আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামে ২১ কর্মচারী চাকরিচ্যূত

প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ১১:৩৭:১২

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডস্থ দেশের সর্ববৃহৎ বেসরকারী আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২১ জন নিরাপত্তা প্রহরীকে চাকরিচ্যুত করাহয়।

গত ৩১ জানুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯৯ তম সিণ্ডিকেট সভায় "সিকিরিউরিটি ব্যবস্থাপনা-১৬" এর বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অব্যাহতি দেওয়া হয়।

গত সপ্তাহে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার কর্ণেল মোহাম্মদ কাশেম(অবঃ) ২১ জন নিরাপত্তা প্রহরীর নাম সম্মিলিত একটি তালিকার মাধ্যমে তাদের কে ১ মার্চ থেকে চাকরি থেকে অব্যাহতির বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এ নিয়ে পুরো ক্যাম্পাসে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

সরজমিনে কিছু নিরাপত্তা কর্মীর সাথে কথা বলতে গেলে তারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, 'এই ষড়যন্ত্রের মূল পরিকল্পনাকারী হলো আনোয়ারুল আজিম, শহীদুল্লাহ সেলিম ও নুরুল্লাহ। তারা ৩জনই মিরেরশরাইয়ের লোক। তারা আমাদের ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে চাকরিচ্যুত করে এখানে মিরেরশরাইয়ের লোকদের চাকরি দিয়ে নিজেদের আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করে বিশ্ববিদ্যালয়কে তারা একচেটিয়া পরিচালনা করতে চায়।

সাবেক ট্রান্সপোর্ট পরিচালক আনোয়ারের দূর্ণীতি আর অব্যবস্থপনার কারনে গত বছর আগস্টে এক সড়ক দূর্ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী নিহত ও অনেকে আহত হয়। সে সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের এ সকলনিরাপত্তা প্রহরী ছাত্রদের আন্দোলনের সময় তাদের  পাশে দাঁড়িয়ে আনোয়ারের বিরুদ্ধে অবস্থা নেয়। আন্দোলনের মুখে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাকে অব্যাহতিদিতে বাধ্য হয়।

পরবর্তীতে বিশেষ মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে সে নতুন করে চাকরি শুরু করে। তাই প্রতিশোধ নিতে সে আমাদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসের মাধ্যমে চাকরিচ্যূত করার ষড়যন্ত্র করছে বলে নিরাপত্তা প্রহরীরা জানান।"

বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলের আবাসিক ছাত্রদের সাথে কথা বলতে গেলে তারাও নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, 'এ সকল নিরাপত্তা প্রহরীরা তাদের জীবনের সকল সুখ কে ভুলে রাত-দিন আমাদের প্রহরা দিয়ে থাকে। তাদের কে এই বয়সে পূণর্বাসন না করে চাকরিচ্যূত করা মোটেই সমীচীন নয়। আমরা মানবিক দিক থেকে তাদের পাশে আছি এবং থাকবো। তাদের যে কোনো আন্দোলনে আমরা নিজেরাও সম্পৃত্ত হবো।"

প্রজন্মনিউজ২৪.কম/রিয়াজ/হাসিব

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন



আরো সংবাদ