শাবিপ্রবি উপাচার্যসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে করা মামলা খারিজ

প্রকাশিত: ০৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১০:৫৫:৩১

সিলেট প্রতিনিধি::শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দায়ের করা দুই শিক্ষকের মামলা খারিজ করেছে দিয়েছে আদালত।বুধবার (৪ ডিসেম্বর) আদালত সূত্রে বিষয়টি জানা যায়।

শিক্ষকের বেতন থেকে স্বাস্থ্যবীমা বাবদ প্রতি মাসে ২৭১ টাকা কেটে নেওয়াকে অযৌক্তিক দাবি করে মামলা করেন গণিত বিভাগের অধ্যাপক ড. আব্দুল হাই ও পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম।জানা যায়, দায়ের করা মামলা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের সাথে সাংঘর্ষিক হওয়ার কারণে দায়েরকৃত মামলা খারিজ করে দেয় সিলেট জজকোর্ট।

আদালতের ভাষ্য মতে, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯৮৭ সালের আইনে ৬০নং ধারায় বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও অন্যান্য কর্মচারীর কল্যাণার্থে অবসর ভাতা, গোষ্ঠী বীমা, স্বাস্থ্য বীমা, কল্যাণ তহবিল ,ভবিষ্যৎ তহবিল গঠন করতে পারবে।বিশ্ববিদ্যালয়ের এ আইন থাকার কারণে আদালত কর্তৃক দুই শিক্ষকের মামলা খারিজ করে দেওয়া হয়।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাঝামাঝি সময়ে গণিত বিভাগের অধ্যাপক ড. আব্দুল হাই ও পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম সিলেট জজকোর্টে পৃথকভাবে দুইটি মামলা দায়ের করেন।এদিকে দুই মামলায় উপাচার্য ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার, কোষাধ্যক্ষ, হিসাব পরিচালক ও প্রগতি লাইফ ইনস্যুরেন্স এর এমডিকে বিবাদী করা হয়।

অধ্যাপক ড. আব্দুল হাইয়ের মামলার নম্বর ১৬৫/১৯ ও ড. রফিকুল ইসলামের মামলার নম্বর ১৬৬/১৯। প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রগতি লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেড এর মধ্যে একটি স্বাস্থ্যবীমা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

চুক্তি অনুযায়ী কিস্তির অর্ধেক টাকা পরিশোধ হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে বাকি অর্ধেক পরিশোধ করবেন শিক্ষকেরা। বিনিময়ে শিক্ষক কর্মকর্তাদের চিকিৎসা ব্যয় বহন করবে প্রগতি লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেড।

প্রজন্মনিউজ২৪/নাজিম উদ্দনি

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ