কিশোরীকে আঁখি আক্তার

ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে খালুর ফাঁসি

প্রকাশিত: ১৮ মার্চ, ২০২০ ০৭:১৫:২১

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলায় এক কিশোরীকে ধর্ষণ, হত্যার পর আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়ার দায়ে শাহাদত হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। ট্রাইব্যুনালের বিচারক এবং জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ আলী হোসাইন আজ বুধবার দুপুরে এ রায় দেন।

কিশোরী আঁখি আক্তার (১৪) জেলার সাটুরিয়ার তেবাড়িয়া গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের মেয়ে। ফাঁসির দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত শাহাদতের (৩৪) বাড়ি দৌলতপুরে বড় শ্যামপুর গ্রামে। রায় ঘোষণার সময় তিনি ট্রাইব্যুনালের এজলাসে উপস্থিত ছিলেন। তিনি সম্পর্কে আঁখির খালু। 

ট্রাইব্যুনালের বিশেষ সরকারি কৌসুঁলি (পিপি) নূরুল হুদা জানান, ২০১৮ সালের ২০ অক্টোবর রাতে দৌলতপুরের চক মিরপুর এলাকায় গভীর নলকূপের পরিত্যক্ত একটি ঘরের ভেতর আঁখিকে ধর্ষণ ও গলা টিপে হত্যা করা হয়। এরপর লাশ গুম করতে পেট্রল ঢেলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ফেলা হয়। পরের দিন সকালে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পরে এ ঘটনায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় হত্যা মামলা করেন। থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক আবদুল হাই তদন্ত করে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে শাহাদতকে গ্রেপ্তার করেন। পরের বছরের ২৪ জানুয়ারি আসামির বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালে অভিযোগপত্র দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা। মামলায় মোট ১৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।


নূরুল হুদা আরও বলেন, সব সাক্ষ্য ও প্রমাণের ভিত্তিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক আসামি শাহাদত হোসেনকে ফাঁসির আদেশ দেন।প্রজন্মনিউজ২৪/সাখাওয়াত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন