শাওমির বিরুদ্ধে গ্রাহকদের তথ্য পাচারের অভিযোগ

প্রকাশিত: ০৫ মে, ২০২০ ০৪:২৪:০৯

ব্যবহারকারীদের তথ্য পাচার করার অভিযোগ উঠেছে শাওমির বিরুদ্ধে। শাওমির বিরুদ্ধে গুরুতর এঅভিযোগ তুলেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ম্যাগাজিন প্রকাশনা সংস্থা ফোর্বস।

একটি নিরাপত্তা গবেষণা প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, শাওমি হ্যান্ডসেটের ব্যক্তিগত তথ্যগুলো অগোচরে হাতিয়ে নিয়েছে। শাওমির বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীদের ব্রাউজিং তথ্য ও হ্যান্ডসেটে যেসব ফাইল ওপেন করা হয়েছে সেসব তথ্য সংগ্রহ করার অভিযোগ উঠেছে। আর এই তথ্য পাচার হচ্ছিল চীনের বিখ্যাত সংস্থা আলিবাবার রিমোট সার্ভারের মাধ্যমে।

অন্যান্য প্রিলোডেড অ্যাপগুলির সঙ্গে শাওমির রেডমি এবং এমআই সিরিজের ফোনের ডিফল্ট ব্রাউজারের মাধ্যমে এই ডেটাগুলি ট্রান্সফার করা হচ্ছিল। এমনকি যদি আপনি ইনকগনিটো মোডে রেখেও ইন্টারনেট সার্চ করেন তাহলেও আপনার ডেটা ট্রান্সফার হয়ে যাচ্ছিল। তবে এই ডেটা পৌঁছচ্ছে শুধুমাত্র তাদের সার্ভারে, কোন তৃতীয় সার্ভারে এই ডেটা ট্রান্সফার করা হয়নি।

সিকিউরিটি রিসার্চাররা শাওমির বিভিন্ন ফোনে এই সমস্যা খুঁজে পেয়েছেন, যার মাধ্যমে শাওমি তাদের ব্যবহারকারীর অনুমতি না নিয়েই তাদের ব্যক্তিগত তথ্য চীনে পাচার করছিল। রিসার্চাররা আবিষ্কার করেছেন যে, শাওমির অত্যন্ত জনপ্রিয় স্মার্টফোন রেডমি নোট ৮-এ এই সমস্যা সবথেকে বেশি রয়েছে। ব্রাউজারে কোন তথ্য সার্চ করার সঙ্গে সঙ্গেই সেই ডাটা রিমোট সার্ভারের মাধ্যমে আলিবাবার সার্ভারে পৌঁছে যাচ্ছিল।

রিসার্চাররা জানিয়েছেন শুধুমাত্র তার পরিচয় নয়, তার ব্যক্তিগত জীবনের বেশ কিছু তথ্যও ওই সার্ভারে পৌঁছে গেছে। তারা জানিয়েছেন যে, সম্ভবত শাওমি ইচ্ছাকৃতভাবে এই সফ্টওয়্যারগুলিকে রেডমি স্মার্টফোনে যোগ করেছে।

রিসার্চাররা আরো জানিয়েছেন যে, রেডমি নোট ৮ স্মার্টফোনটি ব্যবহার করার সময়, ফোনটি শুধুমাত্র ব্রাউজিং হিস্ট্রি নয় আরো বেশ কিছু তথ্য রেকর্ড করছিল।

এই প্রেক্ষাপটে শাওমির গোপনীয়তা নীতিমালার বিষয়ে ফোর্বসের সাম্প্রতিক নিবন্ধটি পর্যালোচনা করে এক ব্লগ পোস্টে জানিয়েছে, শাওমি বিশ্বাস করে যে ফোর্বসের রিপোর্টিংটি কিছু তথ্যের ভুল উপস্থাপনা করেছে। শাওমি ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা এবং সুরক্ষা-বিষয়ক নীতিমালাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে আসছে। শাওমি যে দেশ ও অঞ্চলগুলিতে ব্যবসা পরিচালনা করে সেগুলিতে কঠোরভাবে এই নীতিমালা অনুসরণ করছে এবং ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা অত্র দেশের বা অঞ্চলের সুরক্ষা আইন এবং নিয়মগুলির সাথে সম্পূর্ণরূপে মেনে চলছে।

প্রজন্ম নিউজ/নুর

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন