা হয়, তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রির তৎপরতা বন্ধ না করলে চীন-ফ্রান্সের সম্পর্কের অবনতি অনিবার্য।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বিবৃতিতে বলেন, তাইওয়ানে যেকোনো ধরণের বিদেশী অস্ত্র ও নিরাপত্তা আদান-প্রদানের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে বেইজিং। বেইজিংয়ের এ অবস্থান সুসঙ্গত ও স্পষ্ট। স্বশাসিতে দ্বীপটিতে ফ্রান্সের অস্ত্র বিক্রির তৎপরতায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে চীন।

ঝাও লিজিয়ান আরও বলেন, আমরা ‘ওয়ান-চায়না’ নীতির প্রতি সম্মান দেখাতে ফ্রান্সকে আহ্বান জানাই। চীনের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে হলে যেকোন দেশকে এ নীতির প্রতি অবশ্যই সম্মান দেখাতে হবে। চীন-ফ্রান্সের সম্পর্কে ফাটল ঠেকাতে অবিলম্বে তাইওয়ানে অস্ত্র বিক্রির চুক্তি বাতিল করতে হবে প্যারিসকে।

উল্লেখ্য, ‘ওয়ান-চায়না’ নীতি হলো তাইওয়ান বিষয়ে চীনের এমন একটি নীতি যেখানে দেশটি মনে করে তাইওয়ান চীনের অংশ। তবে তাইওয়ানের সার্বভৌমত্বের দাবিতে সমর্থন দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্রসহ কয়েকটি মিত্র দেশ। তাইওয়ানের নিরাপত্তা ব্যবস্থার বেশিরভাগই যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্রে সজ্জিত। 

১৯৯১ সালে ফ্রান্স তাইওয়ানে যুদ্ধজাহাজ লাফায়েট শ্রেণীর ফ্রিগেট বিক্রি করে। এর পরের বছর ১৯৯২ সালে তাইওয়ানে আরও ৬০টি মিরেজ ফাইটারজেট বিক্রি করে দেশটি। এসব কারণে সেসময় চীন ও ফ্রান্সের সম্পর্ক তলানিতে ঠেকে।

সম্প্রতি মিসাইল সিস্টেম উন্নত করতে ফ্রান্সের কাছ থেকে ২ কোটি ৮০ লাখ ডলারের ডাগায়ে এমকে-২ লঞ্চার আপগ্রেড কিট এবং অন্যান্য নিরাপত্তা সামগ্রী কেনার পরিকল্পনা নিয়েছে তাইওয়ান। ফ্রান্সের কাছ থেকে তাইওয়ানের অস্ত্র কেনা ঠেকাতে চীন এমন কড়া ভাষায় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

প্রজন্ম নিউজ/নুর

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ